• শিরোনাম


    সাধারণ জনগণের মুখের হাসিতে আমার সুখঃ আবু সাঈদ কাউছার

    মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি: | ২৬ মে ২০২১ | ৮:১৫ অপরাহ্ণ

    সাধারণ জনগণের মুখের হাসিতে আমার সুখঃ আবু সাঈদ কাউছার

    ছাএ জীবন থেকেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের আদর্শ বুকে ধারণ করে সোনাপুর কলেজে লেখাপড়ার সময় বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাএলীগের একজন নিবেদিত কর্মী হিসেবে জয় বাংলার স্লোগান অন্তরে ধারণ করেন আবু সাঈদ কাউছার।



    রাজনৈতিতে ততকালীন সময়ে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে সবার মন জয় করেন তিনি।দীর্ঘ রাজনৈতিতে দলীয় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে সু- নেতৃত্ব দলে তার ভূমিকা ছিলো অগ্রগামী রাহবারের মত। ২০০০ সালে সোনাপুর কলেজ শাখা ছাএ সংসদের নির্বাচনে এজিএস প্রার্থী ছিলেন আবু সাঈদ কাউছার।নানা কারণে নির্বাচন না হওয়ায় -দলীয় কর্মকান্ডে ব্যাপক সুনাম ও -বিশ্বস্ততা অর্জনের কারণে দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক সোনাপুর ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসিবে দীর্ঘ দিন দায়িত্ব পালন করে, পরবর্তীতে তিনি দায়িত্ব পালন করেন নোয়াখালী শহর ছাত্রলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক হিসেবে এবং নোয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক দায়িত্বও পালন করেছেন। ২০০৪ সালে দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে উত্তর সোনাপুর থেকে হরতাল চলাকালীন অবস্থায় গ্রেপ্তার করা হয় কাউছারকে।তখন নোয়াখালী সদর থানাতে, জয় বাংলা স্লোগান দেওয়ার অপরাধে থানার ভিতরে নির্মম নির্যাতনের শিকার হন ত্যাগী এই ছাএলীগ কর্মী।

    ২৮শে অক্টোবরের লগি-বৈঠা আন্দোলনে, নোয়াখালীতে জামাত-বিএনপি’র দায়েরকৃত সকল মামলাতে তাকে আসামি করা হয়! ১/১১ সময়ে

    রাজপথে প্রকাশ্যে তার ভূমিকা ছিল রাজপথে মুখরিত। ২০১২ সালে নোয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবেও প্রার্থী ছিলেন কিন্তুু বয়সের কারণে ছাত্রলীগের নেতৃত্ব থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।

    তিনি সাবেক জেলা যুবলীগের আহবায়ক ইকবাল করিম তারেকের কমিটিতে যুবলীগের সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।শত ভাগ ক্লিন ইমেজের রাজপথে নির্যাতিত এক জন মুজিব সৈনিক এ কাউছার।

    আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে ৭ নং ওয়ার্ড হতে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী আবু সাঈদ কাউছার।

    এলাকাবাসী জানান,বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রেখে দলের নিবেদিত কর্মী হিসেবে এলাকার বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ করছেন কাউছার।বৈশ্বিক মহামারি করোনাকালীন ও দূর্যোগে তিনি জনগণের মাঝে সাধ্যমত সহযোগীতা করেছেন।

    আবু সাঈদ কাউছার বলেন,আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে আমি ৭ নং ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী। আমি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের এক জন নির্যাতিত,ক্ষতিগ্রস্ত, নিপিড়িত কর্মী এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে ও মডেল নোয়াখালী জেলার রুপকার জননেতা একরামুল করিম চৌধুরী এম,পি সাহেবের নির্দেশে নোয়াখালী পৌরসভা ৭নং ওয়ার্ডকে একটি মডেল ওয়ার্ড হিসেবে তৈরি করতে চাই।

    এই পৌরসভাতে অবস্থিত বিভিন্ন বাণিজ্যিক এলাকা,রাস্তা,ড্রেনেজ ব্যবস্থা এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থাকলেও বিগত আমলে কাঙ্গিত উন্নয়ন হয়নি। রাস্তাঘাটের বেহাল অবস্থা,পানি পয়নিষ্কাসন, জলাবদ্ধতা,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নানা সমস্যার সমাধান না হওয়া এই ওয়ার্ডবাসী বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

    বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে যদি আমাকে সমর্থন দেয় তাহলে এলাকার সর্বস্তরের জনগণকে সাথে নিয়ে এই অবহেলিত পৌর ওয়ার্ডকে একটি সুন্দর মডেল পৌর ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম