• শিরোনাম


    যে কণ্ঠ সত্য কথা বলে, সৌদি সরকার তা রুদ্ধ করে দেয়

    | ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ২:২৪ অপরাহ্ণ

    যে কণ্ঠ সত্য কথা বলে, সৌদি সরকার তা রুদ্ধ করে দেয়

    সৌদি আরবের বিশিষ্ট আলেম শায়েখ সালমান আল-আওদাহর ছেলে এবং যুক্তরাষ্ট্রের জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক আব্দুল্লাহ আল-আওদাহ সম্প্রতি মার্কিন গণমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমসে ‘মৃত্যুদণ্ডের সম্মুখে আমার বাবা; সৌদিতে এটাই ইনসাফ’ শিরোনামে একটি প্রবন্ধ লিখেছেন।

    বুধবার প্রভাবশালী ঐ মার্কিন গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রবন্ধে তিনি বলেছেন: যে কণ্ঠ ইনসাফের ভিত্তিতে হক ও সত্য কথা বলে, সৌদি সরকার সে কণ্ঠকে রুদ্ধ করে দেয়। আমার বাবা সালমান আল-আওদাহ (৬১) সৌদি আরবের একজন সক্রিয় ধর্মপ্রচারক ও চিন্তাবিদ। তিনি সব সময় চরমপন্থা ও জুলুমের বিপক্ষে কথা বলতেন এবং সমাজ সংশোধনের আপ্রাণ চেষ্টা চালাতেন। তিনিসহ তার মতো বহু নিষ্ঠাবান আলেমে দ্বীনকে সৌদি সরকার গ্রেফতার করেছে এবং অনেকের বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে গ্রেফতার হওয়ার পরে আমার বাবা খুবই সংকীর্ণ জীবনযাপন করছেন। জেদ্দার একটি জীর্ণ কারাকক্ষে তাঁকে একাকী বন্দি রাখা হয়েছে। প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা থেকে তাকে বঞ্চিত রাখা হচ্ছে। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে যখন আমার বাবাকে গ্রেফতারের এক বছর পূর্ণ হয় – তখনও তাঁর সঙ্গে আইনজীবীদের সাক্ষাতের সুযোগ দেয়া হয়নি।আমার বাবাকে আটক করার অনেক কারণের অন্যতম হলো, সরকার পক্ষ যেভাবে রাষ্ট্রীয় আইন অমান্য করে – তিনি সব সময় এর সমালোচনা করতেন এবং জনগণকে সত্যের পক্ষ অবলম্বনে উদ্বুদ্ধ করতেন। সৌদি-কাতার সংকটে নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণ ও সৌদি সরকারের সঙ্গে তার সুসম্পর্ক না থাকাটাই তার মূল অপরাধ।



    উল্লেখ্য, সালমান আল-আওদাহর বিপক্ষে গত বছরই সৌদি সরকার আদালতের কাছে মৃত্যুদণ্ডের আবেদন করেছিলো। তিনি ছাড়াও সৌদির অনেক লেখক, সাংবাদিক, আলেম ও ধর্মীয় স্কলাররা ক্রাউন প্রিন্স বিন সালমানের অপরাজনীতির শিকার হয়ে কারাভোগ করছেন। দেশটির আরেক বিশিষ্ট আলেম আব্দুর রহমান আল-আরেফীর খুতবা ও সব রকমের দাওয়াতি কার্যক্রম নিষিদ্ধ করেছে সৌদি কর্তৃপক্ষ।

    সূত্র: আনাদোলু নিউজ এজেন্সি।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম