• শিরোনাম


    সিরাজগঞ্জে প্রচারণার মাঠে আওয়ামীলীগ, সর্ব সাধারনের হৃদয়ের মনিকোঠায় ধানের শীষ।

    | ২৮ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৩:০৯ পূর্বাহ্ণ

    সিরাজগঞ্জে প্রচারণার মাঠে আওয়ামীলীগ, সর্ব সাধারনের হৃদয়ের মনিকোঠায় ধানের শীষ।

    সিরাজগঞ্জের ছয়টি আসনে প্রচার প্রচারণায় তুঙ্গে আওয়ামী লীগ। পোস্টার লিফলেট ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে সর্বত্র। নির্বাচনের আচরণবিধি লঙ্ঘনের বালাই নাই। তাই আওয়ামী লীগ রয়েছে ফুরফুরে মেজাজে। অপরদিকে হামলা, মামলা, ধরপাকড় সন্ত্রাসী তৎপরতায় প্রচারণায় সর্বত্র পিছিয়ে বিএনপি। আপামর জনসাধারণ বিএনপির সার্বিক অসুবিধার কথা বুঝতে পেরে মন্তব্য করেছেন মন তো স্বাধীন। এর ওপর কোন জোর চলে না। 

    সিরাজগঞ্জের ছয়টি আসনেই প্রচার-প্রচারণার দিক দিয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা এগিয়ে রয়েছে। নির্বাচনের দিন এগিয়ে এলেও এখনও বিএনপি প্রার্থীদের মাঠে দেখা যাচ্ছে না। আওয়ামী লীগের প্রার্থীসহ দলীয় নেতাকর্মীরা ভেদাভেদ ভুলে একসাথে রাত-দিন নির্বাচনী এলাকা চষে বেড়ালেও বিএনপি প্রার্থী ও নেতাকর্মীদের দেখা মিলছে না।



    সিরাজগঞ্জ জেলার উত্তর জনপদের যমুনা নদী পরিবেষ্টিত কাজীপুর উপজেলা। এই উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন, একটি পৌরসভা এবং সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার চারটি ইউনিয়ন নিয়ে সিরাজগঞ্জ-১ সংসদীয় আসন গঠিত। আওয়ামী লীগের একচ্ছত্র আধিপত্য রয়েছে এ আসনে। স্বাধীনতার পর থেকে আজ অবধি আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য কোনো দল নির্বাচনে জয়লাভ করতে পারেনি এ আসন থেকে।
    সিরাজগঞ্জ জেলার আওয়ামী লীগের দুর্গ হিসেবে পরিচিত সিরাজগঞ্জ-১ (কাজিপুর)। এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহম্মদ নাসিম। আগামী নির্বাচনে তিনিই বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হবেন বলে ভোটারদের ধারণা। অপরদিকে বিএনপির প্রার্থী কণ্ঠশিল্পী রুমানা মোর্শেদ কনকচাঁপা। এখন পর্যন্ত তিনি এলাকায় ভোটারদের কাছে যাননি। যে কারণে এলাকার ভোটাররাও তাকে চেনেন না। এর প্রভাব নির্বাচনে পড়বে বলে এলাকার সচেতন মহল মনে করছে। এই আসনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী আল-আমিন সিরাজী হাতপাখা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

    সিরাজগঞ্জ সদর-২ আসনটি সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা ও কামারখন্দ উপজেলা নিয়ে গঠিত। সদরের আটটি ও কামারখন্দ উপজেলার চারটি ইউনিয়ন রয়েছে এ আসনে। সিরাজগঞ্জ-২ (সদর-কামারখন্দ) আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না ইতোমধ্যেই এলাকায় ব্যাপক নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। অপরদিকে বিএনপি প্রার্থী সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী ইকবাল হাসান মাহমুদের স্ত্রী রুমানা মাহমুদ। তিনি এখনও নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেননি। তাছাড়া নির্বাচনী এলাকায় কোনো পোস্টারও চোখে পড়েনি। এই আসনে বাসদের নবকুমার কর্মকার মই এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. মহিবুল্লাহ হাতপাখা প্রতীকে নির্বাচন করছেন।
    সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলার ৯টি ও তাড়াশের আটটি ইউনিয়ন নিয়ে সিরাজগঞ্জ-৩ (রায়গঞ্জ ও তাড়াশ) আসন। এই আসনে আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী হয়েছেন নবীন প্রার্থী ডা. মো. আব্দুল আজিজ এবং বিএনপি থেকে সাবেক সাংসদ আব্দুল মান্নান তালুকদার। নির্বাচনে বড় দুই দলের হাড্ডাহাডি ভোট যুদ্ধ হবে বলে ভোটারদের ধারণা। তবে এ আসনে জামায়াতেরও রয়েছে বড় ভোট ব্যাংক। এছাড়া মো. আইনুল হক ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাত পাখা, মো. আলমগীর হোসেন জাকের পার্টি গোলাপ ফুল, মো. আহসান হাবিব সুজন স্বতন্ত্র সিংহ, মো. নুরুল ইসলাম পিডিপি বাঘ এবং শেখ মো. মোস্তফা নুরুল আমীন সিপিবি কাস্তে প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

    সিরাজগঞ্জ-৪ সংসদীয় আসনটি উল্লাপাড়া উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। ১৯৯৬, ২০০৮ এবং ২০১৪ সালের নির্বাচনে আসনটি আওয়ামী লীগের দখলে থাকে। এই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমামের ছেলে সাংসদ তানভীর ইমাম। বিএনপি মনোনয়ন দিয়েছে জামায়াত নেতা মাওলানা রফিকুল ইসলাম খানকে। এই আসনে জামায়াতের রয়েছে বড় ভোট ব্যাংক। তবে আওয়ামী লীগের ব্যাপক উন্নয়নের প্রভাব নির্বাচনে পড়বে বলে ভোটারদের অভিমত। এছাড়া আব্দুর রহমান ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাত পাখা, মো. জহির রায়হান জাকের পার্টি গোলাপ ফুল, মো. মুকুল হোসেন এনপিবি আম প্রতীকে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন।
    সিরাজগঞ্জ-৫ আসনটি বেলকুচি ও চৌহালী উপজেলার মোট ১৩টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন আব্দুল মমিন মন্ডল এবং বিএনপির প্রার্থী কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলীম। জামায়াতের আলী আলম স্বতন্ত্র প্রার্থী। এছাড়া এই আসনে মো. আব্দুল নূর বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি কোদাল, মোহাম্মদ আলী আলম স্বতন্ত্র আপেল, মো. মুক্তার হোসেন জাতীয় পার্টি লাঙ্গল ও মো. লোকমান হোসেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাত পাখা প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

    সিরাজগঞ্জ-৬ (শাহজাদপুর) আসনটি ১৩ ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। এই আসনে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন দিয়েছে এমপি মো. হাসিবুর রহমান স্বপনকে এবং বিএনপি মনোনয়ন দিয়েছে নবাগত এমএ মুহিতকে।

    সূত্র: দৈনিক ইনকিলাব

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম