• শিরোনাম


    Jeita Grotto মহান আল্লাহর বৈচিত্র্যময় সৃষ্টির বহি:প্রকাশ: এস এম শাহনূর

    | ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৩:১৪ অপরাহ্ণ

    Jeita Grotto মহান আল্লাহর বৈচিত্র্যময় সৃষ্টির বহি:প্রকাশ: এস এম শাহনূর

    Jeita Grotto-the pearls of nature in Lebanon.আপনি সারা দুনিয়া ঘুরেছেন।কিন্তু লেবানন্থ Nahar El-Kalb ভেলির “Jeita Grotto”দেখেননি,আমি বলব আপনার দেশ ভ্রমন অসমাপ্ত।”Millions of years were captured in drops of water.It’s the superb work of Mother Nature. It’s unimaginable how nature has sculpted such a masterpiece!!!

    Jeita Grotto is the biggest explored caves in Lebanon.7wonders world of the nature based on the first counts results on11/11/11 Jeita was one of the top most finalists on 14 of the 7Wonders world of the nature. And is now a major cultural symbol of the nation, not to mention a practical one considering it supplies drinking water to over a million Lebanese people.



    “ও কারিগর দয়ার সাগর ওগো দয়াময়–
    “মাওলা একি তোমার অপার লিলে।”
    পবিত্র কুরআন এবং হাদিস শরীফে আল্লাহ পাক বেহেস্তের যে অতি চমকপ্রদ ও মনোমুগ্ধকর,সুশীতল, শান্তিময়(সত্যিকার অবস্থা বর্ণনা করার কি যোগ্যতাই বা আমার মত অধমের আছে?) বর্ণনা দিয়েছেন অবিশ্বাসীদের তা বুঝানোর জন্য এটি একটি উদাহরণ হতে পারে।যার রুপ,সৌন্দর্য, জৌলুস,মোহনীয়তা,কমনীয়তা,শীতলতা সশরীরে অনুভব না করলে এবং নিজ চোঁখে না দেখলে শুধু ছবি আর ভাষার বন্দনায় আন্দাজ করা যাবেনা।(হে আল্লাহ আমার দুচোঁখ তোমার তরে কুরবান হউক।)তবু ইচ্ছে করে কিছু লিখতে—–
    এটি ছিল একটি অফিসিয়াল ভিজিট।জাতিসংঘ প্রদও আমাদের এসি-মিনিবাসের সামনে ছিল লেবানন আর্মির স্কট জিপ(গাইড)।রাজধানী বৈরুত থেকে ১৮ কি:মি:উত্তরে আমাদের গন্তব্যস্থল Jeita Grotto.
    গাড়ী পার্কিং এর স্থল থেকে Cable Car এ চড়ে প্রজাপতির মত উড়তে উড়তে নিমিষেই পৌঁছে যাই Upper Grotto এর গেটে।
    Upper Grotto পরিদর্শন শেষে  নানান দেশের বহু পর্যটকদের সাথে অনেক চমৎকার ট্রেনে চড়ে অল্প সময়ের মধ্যেই Lower Grotto গেটে পৌঁছি।শুরু হয় সেলফি আর ছবি তোলার মহোৎসব।
    A very frequent drop by drop water flow mold the stalactite on the ceiling and the stalagmite on the floor of the galleries and halls.
    Jeita Grotto is characterized by its unique dazzling beauty and the most varied shaped, size and colored fantastic stone concretions.At every step an astonishing limestone formation will surprise you.
    ১৮৩৬ সালে একজন আমেরিকান মিশনারি এটি আবিস্কার করেন।এতে দুটো গ্যালারী রয়েছে।

    ➤( 1)The lower gallery(Temp.18deg.)opened to public in1958 and where we took a short dreamy cruise in a rowboat at a distance of some 450 m from the cave’s total length of 7800m.

    ➤(2)The upper gallrrery(Temp.22deg.)inauguarted in1969 and where we have a walking tour and discover extraordinary stone forms of curtains,columns,draperies,mushrooms,etc.at a distance of some 700 m from the cave’s total length of 2200 m.
    The cavern is so serene that it seems like an enormous cathedral.

     

    💻এস এম শাহনূর

    (উইকিপিডিয়ান,কবি ও গবেষক)

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম