• শিরোনাম


    লুদ এক রহস্যময় এয়ারপোর্টের নাম: মুফতি বিনইয়ামিন আশ-আরী

    | ০৪ এপ্রিল ২০১৯ | ৫:২০ পূর্বাহ্ণ

    লুদ এক রহস্যময় এয়ারপোর্টের নাম: মুফতি বিনইয়ামিন আশ-আরী

    আপনাকে নিচে যে ছবিটি দেখালাম [ এক চোখ সাদৃশ্য ] এটা এমন একটি জায়গার বা এয়ারপোর্টের নাম ছবি যেটির সম্পর্কে আল্লাহর পয়গাম্বর আ: ভবিষৎবাণী করে গিয়েছেন। আর এই শহরটির ভেতরে রহস্যের ভেড়াজাল রয়েছে চারদিকে বিছানো কেননা এটি এমন একটি শহর যেখানে বর্তমান ইসরাইল রাষ্ট্র ইহুদিদের সৈন্য বাহিনীর মুল অস্র ও পারমাণবিক অস্র রাখা হয়। । এখন আপনি বলতে পারেন কেন? তাদেরকি এই জায়গাটি ছাড়া আর কোন শহর বা জায়গা নেই? যেখানে তাদের অস্র শস্র রাখবে? জ্বি আছে। কিন্তু এই শহরটি সাধারন কোন শহর নয়। এটি ঈসরাইলের সরকারের নিকট বিশেষ একটি শহর। কেননা তারা মনে করে এই শহরটি নিরাপদ থাকলে সারা ইসরাইল নিরাপদ। কি আজব ব্যাপার না?

    হ্যাঁ আপনি বিশ্বাস করুন আর নাইবা করুন কিচ্ছু আসে যায়না। কেননা তারা তাদের কাজ গুটিয়ে এনে ফেলেছে।আপনি আমি যদিও বোকাররাজ্যে বসবাস করছি কিন্তু তারা তাদের সব কাজ ঘুছিয়ে নিচ্ছে। এখন মাত্র তাদের ঘোষণার পালা।



    যাই হোক আসল কথা বলি। আসুন আরো গভিরে যাই।
    এটি এমন একটি জায়গা যে জায়টির নাম উল্যেখ করে আল্লাহর রাসুল সা: বলেন ঈসা আ: লুদ নামক এই জায়গাতে দাজ্জালকে হত্যা করবে। কি অবাক হলেন(?) তাহলে দেখুন হাদিস হযরত মুজাম্মা’ ইবনে জারিয়া আনসারি (রাঃ) বর্ণনা করেন, আমি আল্লাহর রাসুল সাল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে বলতে শুনেছি,

    “ঈসা ইবনে মারিয়াম দাজ্জালকে ‘লুদ’ এর ফটকে হত্যা করবে।” (মুসনাদে আহমাদ, খণ্ড ৩, পৃষ্ঠা ৪২০; সুনানে তিরমিজি, হাদিস নং ২২৪৪)

    জ্বি অবাক হবারই কথা এই সেই জায়গা যেখানে দাজ্জালকে হযরত ঈসা আ: বর্শা মেরে হত্যা করবে। আর এখানেই রয়েছে একটি ফটক। আল্লাহর রাসুল সা: বলেন সেই ফটকের কাছে তাকে হত্যা করা হবে।

    ‘লুদ’ বর্তমানে ইসরাইলের অন্তর্ভুক্ত। এটি তেলআবিব থেকে দক্ষিন-পূর্বে ১৮ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিত ছোট্ট একটি শহর। ১৯৯৯ সালের জরিপ অনুযায়ী এই শহরের জনসংখ্যা ৬১ হাজার ১ শত। ইসরাইল এই শহরে সর্বাধুনিক নিরাপত্তা সমৃদ্ধ বিমানবন্দর স্থাপন করেছে। হতে পারে, দাজ্জাল এখান থেকে বিমানযোগে পালানোর চেষ্টা করবে এবং এই বিমানবন্দরেই তাকে হত্যা করা হবে। মহান আল্লাহ তার শত্রু ও ইহুদীদের খোদা দাজ্জালকে হযরত ঈসা ইবনে মারিয়াম(আঃ) এর হাতে হত্যা করাবেন, যাতে সমগ্র বিশ্ব বুঝতে পারে যে, মানবতার বিষফোঁড়াগুলোকে নির্মূল করতে হলে সেগুলোকে কেটে দেহ থেকে আলাদা করা জরুরী আর এই কাজটি জিহাদেরই মাধ্যমে হয়ে থাকে।

    হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,

    “মুসলমানরা ইহুদীদের সাথে যুদ্ধ না করা পর্যন্ত কিয়ামত সংঘটিত হবে না। মুসলমানরা ইহুদীদের হত্যা করবে। এমনকি ইহুদীরা পাথর ও গাছের আড়ালে লুকাবে। তখন পাথর ও গাছ বলবে, হে আল্লাহর বান্দা, এই যে আমার পেছনে এক ইহুদি লুকিয়ে আছে; তুমি এসে ওকে হত্যা করো। তবে ‘গারকাদ’ বলবে না। কেননা, সেটি ইহুদীদের গাছ”। (সুনানে মুসলিম, খণ্ড ৪, পৃষ্ঠা ২২৩৯)

    সেই বিমানবন্দর যেখানে দাজ্জাল দৌড়তে দৌড়তে যাবে পলায়ন করতে। আর সেই গারকাদ গাছ যেগুলি কথা বলবে। সে বিষয়গুলি নিয়ে আরো লেখবো।

    পারলে আমার লেখাগুলি দাজ্জালের ফেতনা থেকে বাচানোর নিয়তে কপি বা শেয়ার করে অন্যভাইদের জানিয়ে দিন।

    তথ্য ‘ ও প্রমান লুদের এয়ারপোর্টের লিংক
    https://en.m.wikipedia.org/wiki/File:Ben-gurion-airport-terminal–september-2012_(cropped).jpg

    সংক্ষিপ্ত
    চোখ রাখবেন পরবর্তি পোষ্টে।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম