• শিরোনাম


    ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কিশোর মুক্তিযোদ্ধা আবু সালেক (বীর প্রতীক) এর স্মৃতিচারণ

    ম. কাজী এনাম, স্টাফ রিপোর্টার | মঙ্গলবার, ১৮ আগস্ট ২০২০ | পড়া হয়েছে 107 বার

    রাইফেল হাতে এই কিশোর মুক্তিযুদ্ধার ছবিটা কত জায়গায় কতবার যে দেখেছি তার কোনো ইয়ত্তা নেই। মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে, পোস্টারে, পেস্টুনে কিংবা ক্যালেন্ডারে। যতবারই দেখেছি ততবারই মনে মনে খুব জানতে ইচ্ছে করতো তিনি কি বেঁচে আছেন? নাকি শহীদ হয়েছেন? তবে ফেসবুকের কল্যাণে জানলাম তিনি বেঁচে আছেন। তিনি হলেন কিশোর মুক্তিযোদ্ধা আবু সালেক(বীর প্রতীক)। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উচ্চ বিদ্যালয় ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র ছিল আবু সালেক। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়ে গেলে বই খাতা পেলে সীমানা পেরিয়ে ...বিস্তারিত

    রাইফেল হাতে এই কিশোর মুক্তিযুদ্ধার ছবিটা কত জায়গায় কতবার যে দেখেছি তার কোনো ইয়ত্তা নেই। মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে, পোস্টারে, পেস্টুনে কিংবা ক্যালেন্ডারে। যতবারই দেখেছি ততবারই মনে মনে খুব জানতে ইচ্ছে করতো তিনি কি বেঁচে আছেন? নাকি শহীদ হয়েছেন? তবে ফেসবুকের কল্যাণে জানলাম তিনি বেঁচে আছেন। তিনি হলেন কিশোর মুক্তিযোদ্ধা আবু সালেক(বীর ...বিস্তারিত

    রাইফেল হাতে এই কিশোর মুক্তিযুদ্ধার ছবিটা কত জায়গায় কতবার যে দেখেছি তার কোনো ইয়ত্তা নেই। মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে, পোস্টারে, পেস্টুনে কিংবা ...বিস্তারিত

    কুরবানীর ইতিহাস ও বিধি বিধান [] মাওলানা কাওসার আহমদ যাকারিয়া

    মাওলানা কাওসার আহমদ যাকারিয়া, অতিথি লেখক | রবিবার, ১৯ জুলাই ২০২০ | পড়া হয়েছে 142 বার

    ইসলামের অন্যতম একটি নিদর্শন হচ্ছে- কুরবানী। যা সমগ্র মানবজাতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি ইবাদত। যেমন- মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, “আমি প্রত্যেক উম্মতের জন্য কুরবানির নিয়ম করে দিয়েছি। যাতে তাদেরকে জীবনোপকরণস্বরূপ যেসব চতুষ্পদ জন্তু দিয়েছি সেগুলোর উপর তারা আল্লাহর নাম উচ্চারণ করে।” (সূরা হজ্জ ৩৪) মানব জাতির সেই কুরবানির বিধানটি অতীব প্রাচীন। বস্তুত মানব ইতিহাসে সর্বপ্রথম কুরবানি হযরত আদম (আঃ) এর দুই পুত্র হাবিল ও কাবিল এর দেয়া কুরবানি থেকেই কুরবানির ইতিহাসের গোড়াপত্তন হয়। ...বিস্তারিত

    ইসলামের অন্যতম একটি নিদর্শন হচ্ছে- কুরবানী। যা সমগ্র মানবজাতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি ইবাদত। যেমন- মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, “আমি প্রত্যেক উম্মতের জন্য কুরবানির নিয়ম করে দিয়েছি। যাতে তাদেরকে জীবনোপকরণস্বরূপ যেসব চতুষ্পদ জন্তু দিয়েছি সেগুলোর উপর তারা আল্লাহর নাম উচ্চারণ করে।” (সূরা হজ্জ ৩৪) মানব জাতির সেই কুরবানির বিধানটি অতীব প্রাচীন। বস্তুত মানব ...বিস্তারিত

    ইসলামের অন্যতম একটি নিদর্শন হচ্ছে- কুরবানী। যা সমগ্র মানবজাতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি ইবাদত। যেমন- মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, “আমি প্রত্যেক উম্মতের ...বিস্তারিত

    “ইতিহাসের কাঠগড়ায় হযরত মোয়াবিয়া রা.” অসাধারণ একটি গ্রন্থ : মুফতি ছালেহ বিন আব্দুল কুদ্দুস

    লেখক: মুফতি ছালেহ বিন আব্দুল কুদ্দুস শিক্ষক, জামিয়া ইসলামিয়া নিউ মডেল মাদ্রাসা, রূপসী, ঢাকা | বুধবার, ২৪ জুন ২০২০ | পড়া হয়েছে 221 বার

    নাম: ইতিহাসের কাঠগড়ায় হযরত মোয়াবিয়া রা. লেখক: আল্লামা মুফতি তাকী উসমানী অনুবাদক: মাওলানা আবু তাহের মিসবাহ প্রকাশনায়: দারুল কলম প্রকাশকাল : রজব ১৪২৪, অক্টোবর ২০০৩ পৃষ্ঠাসংখ্যা: ১৯২ মূল্য : ৬৫ টাকা সাহাবায়ে কেরাম রা. হলেন উম্মাহর সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বোত্তম জামাআত। রাসূল সা.-এর সান্নিধ্যের বরকতে পুণ্যময় জীবনের অধিকারী হয়েছিলেন তাঁরা। এই মুবারক জামাআত দ্বীনের মশাল হাতে ছড়িয়ে পড়েছিলেন পৃথিবীর দিকে দিকে। তাদের ত্যাগ ও কোরবানীর বদৌলতেই আমরা ...বিস্তারিত

    নাম: ইতিহাসের কাঠগড়ায় হযরত মোয়াবিয়া রা. লেখক: আল্লামা মুফতি তাকী উসমানী অনুবাদক: মাওলানা আবু তাহের মিসবাহ প্রকাশনায়: দারুল কলম প্রকাশকাল : রজব ১৪২৪, অক্টোবর ২০০৩ পৃষ্ঠাসংখ্যা: ১৯২ মূল্য : ৬৫ টাকা সাহাবায়ে কেরাম রা. হলেন উম্মাহর সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বোত্তম জামাআত। রাসূল সা.-এর সান্নিধ্যের বরকতে পুণ্যময় জীবনের ...বিস্তারিত

    নাম: ইতিহাসের কাঠগড়ায় হযরত মোয়াবিয়া রা. লেখক: আল্লামা মুফতি তাকী উসমানী অনুবাদক: মাওলানা আবু তাহের মিসবাহ প্রকাশনায়: দারুল কলম প্রকাশকাল : ...বিস্তারিত

    আজ ঐতিহাসিক পলাশী ট্র্যাজেডি দিবস

    | মঙ্গলবার, ২৩ জুন ২০২০ | পড়া হয়েছে 146 বার

    আজ ২৩ জুন, ঐতিহাসিক পলাশী ট্র্যাজেডি দিবস। এটি বাঙালি জাতির ইতিহাসে এক কালো অধ্যায়। ২৫৯ বছর আগে ১৭৫৭ সালের এই দিনে এক প্রাসাদ ষড়যন্ত্রে যুদ্ধের প্রহসন হয়েছিল ভাগীরথী নদীর তীরে পলাশীর আম্রকাননে। সেই দিন বাংলা, বিহার ও উড়িষ্যার শেষ স্বাধীন নবাব তরুণ সিরাজউদ্দৌলাকে পরাজিত করার মাধ্যমে স্বাধীনতার লাল সূর্য অস্তমিত হয়। এমন বেদনাবহ স্মৃতিকে স্মরণ করে মীরজাফর, ঘষেটি বেগমের প্রেতাত্মাদের রুখে দেয়ার দৃপ্ত শপথ নেয় জাতি। ইতিহাস পাঠে জানা যায়, ষোলো ...বিস্তারিত

    আজ ২৩ জুন, ঐতিহাসিক পলাশী ট্র্যাজেডি দিবস। এটি বাঙালি জাতির ইতিহাসে এক কালো অধ্যায়। ২৫৯ বছর আগে ১৭৫৭ সালের এই দিনে এক প্রাসাদ ষড়যন্ত্রে যুদ্ধের প্রহসন হয়েছিল ভাগীরথী নদীর তীরে পলাশীর আম্রকাননে। সেই দিন বাংলা, বিহার ও উড়িষ্যার শেষ স্বাধীন নবাব তরুণ সিরাজউদ্দৌলাকে পরাজিত করার মাধ্যমে স্বাধীনতার লাল সূর্য অস্তমিত ...বিস্তারিত

    আজ ২৩ জুন, ঐতিহাসিক পলাশী ট্র্যাজেডি দিবস। এটি বাঙালি জাতির ইতিহাসে এক কালো অধ্যায়। ২৫৯ বছর আগে ১৭৫৭ সালের এই ...বিস্তারিত

    কসবা উপজেলার বল্লভপুর গ্রামের নামকরণের ইতিকথা: এস এম শাহনূর

    | মঙ্গলবার, ১৬ জুন ২০২০ | পড়া হয়েছে 680 বার

    "তসলিম হাজার বার বেল্লভপুর এখানে দিবারাত্রি পয়দা হয় নূর"। - শায়খুল বাঙ্গাল (র.)
    নিজ গ্রাম সম্পর্কে না জানা লজ্জার,সঠিক ইতিহাস জানা সত্যিই গর্বের।সমালোচনা নয় গঠনমূলক পরামর্শ ও তথ্য দিয়ে আগামী প্রজন্মের জন্য একটি তথ্যসমৃদ্ধ বল্লভপুর গ্রামের ইতিহাস রচনায় আপনিও অবদান রাখুন। ➤ প্রথম পর্ব: "যেখানে দেখিবে ছাই, উড়াইয়া দেখ তাই, পাইলেও পাইতে পার অমূল্য রতন"। [কবি গগন হরকরা (গগন চন্দ্র দাস) /জগজ্যেতি।] উপরোক্ত পঙক্তির আক্ষরিক অর্থ যাহাই হউক না কেন ভাবার্থ কিন্তু শতভাগ সত্য। ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার,কসবা উপজেলাধীন ছায়া ...বিস্তারিত

    "তসলিম হাজার বার বেল্লভপুর এখানে দিবারাত্রি পয়দা হয় নূর"। - শায়খুল বাঙ্গাল (র.)
    নিজ গ্রাম সম্পর্কে না জানা লজ্জার,সঠিক ইতিহাস জানা সত্যিই গর্বের।সমালোচনা নয় গঠনমূলক পরামর্শ ও তথ্য দিয়ে আগামী প্রজন্মের জন্য একটি তথ্যসমৃদ্ধ বল্লভপুর গ্রামের ইতিহাস রচনায় আপনিও অবদান রাখুন। ➤ প্রথম পর্ব: "যেখানে দেখিবে ছাই, উড়াইয়া দেখ তাই, পাইলেও পাইতে পার অমূল্য রতন"। [কবি গগন ...বিস্তারিত

    "তসলিম হাজার বার বেল্লভপুর এখানে দিবারাত্রি পয়দা হয় নূর"। - শায়খুল বাঙ্গাল (র.)
    নিজ গ্রাম সম্পর্কে না জানা লজ্জার,সঠিক ইতিহাস জানা সত্যিই গর্বের।সমালোচনা ...বিস্তারিত

    ‘ও মোর রমজানেরই রোজার শেষে’ কালজয়ী এই গানের পিছনের কথা ও ইসলামী সংগীতের সূচনা

    লেখক: আরিফুল ইসলাম | বুধবার, ২৭ মে ২০২০ | পড়া হয়েছে 185 বার

    শ্যামা সঙ্গীতের রেকর্ডিং শেষে কাজী নজরুল ইসলাম বাড়ি ফিরছেন। যাত্রাপথে তাঁর পথ আগলে ধরেন সুর সম্রাট আব্বাস উদ্দীন। একটা আবদার নিয়ে এসেছেন তিনি। আবদারটি না শোনা পর্যন্ত নজরুলকে তিনি এগুতে দিবেন না। আব্বাস উদ্দীন নজরুলকে সম্মান করেন, সমীহ করে চলেন। নজরুলকে তিনি ‘কাজীদা’ বলে ডাকেন। নজরুল বললেন, “বলে ফেলো তোমার আবদার।” আব্বাস উদ্দীন সুযোগটা পেয়ে গেলেন। বললেন, “কাজীদা, একটা কথা আপনাকে বলবো বলবো ভাবছি। দেখুন না, পিয়ারু কাওয়াল, কাল্লু কাওয়াল ...বিস্তারিত

    শ্যামা সঙ্গীতের রেকর্ডিং শেষে কাজী নজরুল ইসলাম বাড়ি ফিরছেন। যাত্রাপথে তাঁর পথ আগলে ধরেন সুর সম্রাট আব্বাস উদ্দীন। একটা আবদার নিয়ে এসেছেন তিনি। আবদারটি না শোনা পর্যন্ত নজরুলকে তিনি এগুতে দিবেন না। আব্বাস উদ্দীন নজরুলকে সম্মান করেন, সমীহ করে চলেন। নজরুলকে তিনি ‘কাজীদা’ বলে ডাকেন। নজরুল বললেন, “বলে ফেলো তোমার ...বিস্তারিত

    শ্যামা সঙ্গীতের রেকর্ডিং শেষে কাজী নজরুল ইসলাম বাড়ি ফিরছেন। যাত্রাপথে তাঁর পথ আগলে ধরেন সুর সম্রাট আব্বাস উদ্দীন। একটা আবদার ...বিস্তারিত

    কওমী মাদরাসার ইতিহাস ও অবদান [] মাওলানা কাওসার আহমদ যাকারিয়া

    মাওলানা কাওসার আহমদ যাকারিয়া, অতিথি লেখক -মজলিশপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া | সোমবার, ১৮ মে ২০২০ | পড়া হয়েছে 192 বার

    ভারতজুড়ে উপমহাদেশের কওমী মাদরাসা শিক্ষার ইতিহাস ও অবদান স্বরনীয়। যা ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। কওমী মাদরাসা শিক্ষার মূল উৎস হচ্ছে মহান রাব্বুল আলামিন। আল্লাহতায়ালার পক্ষ থেকে প্রথম ওহী হলো ‘ইকরা’ তুমি পড়। এটি হেরা গুহায় রাসূল (সা.) উপর প্রথম নাজিল হয়। ইতিহাসের প্রথম মাদরাসা মক্কা নগরীর আরকাম ইবনে আবিল আরকাম (রা.)-এর বাড়ি দারে আরকামে প্রতিষ্ঠিত হয়। রাসূল (সা.)-এর যুগে আরবের ভৌগোলিক পরিধি মাত্র কয়েকশ’ বর্গকিলোমিটারের মধ্যে সীমিত ছিল। এখানকার সভ্যতা, সংস্কৃতি, ...বিস্তারিত

    ভারতজুড়ে উপমহাদেশের কওমী মাদরাসা শিক্ষার ইতিহাস ও অবদান স্বরনীয়। যা ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। কওমী মাদরাসা শিক্ষার মূল উৎস হচ্ছে মহান রাব্বুল আলামিন। আল্লাহতায়ালার পক্ষ থেকে প্রথম ওহী হলো ‘ইকরা’ তুমি পড়। এটি হেরা গুহায় রাসূল (সা.) উপর প্রথম নাজিল হয়। ইতিহাসের প্রথম মাদরাসা মক্কা নগরীর আরকাম ইবনে আবিল আরকাম ...বিস্তারিত

    ভারতজুড়ে উপমহাদেশের কওমী মাদরাসা শিক্ষার ইতিহাস ও অবদান স্বরনীয়। যা ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। কওমী মাদরাসা শিক্ষার মূল উৎস হচ্ছে ...বিস্তারিত

    কওমী মাদরাসা ইতিহাস ঐতিহ্য ও অবদান [] মাওলানা আশরাফ আলী নিজামপুরী

    হাবীব আনওয়ার, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি | বুধবার, ২৯ এপ্রিল ২০২০ | পড়া হয়েছে 164 বার

    বর্তমান আমাদের দেশে তিন ধরনের শিক্ষা ব্যবস্থা চালু আছে। এক. শুধু জাগতিক শিক্ষা। দুই. ধর্মীয় ও জাগতিক উভয়ের সমন্বিত শিক্ষা। তিন. শুধু ধর্মীয় শিক্ষা। শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড বলে আমাদের সমাজে যে বচন চালু আছে তার বাস্তব চিত্রগুলো ফুটে উঠে জাগতিক শিক্ষার কেন্দ্র গুলোতে। যদি আরো একটু ব্যাখ্যা করি তা হলো; শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড আর একটি রাষ্ট্রের মেরুদণ্ড হচ্ছে অর্থ। শিক্ষা ছাড়া জাতি যেমন মেরুদণ্ডহীন, তেমনি ...বিস্তারিত

    বর্তমান আমাদের দেশে তিন ধরনের শিক্ষা ব্যবস্থা চালু আছে। এক. শুধু জাগতিক শিক্ষা। দুই. ধর্মীয় ও জাগতিক উভয়ের সমন্বিত শিক্ষা। তিন. শুধু ধর্মীয় শিক্ষা। শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড বলে আমাদের সমাজে যে বচন চালু আছে তার বাস্তব চিত্রগুলো ফুটে উঠে জাগতিক শিক্ষার কেন্দ্র গুলোতে। যদি আরো একটু ব্যাখ্যা ...বিস্তারিত

    বর্তমান আমাদের দেশে তিন ধরনের শিক্ষা ব্যবস্থা চালু আছে। এক. শুধু জাগতিক শিক্ষা। দুই. ধর্মীয় ও জাগতিক উভয়ের ...বিস্তারিত

    কসবা উপজেলার চৌবেপুর গ্রামের নামকরণের ইতিকথা: এস এম শাহনূর

    | শুক্রবার, ২৪ এপ্রিল ২০২০ | পড়া হয়েছে 245 বার

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় ২নং মেহারী ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে চৌবেপুর গ্রামের অবস্থান। উত্তর দক্ষিণে গ্রামের বুক চিরে চলে গেছে সুন্দর এক গ্রাম্য পথ।এ পথে উত্তরের মহেশ রোড় থেকে বল্লভপুর -মেহারী -ঈশান নগর হয়ে আপনি অনায়াসে পৌছে যেতে পারবেন কুটি বাজার পর্যন্ত। গ্রামের পূর্ব,উত্তর ও পশ্চিমে দিগন্ত ছোঁয়া ফসলে ভরা সবুজ মাঠ আপনাকে মুগ্ধ করবে।আপনার মনের অজান্তেই মুখে বেরিয়ে আসতে পারে কবিতার পঙক্তিমালা-

    "আমি দেখিছি সবুজের সমারোহ তার পথ-মাঠ-ঘাট-প্রান্তর জুড়ে। দেখিছি সবুজ পাতার গাছের সারি মেঠো ...বিস্তারিত

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় ২নং মেহারী ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে চৌবেপুর গ্রামের অবস্থান। উত্তর দক্ষিণে গ্রামের বুক চিরে চলে গেছে সুন্দর এক গ্রাম্য পথ।এ পথে উত্তরের মহেশ রোড় থেকে বল্লভপুর -মেহারী -ঈশান নগর হয়ে আপনি অনায়াসে পৌছে যেতে পারবেন কুটি বাজার পর্যন্ত। গ্রামের পূর্ব,উত্তর ও পশ্চিমে দিগন্ত ছোঁয়া ফসলে ভরা সবুজ মাঠ ...বিস্তারিত

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় ২নং মেহারী ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে চৌবেপুর গ্রামের অবস্থান। উত্তর দক্ষিণে গ্রামের বুক চিরে চলে গেছে সুন্দর এক ...বিস্তারিত

    বাংলা নববর্ষের অজানা তথ্য: এস এম শাহনূর  

    | মঙ্গলবার, ১৪ এপ্রিল ২০২০ | পড়া হয়েছে 370 বার

    ২০১৪ সালের এমনই এক দিনে "এসো প্রাণের উৎসবে" শিরোনামে চট্টলার ডাক পত্রিকায় প্রথম এ লেখাটি প্রকাশিত হয়। লেখাটি আমার কাছে আজো মৌলিক। তাই পাঠকের জন্য বাংলা নববর্ষের অজানা তথ্য শিরোনামে আজ লেখাটি আবারো নিবেদন করলাম।বিদায় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, স্বাগতম ১৪২৭ বঙ্গাব্দ।

    "হে রৌদ্র দীপ্ত প্রারম্ভে বর্ষ তোমাকে জানাই সু-স্বাগতম।পুরনো দিনের গ্লানি মুছে পেয়েছি তোমাকে নব শীর্ষে তুমি আমাদের আশীষ হয়ে রবে কথা দাও নববর্ষে । "(নববর্ষ /স্মৃতির মিছিলে কাব্যগ্রন্থ থেকে গৃহীত)
    "ধর্ম যার যার ...বিস্তারিত

    ২০১৪ সালের এমনই এক দিনে "এসো প্রাণের উৎসবে" শিরোনামে চট্টলার ডাক পত্রিকায় প্রথম এ লেখাটি প্রকাশিত হয়। লেখাটি আমার কাছে আজো মৌলিক। তাই পাঠকের জন্য বাংলা নববর্ষের অজানা তথ্য শিরোনামে আজ লেখাটি আবারো নিবেদন করলাম।বিদায় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, স্বাগতম ১৪২৭ বঙ্গাব্দ।

    "হে রৌদ্র দীপ্ত প্রারম্ভে বর্ষ তোমাকে জানাই সু-স্বাগতম।পুরনো দিনের গ্লানি মুছে ...বিস্তারিত

    ২০১৪ সালের এমনই এক দিনে "এসো প্রাণের উৎসবে" শিরোনামে চট্টলার ডাক পত্রিকায় প্রথম এ লেখাটি প্রকাশিত হয়। লেখাটি আমার কাছে ...বিস্তারিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম