• শিরোনাম


    রাজনৈতিক দূর্নীতি বন্ধ হলেই আমলাতান্ত্রিক দূর্নীতি বন্ধ হবে -মাওলানা আলতাফ হোসাইন

    রিপোর্ট: মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১১:০৭ অপরাহ্ণ

    রাজনৈতিক দূর্নীতি বন্ধ হলেই আমলাতান্ত্রিক দূর্নীতি বন্ধ হবে -মাওলানা আলতাফ হোসাইন

    রাজনৈতিক দূর্নীতি বন্ধ হলেই আমলাতান্ত্রিক দূর্নীতি বন্ধ হবে -মাওলানা আলতাফ হোসাইন

    মাদক, অবৈধ ক্যাসিনো-জুয়ার আসরের নেপথ্য মোড়লসহ শীর্ষ দূর্নীতিবাজ, চাঁদাবাজ ও টেন্ডারবাজদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের দাবিতে আজ সকাল দশটায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছে ইসলামী ছাত্র খেলাফত বাংলাদেশ।
    মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইসলামী ঐক্যজোটের সহকারী মহাসচিব মাওলানা আলতাফ হোসাইন বলেছেন, রাজনৈতিক দূর্নীতি বন্ধ হলেই আমলাতান্ত্রিক দূর্নীতি বন্ধ হবে। আর আমলাতান্ত্রিক দূর্নীতি বন্ধ হলে অন্যান্য খাতেও দূর্নীতি দমন করা সম্ভব হবে।



    অবৈধ ক্যাসিনো-জুয়ার আসরে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর চলমান অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন, চলমান অভিযানে বেশ কয়েকজন শীর্ষ জুয়ারী ও দূর্নীতিবাজ গ্রেফতার হয়েছে। অনেকের ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয়েছে। আমরা মনে করি, এই অভিযান দেশ ও জাতির জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর একটি যুগোপযোগী পদক্ষেপ। এই অভিযান অব্যাহত থাকলে দূর্নীতিবাজদের দৌরাত্ব কমবে। জনগণ এর সুফল ভোগ করতে পারবে।

    তিনি বলেন, মসজিদের নগরী ঢাকা আজ অবৈধ ক্যাসিনোর নগরে পরিণত হয়েছে। কতিপয় ক্ষমতালোভী দলবাজ খেলাধূলার ক্লাবগুলোতে জুয়ার আসর বসিয়ে মানুষের অর্থ লুটে সম্পদের পাহাড় গড়ছে। শুধু এইসব অর্থলোভীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলেই চলবে না, যারা তাদের প্রশ্রয়দাতা তাদেরকেও গ্রেফতার করতে হবে।

    সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ খোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবুল হাসিম শাহীর পরিচালনায় মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন ইসলামী ঐক্যজোটের ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা আনছারুল হক ইমরান, ইসলামী ছাত্র খেলাফতের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মির্জা ইয়াসিন আরাফাত, দপ্তর সম্পাদক মোঃ ইলিয়াছ আহমেদ, আল আমিন, সানাউল্লাহ খান, সৈয়দ মোস্তাফিজুর রহমান, মোঃ আরিফ খানসহ আরো অনেকেই।

    মাওলানা আলতাফ হোসাইন আরো বলেন,সরকারের ভেতর ঘামটি মেরে থাকা কিছু আমলা ক্যাসিনোর বৈধতার সুপারিশ করছে। আমরা পরিষ্কার বলতে চাই, এদেশে ক্যাসিনো বৈধতার কোন লাইসেন্স দেয়া যাবে না। যারা ক্যাসিনোর বৈধতার দাবি তুলছে তাদেরকে অবিলম্বে পদচ্যুত করতে হবে। জনগণ ক্যাসিনো-জুয়ার আসর, মাদক ও দূর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ দেখতে চায়। কাজেই কোন আমলা নয়, জনগণের অধিকারকে প্রাধান্য দিয়ে রাষ্ট্র পরিচালনা করা সরকারের নৈতিক দায়িত্ব। আশা করি, সরকার সে পথেই হাঁটবে।

    কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ খোরশেদ আলম বলেন, চলমান অভিযানে কিছু চুনপুটি ধরা পড়েছে। মিডিয়ায় অনেক রাঘব-বোয়ালের নাম এলেও তারা এখনো ধরা ছোয়ার বাইরে রয়েছে। এদের না ধরলে অভিযান প্রশ্নবিদ্ধ থেকে যাবে। আমাদের জোর দাবি-অবিলম্বে অবৈধ ক্যাসিনো-জুয়ার আসরের মদদদাতা ও নেপথ্যে কারিগরদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম