• শিরোনাম


    সন্ত্রাসবাদের সহযোগিতার অভিযোগ নাকচ করে কাতারের পক্ষেই রায় দিলো আন্তর্জাতিক আদালত

    | ২৫ জুলাই ২০১৮ | ১১:৫৪ অপরাহ্ণ

    সন্ত্রাসবাদের সহযোগিতার অভিযোগ নাকচ করে কাতারের পক্ষেই রায় দিলো আন্তর্জাতিক আদালত

    সন্ত্রাসবাদে সহযোগিতার অভিযোগ এনে গত বছরের ৫ জুন মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে সৌদি আরবের নেতৃত্বে সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন, মিসর, ইয়েমেন, লিবিয়া ও মালদ্বীপ। এই ধারাবাহিকতায় মৌরিতানিয়া এবং সেনেগালও একই পদক্ষেপ নেয়। সংকট সমাধানে ১৩টি শর্ত দিয়ে আলোচনায় আহ্বান জানায় সৌদি আরব-আমিরাত-মিসর-বাহরাইন। কাতার শর্ত মানতে রাজি না হওয়ায় দোহার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তারা। এতে করে কাতার জল, স্থল ও আকাশপথে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। এ ঘটনার গত মাসে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের(আইসিজে) দ্বারস্থ হয় কাতার। শুনানি শেষে গত সোমবার ওই মামলার রায় দেন আদালত।

    অভিযোগে কাতারের পক্ষ থেকে বলা হয়, সংযুক্ত আরব আমিরাত সে দেশের হাজার হাজার নাগরিককে আন্তর্জাতিক আইন ভঙ্গ করে বহিষ্কার করেছে। এদের অনেকের পরিবারের সদস্য ও সম্পদ আমিরাতে থেকে গেছে। আকাশ ও সমুদ্রপথ বন্ধ করে আমিরাত তাদের অধিকার লঙ্ঘন করেছে। অভিযোগে বলা হয়, এই অবরোধের কারণে সব ধরনের আন্তর্জাতিক বৈষম্য নিরসন কনভেনশন (সিইআরডি) লঙ্ঘন করা হয়েছে। কাতার ও আমিরাতের স্বাক্ষর করা ওই কনভেনশনে জাতীয়তার ভিত্তিতে বৈষম্য করাকেও অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে অবরোধ আরোপ করা সৌদি আরব, বাহরাইন ও মিসর এই কনভেনশনে স্বাক্ষর করেনি।



    সোমবার আইসিজে’র দেওয়া রায়ে আমিরাতের নেওয়া পদক্ষেপের কারণে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া কাতারি পরিবারের সদস্যদের পুনর্মিলনের পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। রায়ে বলা হয়, আমিরাতে শিক্ষা নিতে থাকা শিক্ষার্থীদের মেয়াদ শেষ করার সুযোগ দিতে হবে, অথবা শিক্ষার্থীদের অন্য কোথাও পড়ার সুযোগ দিতে তাদের রেকর্ড সংরক্ষণের নির্দেশ দেওয়া হয়। এছাড়া কাতারি নাগরিকদের আমিরাতের অভ্যন্তরে সুবিচার পাওয়ার সুযোগ দেওয়ারও নির্দেশ দেওয়া হয়। রায়ে আইসিজে আদালতের বিচারক বলেন, ‘আমিরাতে বসবাসরত অনেক কাতারি নাগরিকের ফেরার কোনো সম্ভাবনা ছাড়াই জোর করে তাদের বসতবাড়ি ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে।

    কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লুলওয়া আল-খাতের এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের অধিকার রক্ষার দীর্ঘপথের এটা শুধু প্রথম পদক্ষেপ। তবে এর মাধ্যমে যেসব দেশ কাতারের অধিকার হরণকারী পদক্ষেপ নিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে জোরালো সতর্কতা দেওয়া হয়েছে।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম