• শিরোনাম


    সাংবাদিকদের উপর অত্যাচার, এ যেন মিডিয়াকে গলা চেপে ধরার চেষ্টা : নুরে আলম জাহাঙ্গীর (সম্পাদকীয়)

    নুরে আলম জাহাঙ্গীর , সম্পাদক: আওয়ার কণ্ঠ | ১৫ মার্চ ২০২০ | ৭:২৮ পূর্বাহ্ণ

    সাংবাদিকদের উপর অত্যাচার, এ যেন মিডিয়াকে গলা চেপে ধরার চেষ্টা : নুরে আলম জাহাঙ্গীর (সম্পাদকীয়)

    সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা, যাকে বলা হয় জাতির দর্পণ বা আয়না। অনেকে আবার একটু বাড়িয়ে বলেন সাংবাদিকরা হচ্ছে জাতির বিবেক। এই সাংবাদিকরাই বর্তমান সময়ে বিরোধী দলের ভূমিকা লালনের মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

    গণতন্ত্রের পূর্বশর্ত হচ্ছে সংসদে কার্যকর একটি বিরোধী দল থাকা। সরকারের অন্যায্য কর্মকাণ্ডের গঠনমূলক সমালোচনা করা। কিন্তু আজ সংসদে কার্যকর বিরোধী দল নেই, যারা আছে তারা সরকারের গৃহপালিত মেরুদণ্ডহীন বিরোধী দল। এহেন পরিস্থিতিতে সরকারের গঠনমূলক সমালোচনা করে বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করছে মিডিয়া। সরকারের পাশে থেকে দেশকে ভালবেসে দেশের স্বার্থে কাজ করে যাচ্ছে বিভিন্ন মিডিয়ার সংবাদ কর্মিরা। যদি সারাদেশে দেশ প্রেমিকের তালিকা করা হয় তাহলে প্রথম স্তরে থাকবে এদেশের সংবাদকর্মিরা।



    পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে সাংবাদিকদের উচ্চ মানের বেতন দেয়া হয়, কিন্তু আমাদের দেশের সংবাদকর্মিরা বলতে গেলে কিছুই পায় না।
    একদম বিনা পয়সায় দেশকে ভালবেসে দেশ ও দশের সুখ দুখ সহ নানান কর্মকাণ্ড তুলে ধরছে প্রতিনিয়ত।

    আজ বিভিন্ন স্থানে অন্যায় ভাবে সংবাদকর্মিদের মারধর, হামলা-মামলা সহ বিভিন্নরকম হয়রানি করা হচ্ছে।

    সাংবাদিকদের উপর অত্যাচার, এ যেন মিডিয়াকে গলা চিপে ধরার চেষ্টা, যা গণতন্ত্রের পরিপন্থী।

    গত মঙ্গলবার (১০মার্চ) সন্ধ্যায় মাদারীপুর এলজিইডি অফিসে
    সাবরীন জেরিন নামে এক নারী সাংবাদিকসহ তিন সাংবাদিকের ওপর হামলা চালিয়েছে এলজিইডি অফিসের কর্মচারী ও অজ্ঞাত কয়েকজন।
    তাদের একজন দৈনিক আমাদের নতুন সময় পত্রিকার মাদারীপুর প্রতিনিধি, একজন ডেইলি মনিং অবজারভার পত্রিকার মাদারীপুর প্রতিনিধি ও আর একজন দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদ পত্রিকার মাদারীপুর প্রতিনিধি। তাদের দুজন চিকিৎসা নিয়েছে এবং নারী সাংবাদিক গুরুত্বর হওয়ায় মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

    এর পরে গত দুই দিন আগে জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দূর্নীতির সত্য বস্তুনিষ্ঠ নিউজ করায় শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার পর মধ্যরাতে বাড়িতে হানা দিয়ে অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলা ট্রিবিউন-এর কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি আরিফুল ইসলামকে প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রিন্টু বিকাশ চাকমার নেতৃত্বে কয়েকজন ম্যাজিস্ট্রেট আনসার সদস্যদের নিয়ে তার বাড়িতে গিয়ে একপর্যায়ে জোড় পূর্বক দরজা ভেঙে তার ঘরে প্রবেশ করে তার স্ত্রী সন্তানের সামনেই তাকে মারধর করে ধরে নিয়ে আসে। পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নিয়ে এসে তার বাসায় আধা বোতল মদ ও দেড়শ গ্রাম গাঁজা রাখার অভিযোগে তাকে ১ বছরের কারাদণ্ড দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

    এভাবে আর কতো চলতে থাকবে, এসকল ন্যাক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতার করে উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হউক। মিথ্যে মামলায় অভিযুক্ত কারাগারে বন্দী আরিফুল ইসলামকে অবিলম্বে মুক্তি দেয়া হউক। নারী সাংবাদিক সাবরীন জেরিনের উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হউক।

    লেখক

    সম্পাদক : আওয়ার কণ্ঠ
    কাতার প্রতিনিধি : এস. টিভি
    সহ-সভাপতি : জাতীয় লেখক পরিষদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা।
    সদস্য : বাংলাদেশ লেখক সাংবাদিক এসোসিয়েশন কাতার।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ০১ জুলাই ২০১৮

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম