• শিরোনাম


    শুরু হলো ক্ষমা লাভের দশক [] মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান

    লেখক: মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি | ০৫ মে ২০২০ | ৩:৫৪ পূর্বাহ্ণ

    শুরু হলো ক্ষমা লাভের দশক [] মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান

    চলছে মাহে রমজানের দ্বিতীয় দশক মাগফিরাত অর্থাৎ ক্ষমা লাভের দশক।
    এই দশকে আল্লাহতায়ালা তার অসংখ্য পাপী বান্দাহকে ক্ষমা করে থাকেন।
    আল্লাহতায়ালার পক্ষ থেকে ক্ষমা পাওয়ার অন্যতম শর্ত হলো আল্লাহতায়ালার কাছে ক্ষমা চাওয়া ই যথার্থ হবেনা যদিনা বান্দাহ তাওবা করে।
    রমজান মাসে গোনাহ মাফ করাতে না পারলে বান্দাহ দুনিয়া আখিরাতে চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এজন্য প্রত্যেক মুমিন বান্দাহকে অবশ্যই আল্লাহর দরবারে তাওবা করে গুনাহ মাফ করিয়ে নিতে হবে।

    আল্লাহতায়ালা বলেন,যারা তাওবা করবে এবং নেক আমল করবে আল্লাহ তাদের পাপ গুলোকে নেকি দ্বারা পরিবর্তন করে দেবেন।(সুরা ফোরকান, আয়াত-৭০)।



    মানুষ যেহেতু সম্পূর্ণরুপে নিষ্পাপ নয় তাই সকলের জন্য ই তাওবা অতি জরুরি। আর রমজান মাসে তো এর জরুরি আরো বেশি।

    রাসুল (সা:)নিশপাপ হওয়া সত্বে ও তিনি বলেছেন,আল্লাহর কসম আমি আল্লাহর কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করি।এবং প্রতিদিন ৭০বারের ও বেশি তাওবা করি।
    আল্লাহতায়ালা বলেন, যারা তাওবা করেনা তারা জালেম।(সুরা হুজরাত,আয়াত-৪১)।

    রমজান মাস যেহেতু তাওবা কবুলের মাস তাই অধিক পরিমানে তাওবা করে আল্লাহর নৈকট্য লাভে সচেষ্ট হতে হবে।
    পাপমুক্ত জীবন গঠনে মাহে রমজানে তাওবার গুরুত্ব অপরিসীম।
    রমজানের প্রতি মুহুর্তে অগণিত বান্দাহকে ক্ষমা করে দেওয়া হয়।তাই রমজান মাসে তাওবা ইস্তেগফারের প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে।
    বান্দাহ যতো ই গুনাহ করুকনা কেন আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাইলে তিনি ক্ষমা করে দেন।
    রাসুল(সা:)বলেন,বান্দাহ যখন তাওবা করে আল্লাহতায়ালা তার উপর খুশি হন।
    অতএব আসুন,মাহে রমজানে আমরা অধিকতর তাওবা ইস্তেগফার করে নিজেদের গুনাহ মাফ করিয়ে আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভে মনোনিবেশ করি।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    নিয়ত অনুসারে নিয়তি ও পরিনতি

    ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম