• শিরোনাম


    পবিত্র শ’বে মি’রাজ ও আমাদের শিক্ষা -ঃমুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান

    লেখক: মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি | রবিবার, ২২ মার্চ ২০২০ | পড়া হয়েছে 71 বার

    মি'রাজ আরবি শব্দ।আভিধানিক অর্থ হল উর্ধবালোকেগমন বা আহরণ। নবুওয়তের একাদশ মতান্তর দ্বাদশ বছরে রজব মাসের ২৬ তারিখে দিবাগত রাতে মহানবী হজরত মোহাম্মদ (সা:) এর পবিত্র শ'বে মি'রাজ সংঘটিত হয়। পবিত্র মি'রাজ সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা পবিত্র আলকোরআনে এরশাদ করেন,' সুবহানাল্লাজি আসরা বি আবদিহী লাইলাম মিনাল মাসজিদিল হারামে ইলাল মাসজিদিল আকসা'। অর্থাৎ পবিত্র সেই মহান স্রষ্টা যিনি নিজ প্রিয় বান্দাহকে বোরাকে আরোহণ করিয়ে কাবা ঘর থেকে বায়তুল মুকাদ্দাস পর্যন্ত নৈশ ভ্রমণ ...বিস্তারিত

    মি'রাজ আরবি শব্দ।আভিধানিক অর্থ হল উর্ধবালোকেগমন বা আহরণ। নবুওয়তের একাদশ মতান্তর দ্বাদশ বছরে রজব মাসের ২৬ তারিখে দিবাগত রাতে মহানবী হজরত মোহাম্মদ (সা:) এর পবিত্র শ'বে মি'রাজ সংঘটিত হয়। পবিত্র মি'রাজ সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা পবিত্র আলকোরআনে এরশাদ করেন,' সুবহানাল্লাজি আসরা বি আবদিহী লাইলাম মিনাল মাসজিদিল হারামে ইলাল মাসজিদিল আকসা'। অর্থাৎ ...বিস্তারিত

    মি'রাজ আরবি শব্দ।আভিধানিক অর্থ হল উর্ধবালোকেগমন বা আহরণ। নবুওয়তের একাদশ মতান্তর দ্বাদশ বছরে রজব মাসের ২৬ তারিখে দিবাগত রাতে মহানবী ...বিস্তারিত

    নোয়াখালীর আদি ইতিহাস ও বর্তমান চিত্র

    মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন,জেলা প্রতিনিধি, নোয়াখালী। | বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | পড়া হয়েছে 84 বার

    মেঘনার অববাহিকায় বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেষে জন্ম নেওয়া নোয়াখালী। নোয়াখালী, ফেনী ও লক্ষীপুর নিয়ে এক সময় ছিল মহকুমা। নোয়াখালীর নামকরণ, ভাষা, নোয়াখালী আলোকিত গুণীজন, জেলার দর্শনীয় স্থান ও নোয়াখালীর প্রিয় খাবার নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরার হলো। নোয়াখালীর নামকরণ ইতিহাস। এ জেলার আদি নাম ভুলুয়া। বিশেষজ্ঞদের মতে একবার ত্রিপুরার পাহাড় থেকে প্রবাহিত ডাকাতিয়া নদীর পানিতে ভুলুয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চল ভয়াবহভাবে প্লাবিত হয় এবং এতে ফসলি জমির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এ থেকে পরিত্রাণের জন্য ১৬৬০ সালে ...বিস্তারিত

    মেঘনার অববাহিকায় বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেষে জন্ম নেওয়া নোয়াখালী। নোয়াখালী, ফেনী ও লক্ষীপুর নিয়ে এক সময় ছিল মহকুমা। নোয়াখালীর নামকরণ, ভাষা, নোয়াখালী আলোকিত গুণীজন, জেলার দর্শনীয় স্থান ও নোয়াখালীর প্রিয় খাবার নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরার হলো। নোয়াখালীর নামকরণ ইতিহাস। এ জেলার আদি নাম ভুলুয়া। বিশেষজ্ঞদের মতে একবার ত্রিপুরার পাহাড় থেকে প্রবাহিত ডাকাতিয়া ...বিস্তারিত

    মেঘনার অববাহিকায় বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেষে জন্ম নেওয়া নোয়াখালী। নোয়াখালী, ফেনী ও লক্ষীপুর নিয়ে এক সময় ছিল মহকুমা। নোয়াখালীর নামকরণ, ভাষা, ...বিস্তারিত

    চাঁদপুরের ‘রক্তধারা’ স্মৃতিস্তম্ভ কথা কয়: এস এম শাহনূর

    | শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | পড়া হয়েছে 131 বার

    লোককথার প্রসিদ্ধ চাঁদ সওদাগরের নাম কিংবা চাঁদ ফকিরের পুণ্য নামের স্মৃতিধন্য মেঘনার স্রোতধারায় পুষ্ট চাঁদপুর পর্যটকদের দৃষ্টির অন্তরালে রয়ে গেছে আজো।ভ্রমণ পিপাসু মানুষের মনের জানালায় চাঁদপুরের ইতিহাস-ঐতিহ্য পৌঁছে দিতেই আমার এই প্রয়াস। লোককথার সওদাগরের বাণিজ্যতরী সপ্তডিঙা মধুকর একদিন এই উর্বর জনপদে ভিড়েছিলে। তাহারি সম্বৃদ্ধ নামে পরিচিত চাঁদপুর এই লোকবিশ্বাস অনেকেরই মনে দৃঢ় হয়ে গেঁথে আছে। কারো কারো মতে শহরের পুরিন্দপুর বর্তমানে কুড়ালিয়া হলার মহল্লার চাঁদ ফকিরের নাম হতে চাঁদপুর নামের উৎপত্তি। ...বিস্তারিত

    লোককথার প্রসিদ্ধ চাঁদ সওদাগরের নাম কিংবা চাঁদ ফকিরের পুণ্য নামের স্মৃতিধন্য মেঘনার স্রোতধারায় পুষ্ট চাঁদপুর পর্যটকদের দৃষ্টির অন্তরালে রয়ে গেছে আজো।ভ্রমণ পিপাসু মানুষের মনের জানালায় চাঁদপুরের ইতিহাস-ঐতিহ্য পৌঁছে দিতেই আমার এই প্রয়াস। লোককথার সওদাগরের বাণিজ্যতরী সপ্তডিঙা মধুকর একদিন এই উর্বর জনপদে ভিড়েছিলে। তাহারি সম্বৃদ্ধ নামে পরিচিত চাঁদপুর এই লোকবিশ্বাস অনেকেরই মনে ...বিস্তারিত

    লোককথার প্রসিদ্ধ চাঁদ সওদাগরের নাম কিংবা চাঁদ ফকিরের পুণ্য নামের স্মৃতিধন্য মেঘনার স্রোতধারায় পুষ্ট চাঁদপুর পর্যটকদের দৃষ্টির অন্তরালে রয়ে গেছে ...বিস্তারিত

    গোলাম থেকে দিল্লীর বাদশাহ -ঃ মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান

    লেখকঃ মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি | বৃহস্পতিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | পড়া হয়েছে 125 বার

    ইসলামে যোগ্যতার মানদণ্ড হলো তাকওয়া, পরহেজগারি তথা নৈতিক গুণাবলীর অধিকারী হওয়া।ইতিহাসের পাতায় চোখ ফেরালেই দেখা যায় শুধুমাত্র এই কারণে ই অনেক গোলাম দেশের বাদশাহ নির্বাচিত হয়ে গেছেন। উপমহাদেশে সর্বপ্রথম মুসলিম বাদশাহ যিনি হয়েছিলেন তিনি সুলতান শিহাবুদ্দীন মোহাম্মদ ঘোরীর আযাদকৃত গোলাম কুতুবউদ্দিন আইবেক। নিশাপুরের কাজী ফখরুদ্দীন অতি সামান্য মূল্যে একটি ছোট্ট গোলাম বাজার থেকে ক্রয় করেন। এ-ই কমদামী গোলাম ই যে একদিন উপমহাদেশের বাদশাহ হবে তা ক্রেতা বিক্রেতা কেউ-ই জানত ...বিস্তারিত

    ইসলামে যোগ্যতার মানদণ্ড হলো তাকওয়া, পরহেজগারি তথা নৈতিক গুণাবলীর অধিকারী হওয়া।ইতিহাসের পাতায় চোখ ফেরালেই দেখা যায় শুধুমাত্র এই কারণে ই অনেক গোলাম দেশের বাদশাহ নির্বাচিত হয়ে গেছেন। উপমহাদেশে সর্বপ্রথম মুসলিম বাদশাহ যিনি হয়েছিলেন তিনি সুলতান শিহাবুদ্দীন মোহাম্মদ ঘোরীর আযাদকৃত গোলাম কুতুবউদ্দিন আইবেক। নিশাপুরের কাজী ফখরুদ্দীন অতি সামান্য মূল্যে একটি ...বিস্তারিত

    ইসলামে যোগ্যতার মানদণ্ড হলো তাকওয়া, পরহেজগারি তথা নৈতিক গুণাবলীর অধিকারী হওয়া।ইতিহাসের পাতায় চোখ ফেরালেই দেখা যায় শুধুমাত্র এই কারণে ...বিস্তারিত

    স্মৃতির পাতায় ৬ ফেব্রুয়ারি ২০০১ঃ মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান

    লেখক: মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি | বৃহস্পতিবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | পড়া হয়েছে 63 বার

    ইসলামী আন্দোলন, সংগ্রামের দুর্গ ব্রাহ্মণবাড়িয়া দেশ- বিদেশে বহু সুনাম অর্জন করেছে।ইসলামী আন্দোলনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রয়েছে উজ্জ্বল ইতিহাস। কাদিয়ানী বিরুধী আন্দোলন থেকে শুরু করে সকল প্রকার বাতেল বিরুধী আন্দোলনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেহাদি চেতনায় খ্যাতি লাভ করেছে। ২০০১ সালের হাইকোর্ট থেকে ফতোয়া বিরুধী রায় বাতিলের আন্দোলন তৎকালীন সময়ে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক সময়ে অন্ধকারে নিমজ্জিত ছিল। সাধারণ মুসলমানদের ইসলাম সম্পর্কে ধারনা ছিল অতি সীমিত। যার প্রমাণ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতীত ইতিহাস পর্যালোচনা করলেই পাওয়া যায়। সেই ...বিস্তারিত

    ইসলামী আন্দোলন, সংগ্রামের দুর্গ ব্রাহ্মণবাড়িয়া দেশ- বিদেশে বহু সুনাম অর্জন করেছে।ইসলামী আন্দোলনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রয়েছে উজ্জ্বল ইতিহাস। কাদিয়ানী বিরুধী আন্দোলন থেকে শুরু করে সকল প্রকার বাতেল বিরুধী আন্দোলনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেহাদি চেতনায় খ্যাতি লাভ করেছে। ২০০১ সালের হাইকোর্ট থেকে ফতোয়া বিরুধী রায় বাতিলের আন্দোলন তৎকালীন সময়ে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক সময়ে ...বিস্তারিত

    ইসলামী আন্দোলন, সংগ্রামের দুর্গ ব্রাহ্মণবাড়িয়া দেশ- বিদেশে বহু সুনাম অর্জন করেছে।ইসলামী আন্দোলনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রয়েছে উজ্জ্বল ইতিহাস। কাদিয়ানী বিরুধী আন্দোলন থেকে ...বিস্তারিত

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া(ভাটি অঞ্চল)জেলার ভূ-প্রকৃতির উৎপত্তি রহস্য: এস এম শাহনূর

    | রবিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২০ | পড়া হয়েছে 217 বার

    যে কোন জনপদের ঐতিহ্যের স্মারক তাঁর অতীত জীবনের ইতিকথা। বাংলাদেশের প্রাচীনতম জনপদ সমতটের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসের সাথে এর ভূ-প্রকৃতির উৎপত্তি ও এতদ অঞ্চলে প্রথম বসবাসকারী জনগোষ্ঠীর জীবন গাঁথাও অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। এর পরিচয় জানতে হলে ফিরে যেতে হবে সহস্রাধিক বছরের নিরন্ধ্র পথে।কখনও কখনও আমাদের হৃদয়ে সতত প্রশ্ন দেখা দেয় কিভাবে ভাটি অঞ্চলের বুকে জেগে উঠা চরাভূমির প্রশস্ত ললাটে প্রতিভাত হয় ব্রাহ্মণবাড়িয়া নামের রক্তিম আভা; কোন সাধকের পুণ্যপাদস্পর্শে ধন্য হয়েছে এখানকার মাটি ...বিস্তারিত

    যে কোন জনপদের ঐতিহ্যের স্মারক তাঁর অতীত জীবনের ইতিকথা। বাংলাদেশের প্রাচীনতম জনপদ সমতটের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসের সাথে এর ভূ-প্রকৃতির উৎপত্তি ও এতদ অঞ্চলে প্রথম বসবাসকারী জনগোষ্ঠীর জীবন গাঁথাও অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। এর পরিচয় জানতে হলে ফিরে যেতে হবে সহস্রাধিক বছরের নিরন্ধ্র পথে।কখনও কখনও আমাদের হৃদয়ে সতত প্রশ্ন দেখা দেয় কিভাবে ভাটি ...বিস্তারিত

    যে কোন জনপদের ঐতিহ্যের স্মারক তাঁর অতীত জীবনের ইতিকথা। বাংলাদেশের প্রাচীনতম জনপদ সমতটের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসের সাথে এর ভূ-প্রকৃতির উৎপত্তি ...বিস্তারিত

    নোয়াখালীর ৩০০ বছরের পুরনো বজরা শাহী মসজিদটি আজও অপরুপ

    রিপোর্ট: মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি। | শনিবার, ০৪ জানুয়ারি ২০২০ | পড়া হয়েছে 110 বার

    নোয়াখালীর বজরা শাহী মসজিদ ১৮শ’ শতাব্দীতে নির্মিত। এটি জেলার সোনাইমুড়ী উপজেলাধীন বজরা ইউনিয়নের অবস্থিত একটি মসজিদ। নোয়াখালীর সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ঐতিহাসিক স্থাপনা গুলির একটি মসজিদটি। ২৯ নভেম্বর ১৯৯৮ থেকে বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ বজরা শাহী মসজিদের ঐতিহ্য রক্ষা এবং দুর্লভ নিদর্শন সংরক্ষণের জন্য কাজ করছে। মোঘল আমলের যেসব স্থাপত্য শিল্প সবার নজর কাড়ে, নোয়াখালীর বজরা শাহী মসজিদ তার মধ্যে অন্যতম। বজরা শাহী মসজিদ নির্মাণ করা হয় দিল্লি শাহী মসজিদের আদলে। মসজিদটি নোয়াখালীর বৃহত্তম ...বিস্তারিত

    নোয়াখালীর বজরা শাহী মসজিদ ১৮শ’ শতাব্দীতে নির্মিত। এটি জেলার সোনাইমুড়ী উপজেলাধীন বজরা ইউনিয়নের অবস্থিত একটি মসজিদ। নোয়াখালীর সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ঐতিহাসিক স্থাপনা গুলির একটি মসজিদটি। ২৯ নভেম্বর ১৯৯৮ থেকে বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ বজরা শাহী মসজিদের ঐতিহ্য রক্ষা এবং দুর্লভ নিদর্শন সংরক্ষণের জন্য কাজ করছে। মোঘল আমলের যেসব স্থাপত্য শিল্প সবার নজর কাড়ে, ...বিস্তারিত

    নোয়াখালীর বজরা শাহী মসজিদ ১৮শ’ শতাব্দীতে নির্মিত। এটি জেলার সোনাইমুড়ী উপজেলাধীন বজরা ইউনিয়নের অবস্থিত একটি মসজিদ। নোয়াখালীর সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ঐতিহাসিক ...বিস্তারিত

    কসবা উপজেলার পুরকুইল গ্রামের নামকরণের ইতিকথা: এস এম শাহনূর

    | শুক্রবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | পড়া হয়েছে 869 বার

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলাধীন ২নং মেহারী ইউনিয়নের অন্তর্গত দ্বীনের পতাকাবাহী এক নিভৃত জনপদ পুরকুইল গ্রাম।আমার জন্মের পূর্ব থেকেই এ গ্রামের প্রতি রয়েছে এক ভালবাসার টান।কারণ আমার মরহুম পিতা মাস্তান হাজী আব্দুল জব্বার বল্লভপুরী (রহ.) এবং পুরকুইল দরবার শরীফের পীর যুগের অন্যতম আলেম হযরত মাওলানা মরহুম আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান(রহ.) পীর সাহেব, ওঁনারা ছিলেন গত শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ আলেম পীর প্রফেসর আব্দুল খালেক ছতুরাভী (রহ) এর মুরিদ ও পীর ভাই।ছতুরা দরবার শরীফ,সোনাকান্দা দরবার ...বিস্তারিত

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলাধীন ২নং মেহারী ইউনিয়নের অন্তর্গত দ্বীনের পতাকাবাহী এক নিভৃত জনপদ পুরকুইল গ্রাম।আমার জন্মের পূর্ব থেকেই এ গ্রামের প্রতি রয়েছে এক ভালবাসার টান।কারণ আমার মরহুম পিতা মাস্তান হাজী আব্দুল জব্বার বল্লভপুরী (রহ.) এবং পুরকুইল দরবার শরীফের পীর যুগের অন্যতম আলেম হযরত মাওলানা মরহুম আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান(রহ.) পীর সাহেব, ...বিস্তারিত

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলাধীন ২নং মেহারী ইউনিয়নের অন্তর্গত দ্বীনের পতাকাবাহী এক নিভৃত জনপদ পুরকুইল গ্রাম।আমার জন্মের পূর্ব থেকেই এ গ্রামের ...বিস্তারিত

    যার অবদানে কাতারের জাতীয় দিবস ১৮ই ডিসেম্বর :-কে.এম.সুহেল আহমদ

    লেখক: কে.এম.সুহেল আহমদ, কাতার প্রতিনিধি | বুধবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | পড়া হয়েছে 133 বার

    "তোমাকে পাওয়ার জন্যে, হে স্বাধীনতা, তোমাকে পাওয়ার জন্যে আর কতবার ভাসতে হবে রক্তগঙ্গায় ? আর কতবার দেখতে হবে খাণ্ডবদাহন ? তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা," জনৈক কবির এ কবিতায় একটি দেশের স্বাধীনতা অর্জনের একটি পূর্বাভাস ফুটে উঠেছে। কোন দেশ স্বাধীনতা লাভ করে রক্তগঙ্গায় ভেসে আবার কোনটি রক্তপাত ছাড়া। সেরকম রক্তপাত ছাড়াই ১৯৭১ সালে গ্রেট বৃটেনের কাছ থেকে পূর্ণ স্বাধীনতা লাভ করেছিল বিশ্বের একমাত্র সর্বোচ্চ আয়ের ধনী দেশ মধ্য প্রাচ্যের 'কাতার'। ...বিস্তারিত

    "তোমাকে পাওয়ার জন্যে, হে স্বাধীনতা, তোমাকে পাওয়ার জন্যে আর কতবার ভাসতে হবে রক্তগঙ্গায় ? আর কতবার দেখতে হবে খাণ্ডবদাহন ? তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা," জনৈক কবির এ কবিতায় একটি দেশের স্বাধীনতা অর্জনের একটি পূর্বাভাস ফুটে উঠেছে। কোন দেশ স্বাধীনতা লাভ করে রক্তগঙ্গায় ভেসে আবার কোনটি রক্তপাত ছাড়া। সেরকম রক্তপাত ছাড়াই ১৯৭১ ...বিস্তারিত

    "তোমাকে পাওয়ার জন্যে, হে স্বাধীনতা, তোমাকে পাওয়ার জন্যে আর কতবার ভাসতে হবে রক্তগঙ্গায় ? আর কতবার দেখতে হবে খাণ্ডবদাহন ? তুমি আসবে ব’লে, হে ...বিস্তারিত

    কসবা উপজেলার ইতিহাস ও ঐতিহ্য: এস এম শাহনূর

    | শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ | পড়া হয়েছে 121 বার

    কসবা একটি ফরাসি শব্দ। কসবা শব্দটির আভিধানিক অর্থ জনপদ অথবা উপশহর।ভারতবর্ষে মুসলিম শাসনামলে এ নামকরণ করা হয়।অনেক ঐতিহাসিকের মতে কসবার আদি নাম ছিল কৈলাগড়।কিল্লা শব্দের অর্থ সেনানিবাস যা সামান্য পরিবর্তিত হয়ে হয়েছে কৈলা।গড় অর্থ দুর্গ।মুসলমানদের শাসনামলে এ কসবা ছিল একটি কিল্লা বা সেনানিবাস।আর এভাবেই কৈলাগড় থেকে কসবার উৎপত্তি।ভারতবর্ষে মুসলমান শাসনামলে ১৩৩৮ খ্রিস্টাব্দে আলাউদ্দিন হোসেন শাহ রেল স্টেশনের পশ্চিম পাশে কৈলাগড় নামে একটি দূর্গ নির্মাণ করেছিলেন। ঐ দূর্গের আশে পাশে প্রথম ...বিস্তারিত

    কসবা একটি ফরাসি শব্দ। কসবা শব্দটির আভিধানিক অর্থ জনপদ অথবা উপশহর।ভারতবর্ষে মুসলিম শাসনামলে এ নামকরণ করা হয়।অনেক ঐতিহাসিকের মতে কসবার আদি নাম ছিল কৈলাগড়।কিল্লা শব্দের অর্থ সেনানিবাস যা সামান্য পরিবর্তিত হয়ে হয়েছে কৈলা।গড় অর্থ দুর্গ।মুসলমানদের শাসনামলে এ কসবা ছিল একটি কিল্লা বা সেনানিবাস।আর এভাবেই কৈলাগড় থেকে কসবার উৎপত্তি।ভারতবর্ষে মুসলমান শাসনামলে ...বিস্তারিত

    কসবা একটি ফরাসি শব্দ। কসবা শব্দটির আভিধানিক অর্থ জনপদ অথবা উপশহর।ভারতবর্ষে মুসলিম শাসনামলে এ নামকরণ করা হয়।অনেক ঐতিহাসিকের মতে কসবার ...বিস্তারিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম