• শিরোনাম


    সুন্দরগঞ্জে পাগলের ঘরবাড়ি ভাংচুর করে জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ

    রিপোর্ট: জাহিদ হাসান জীবন, সুন্দরগঞ্জ(গাইবান্ধা)প্রতিনিধিঃ | ২২ নভেম্বর ২০১৯ | ৭:৪০ অপরাহ্ণ

    সুন্দরগঞ্জে পাগলের ঘরবাড়ি ভাংচুর করে জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ

    গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রামজীবন ইউনিয়ের নিজপাড়া গ্রামের অসহায় নুরু পাগলার ঘর বাড়ি ভাংচুর পূর্বক বসত ভিটা দখল করে নতুন করে ঘর বাড়ি নির্মান করেছে প্রতিপক্ষ।

    স্থানীয়দের নিকট থেকে জানা গেছে,দিন ভিক্ষারী নুরু পাগলা দীর্ঘদিন থেকে স্ত্রী ইছিরন বেগমের পৈতৃক বসত ভিটায় বসবাস করে আসছে। এমনতাবস্থায় বিগত ২ বছর আগে একই গ্রামের জাহেদুল ইসলামের স্ত্রী আজিভান বেগম ওই বসতভিটা ক্রয় সূত্রে মালিকানার
    দাবী করে। এনিয়ে এলাকায় দফায় দফায় ১৩টি গ্রাম সালিস হলেও কোন সুরাহা হয়নি।যার কারনে উভয় পক্ষ আদালতের স্মরনাপন্ন হন। এরই এক পর্যায় চলতি মাসের ৫ নভেম্বর আজিভান নুরু পাগলার পরিবারকে আসামী করে থানায় একটি অজ্ঞাত মামলা দায়ের করে। ওই মামলার জের ধরে ১৫ নভেম্বর রাতে পুলিশ অসহায় নুরু পাগলার ছোট ছেলে এনামুলকে ধরে নিয়ে যায়। যার কারনে নুরু পাগলার পরিবার পুলিশি গ্রেপ্তারি আতঙ্কে বাড়ি ঘর ছাড়া হয়ে পড়ে। এ সূবর্ণ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আজিভান তার স্বামী ও ভাড়া করা লোকজন নিয়ে নুরু পাগলার ঘর দুয়ার ভাংচুর করে।এ সময় নুরু পাগলা বাধা দিতে গেলে তাকে প্রাণ নাশের ভয় দেখিয়ে আটকে রাখে। নুরু পাগল ঘর বাড়ি ভেঙ্গে অন্যত্র সরিয়ে ফেলে ওই বসতভিটাতে তাৎক্ষণিকভাবে আজিভানের ঘর বাড়ি নির্মাণ করে ফেলে হয়।খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে টের পেয়ে প্রতিপক্ষের লোকজন পালিয়ে যান। বর্তমানে কনকনে ঠান্ডা শীতে নুরু পাগলার পরিবার খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন যাপন করছে।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নুরু পাগলার প্রতিবেশি এ প্রতিনিধিকে জানান,নুরু পাগলা ভুকাভাকা মানুষ দুই চার বাড়ি ছওয়াল করে খায়,তার ঘর বাড়ি ভাঙ্গাটা মোটেও ঠিক করে নাই।কোর্টে মামলা চলছে,মামলার মাধ্যমেই ফয়সালা হোক,তার ভাংচুর করে দখল করি ঘর বাড়ি বানার কি দরকার। ওই বসতভিটার জমিটি ইছিরনের চাচী কছিরন বেওয়ার নিকট থেকে একই গ্রামের মৃত হেসকার সরকারের ক্রয় সুত্রে কেনা মালিকানার ভিত্তিতে ছেলে হাবিজার রহমানের পৈতৃক সম্পত্তির অংশ থেকে ক্রয় করেছেন আজিভান বেগম।
    বিরোধ নিরসনের জন্য গ্রামের লোকজন ওই দলিলের সত্যতা যাইয়ের জন্য কয়েকবার আইনজীবীর পরামর্শ নিতে যান। সেই সাথে নুরু পাগলার পরিবার দলিলটি সনাক্ত করতে গাইবান্ধা ও রংপুর জেলা সাব রেজিস্টার অফিসে গিয়ে খুঁজে পাননি।



    সব মিলে অসহায় দীনো হীনো নুরু পাগলার পরিবার টি ন্যায় বিচারের জন্য সকলের দ্বারে দ্বারে ধর্না দিয়ে বেড়াচ্ছেন।পাশাপাশি পটিবার টি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম