• শিরোনাম


    শুধু খাদ্য সহায়তাই নয়, প্রবাসীদের মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্য অর্থ সহায়তা প্রয়জন : তাজউদ্দিন তারেক

    তাজউদ্দিন তারেক - সৌদি আরব প্রতিনিধি | ২৬ এপ্রিল ২০২০ | ৮:০৩ পূর্বাহ্ণ

    শুধু খাদ্য সহায়তাই নয়, প্রবাসীদের মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্য অর্থ সহায়তা প্রয়জন : তাজউদ্দিন তারেক

    সারা বিশ্ব চলমান করোনা ভাইরাসে প্রবাসী বাংলাদেশীর মৃত্যুর সারি যেমন দীর্ঘ হচ্ছে! তেমনি এই মহামারী থাবায় লন্ডভন্ড প্রবাসীদের সব স্বপ্ন চাকা। মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে প্রতিদিন থেমে যাচ্ছে নতুন নতুন জীবনের প্রদীপ। স্বপ্ন হারাচ্ছে মধ্যবিত্ত প্রবাসীদের পরিবারের অন্যন্য সদস্যদেরও।

    বৈশ্বিক এই দূর্যোগে দূতাবাসের খাদ্য সহায়তায় আড়ালে ডাকা পড়লো প্রবাসীদের মূল সমস্যা।
    প্রবাসের অবস্থানরত সংবাদ কর্মী, রানৈতিক ও সামাজিক সংগঠনসহ বাংলাদেশ কমিনিটির নেতারা এই বিষয়টি প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রনালয় বা সরকারে দৃষ্টি আকর্ষণ করা জরুরী। প্রবাসীদের খাদ্য সহায়তায় নয় প্রয়জন দেশে প্রবাসী পরিবার গুলোর জন্য সরকারের বিশেষ প্রোণদনা। পাশাপাশি সরকারের দেওয়া খাদ্য সামগ্রী দ্রুত প্রবাসীদের হাতে পৌছে দেওয়া। সেটা সামান্য হোক, আর অসামান্য হোক। যেহেতু বাংলাদেশ সরকার প্রবাসীদের জন্য খাদ্য সরবরাহের ঘোষনা(অনুদান) দিয়েছে সেহেতু দূতাবাসের কাছে এটা আমানত এবং প্রবাসীদের হাতে তাদের আমানত তুলে দেওয়াটাই হচ্ছে প্রত্যেকটা দূতাবাসের কর্তব্য। হোক সেটা সামান্য অথবা অতিক্ষুদ্র কিছু।

    বর্তমান অবস্থায় প্রবাসীদের প্রোণদনা হিসেবে খাদ্য না। প্রয়জন ছিলো বাংলাদেশে প্রবাসী পরিবার গুলোকে অর্থ সহায়তা। এভাবে খাদ্য সহায়তায় না, যা পরিচালনা ও বনটনের সুস্ঠ পরিকল্পনা নেই কর্তৃপক্ষের কাছে। প্রবাসীরা খাদ্য সংগ্রহ করতে কারফিউ জন্য চরম ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেন বলেই অভিযোগ উঠছে। এবং বিশাল সংখ্যক প্রবাসী জন গোষ্ঠীর জন্য খাদ্য সহায়তায় জন্য বরাদ্দ করা অর্থ খুবই খুবই কম। যা বণটনে হিমসিম খেতে হবে দূতাবাস গুলোকে।



    *যে প্রবাসীদের টাকায় এক একটি পরিবারের সবার মুখে হাসি ফোটাতো এবং প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স দেশের অর্থনৈতিক চাকা চলতো আজ সেই প্রবাসী অসংখ্য ভাই অনাহারে গৃহবন্দী অবস্থায় জীবন যাপন করে যাচ্ছে। আজ সারাবিশ্বে আতংকিত করোনা ভাইরাসের কারণে অসংখ্য প্রবাসী ভাইদের দীর্ঘ ২ মাসের বেশি সময় ধরে চাকুরী নাই। প্রায় সবাই লকডাউনের কারণে গৃহবন্দী। দীর্ঘ সময় ধরে বেকারত্ব ও গৃহবন্দী হওয়ার কারনে অসংখ্য প্রবাসী ভাইদের খাবার খাওয়ার মতো অর্থ হাতে নাই। অসংখ্য প্রবাসীরা আজ এমন পরিস্থিতি মধ্য আছে কাউকে বলার মতো ভাষা হারিয়ে পেলেছ।*

    দেশে প্রবাসীদের মধ্যবিত্ত পরিবার গুলোর বর্তমান পরিস্থিতে কতটা সমস্যার সম্মুখীন তা শুধু পরিবারের সদস্যরাই অনুমান আর অনুভব করতে পারে। দেশে যে ত্রান বিতরণ চলতেছে তাতেও প্রবাসী পরিবার গুলো বঞ্চিত। আর প্রবাসে খাদ্য সহায়তাতে বণটন ও পরিকল্পনার অভাবে দূতাবাসের মাধ্যমে খাদ্য সরবরাহে প্রবাসীদের মনে অসন্তোষ সৃষ্টি করেছে। কাতার, কুয়েত, মালয়েশিয়া এবং সৌদি আরবে খাবার না পাওয়ার অভিযোগ দৃশ্যমান হচ্ছে। বার বার বিতরন পদ্ধতি পরিবর্তন করা হচ্ছে। এই পর্যন্ত তিনটা পদ্ধতি গ্রহন করেছে সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাস ও কনস্যুলেট কিন্তু কোনটাই সফলতার মুখ দেখছে না। মুলত কারফিউ বা লক ডাউন চলার জন্যই এটা বিতরনের সমস্যা হচ্ছে।

    দীর্ঘদিন কারফিউ থাকার কারণে সৌদি আরবে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশীরা এখানে মানবেতর জীবন যাপন করছে। চাকরি ও কাজ না থাকার কারণে পড়েছেন অর্থ সঙ্কটে। এদিকে চলছে রমজান মাস সামনে আসতেছে ঈদ নিজের বেকারত্ব ও পরিবারে নিয়ে দুর্চিন্তার বাজ পড়েছে ২২লক্ষ প্রবাসীর কপালে।
    গত প্রায় ২মাস যাবত লক ডাউনে আটকা পড়া প্রবাসীরা ইতিমধ্যে সোস্যাল মিডিয়া না খেয়ে থাকা প্রবাসীদের একাদিক ভিড়িও ভাইরাল হয়েছে। এবং দেশে পরিবার নিয়ে দুর্চিন্তা করে স্ট্রোক করে মারা গিয়েছেন প্রায় ৬০ জনের মত প্রবাসী। এমতাবস্থায় প্রবাসীদের জন্য খাদ্য না। প্রয়জন দেশে প্রবাসীদের মধ্যবিত্ত পরিবার গুলোকে স্বল্প সুদে অথবা সুদু বিহীন ব্যাংক ঋন ব্যবস্থা করা।

    এখানে আমরা কয়েকজন প্রবাসীর সাথে কথা বলে তাদের মতামতে বলেন যেখানে আমরা প্রবাসীরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভের সিংহভাগেরই যোগানদাতা। সেখানে আমাদের দূরদিনে সরকার কিছুই করলো না, তারা আরও বলেন এইরকম পরিস্থিতি চলতে থাকলে আমাদের দেশে পরিবারবর্গ না খেয়ে অনাহারে অর্ধহারে মানবেতর জীবনযাপন করবেন এমতাবস্থায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে দেশে প্রবাসী পরিবের জন্য বিশেষ প্রণোদনা ঘোষণার অনুরোধ জানান তারা ।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম