• শিরোনাম


    সৌদি আরবে বাংলাদেশের একমাত্র নারী হজ ব্যবস্থাপক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আয়েশা।

    | ৩০ জানুয়ারি ২০১৯ | ২:২৫ পূর্বাহ্ণ

    সৌদি আরবে বাংলাদেশের একমাত্র নারী হজ ব্যবস্থাপক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আয়েশা।

    সৌদি আরবে বাংলাদেশের একমাত্র নারী মুনাজ্জিম হিসেবে হজ কাফেলা পরিচালনা করে আয়েশা চৌধুরী। বৃহস্পতিবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে মদিনায় দেখা হয় সৌদি সরকার কর্তৃক স্বীকৃত বাংলাদেশি হজ এজেন্সির মনোনীত প্রতিনিধি ‘হজ উইথ আয়েশা’ নামে একটি অনুষ্ঠানে, এজেন্সির মালিক আয়েশা চৌধুরী সাথে।

    এই বাংলাদেশি বর্তমানে কিছু ওমরাহ্‌ হাজী নিয়ে অবস্থান করেছেন প্রবিত্র মদিনায়। মদিনায় এস এ টিভির দর্শক ফোরাম আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তাকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। বাংলাদেশের একমাত্র নারী মুনাজ্জিম হিসেবে হজ কাফেলা পরিচালনা করায় এক নামে সবাই চেনেন আয়েশাকে। ২০০৫ থেকে চলতি বছর পর্যন্ত প্রতিটি হজেই অংশ নিয়েছেন তিনি।



    সৌদি আরবে প্রবাস কথা প্রতিনিধির সাথে কথা বলছেন আয়েশার চৌধুরী, ছবি মোবারক হোসেন ভুইয়া।
    আয়েশা প্রবাস কথাকে জানায়,২০১৬ সালে ‘হজ উইথ আয়েশা’- নামে এজেন্সির লাইসেন্স বের করলাম। আমি কৃতজ্ঞ মন্ত্রণালয় ও হাব নেতৃবৃন্দের কাছে।

    ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলার সদর থানার চিনাইর গ্রামের এস বি চৌধুরীর মেয়ে আয়েশা। তিন ভাই এক বোনের মধ্যে তৃতীয় তিনি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবস্থাপনায় অনার্স মাষ্টার্স সম্পন্ন করা আয়েশা চৌধুরী আরো বলেন, ব্যবসার সঙ্গে আল্লাহর ঘরের মেহমান হিসেবে হাজীদের সেবাটাই আমার কাছে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার।সৌদি আরবে বাংলাদেশের একমাত্র নারী মুনাজ্জিম হিসেবে হজ কাফেলা পরিচালনা করে আয়েশা চৌধুরী। বৃহস্পতিবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে মদিনায় দেখা হয় সৌদি সরকার কর্তৃক স্বীকৃত বাংলাদেশি হজ এজেন্সির মনোনীত প্রতিনিধি ‘হজ উইথ আয়েশা’ নামে একটি অনুষ্ঠানে, এজেন্সির মালিক আয়েশা চৌধুরী সাথে।

    এই বাংলাদেশি বর্তমানে কিছু ওমরাহ্‌ হাজী নিয়ে অবস্থান করেছেন প্রবিত্র মদিনায়। মদিনায় এস এ টিভির দর্শক ফোরাম আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তাকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। বাংলাদেশের একমাত্র নারী মুনাজ্জিম হিসেবে হজ কাফেলা পরিচালনা করায় এক নামে সবাই চেনেন আয়েশাকে। ২০০৫ থেকে চলতি বছর পর্যন্ত প্রতিটি হজেই অংশ নিয়েছেন তিনি।

    সৌদি আরবে প্রবাস কথা প্রতিনিধির সাথে কথা বলছেন আয়েশার চৌধুরী, ছবি মোবারক হোসেন ভুইয়া।
    আয়েশা প্রবাস কথাকে জানায়,২০১৬ সালে ‘হজ উইথ আয়েশা’- নামে এজেন্সির লাইসেন্স বের করলাম। আমি কৃতজ্ঞ মন্ত্রণালয় ও হাব নেতৃবৃন্দের কাছে।

    ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলার সদর থানার চিনাইর গ্রামের এস বি চৌধুরীর মেয়ে আয়েশা। তিন ভাই এক বোনের মধ্যে তৃতীয় তিনি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবস্থাপনায় অনার্স মাষ্টার্স সম্পন্ন করা আয়েশা চৌধুরী আরো বলেন, ব্যবসার সঙ্গে আল্লাহর ঘরের মেহমান হিসেবে হাজীদের সেবাটাই আমার কাছে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার।সৌদি আরবে বাংলাদেশের একমাত্র নারী মুনাজ্জিম হিসেবে হজ কাফেলা পরিচালনা করে আয়েশা চৌধুরী। বৃহস্পতিবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে মদিনায় দেখা হয় সৌদি সরকার কর্তৃক স্বীকৃত বাংলাদেশি হজ এজেন্সির মনোনীত প্রতিনিধি ‘হজ উইথ আয়েশা’ নামে একটি অনুষ্ঠানে, এজেন্সির মালিক আয়েশা চৌধুরী সাথে।

    এই বাংলাদেশি বর্তমানে কিছু ওমরাহ্‌ হাজী নিয়ে অবস্থান করেছেন প্রবিত্র মদিনায়। মদিনায় এস এ টিভির দর্শক ফোরাম আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তাকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। বাংলাদেশের একমাত্র নারী মুনাজ্জিম হিসেবে হজ কাফেলা পরিচালনা করায় এক নামে সবাই চেনেন আয়েশাকে। ২০০৫ থেকে চলতি বছর পর্যন্ত প্রতিটি হজেই অংশ নিয়েছেন তিনি।

    সৌদি আরবে প্রবাস কথা প্রতিনিধির সাথে কথা বলছেন আয়েশার চৌধুরী, ছবি মোবারক হোসেন ভুইয়া।
    আয়েশা প্রবাস কথাকে জানায়,২০১৬ সালে ‘হজ উইথ আয়েশা’- নামে এজেন্সির লাইসেন্স বের করলাম। আমি কৃতজ্ঞ মন্ত্রণালয় ও হাব নেতৃবৃন্দের কাছে।

    ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলার সদর থানার চিনাইর গ্রামের এস বি চৌধুরীর মেয়ে আয়েশা। তিন ভাই এক বোনের মধ্যে তৃতীয় তিনি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবস্থাপনায় অনার্স মাষ্টার্স সম্পন্ন করা আয়েশা চৌধুরী আরো বলেন, ব্যবসার সঙ্গে আল্লাহর ঘরের মেহমান হিসেবে হাজীদের সেবাটাই আমার কাছে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার।সৌদি আরবে বাংলাদেশের একমাত্র নারী মুনাজ্জিম হিসেবে হজ কাফেলা পরিচালনা করে আয়েশা চৌধুরী। বৃহস্পতিবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে মদিনায় দেখা হয় সৌদি সরকার কর্তৃক স্বীকৃত বাংলাদেশি হজ এজেন্সির মনোনীত প্রতিনিধি ‘হজ উইথ আয়েশা’ নামে একটি অনুষ্ঠানে, এজেন্সির মালিক আয়েশা চৌধুরী সাথে।

    এই বাংলাদেশি বর্তমানে কিছু ওমরাহ্‌ হাজী নিয়ে অবস্থান করেছেন প্রবিত্র মদিনায়। মদিনায় এস এ টিভির দর্শক ফোরাম আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তাকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। বাংলাদেশের একমাত্র নারী মুনাজ্জিম হিসেবে হজ কাফেলা পরিচালনা করায় এক নামে সবাই চেনেন আয়েশাকে। ২০০৫ থেকে চলতি বছর পর্যন্ত প্রতিটি হজেই অংশ নিয়েছেন তিনি।

    সৌদি আরবে প্রবাস কথা প্রতিনিধির সাথে কথা বলছেন আয়েশার চৌধুরী, ছবি মোবারক হোসেন ভুইয়া।
    আয়েশা প্রবাস কথাকে জানায়,২০১৬ সালে ‘হজ উইথ আয়েশা’- নামে এজেন্সির লাইসেন্স বের করলাম। আমি কৃতজ্ঞ মন্ত্রণালয় ও হাব নেতৃবৃন্দের কাছে।

    ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলার সদর থানার চিনাইর গ্রামের এস বি চৌধুরীর মেয়ে আয়েশা। তিন ভাই এক বোনের মধ্যে তৃতীয় তিনি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবস্থাপনায় অনার্স মাষ্টার্স সম্পন্ন করা আয়েশা চৌধুরী আরো বলেন, ব্যবসার সঙ্গে আল্লাহর ঘরের মেহমান হিসেবে হাজীদের সেবাটাই আমার কাছে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম