• শিরোনাম


    ভোলায় স্বামী কর্তৃক গরম দা ছ্যাকা দিয়ে নির্যাতনের বিষয়ে মানবাধিকারের উদ্ধেগ !

    মানবাধিকার ডেস্কঃ | ১৩ অক্টোবর ২০১৮ | ৫:৩৭ অপরাহ্ণ

    ভোলায় স্বামী কর্তৃক গরম দা ছ্যাকা দিয়ে নির্যাতনের বিষয়ে মানবাধিকারের উদ্ধেগ !

    স্ত্রীর উপর গরম দা ছ্যাকা দিয়ে অমানবিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। ( ৯ অক্টোবর ) মঙ্গলাবার বিকাল ৩ টা ৩০ মিনিটে স্বামী মোঃ জামাল হোসেন গরম দা দিয়ে তার স্ত্রীকে মোছাঃ রিক্তা বেগমকে নির্যাতন করে। গরম দা ছ্যাকা দিয়ে রিক্তা বেগম (২২) এর হাতে মুখে শরিরের বিভিন্ন স্থানে ছ্যাকা ও আঘাত করে ক্ষত-বিক্ষত করে।

    উক্ত অমানবিক নির্যাতনের বিষয়টি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে এর তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জনিয়ে Society For Establish And Implement Of Human Rights(SEIHR) মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা ও বাস্তবায়ন সংস্থার রংপুর বিভাগীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি মুহাম্মদ সাজ্জাদুর রহমান বলেন, নির্যাতনকারীকে কঠিন শাস্তিবিধান নিশ্চিত করতে দ্রুত প্রসাশনের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থার প্রতি হস্থক্ষেপ কমনা করছি। নারী নির্যাতন সমাজের এক ধরনের ভাইরাস ও চরম মানবাধিকার লঙ্ঘন। তাই সমাজকে ভাইরাস মুক্ত করতে নির্যাতন কারীদের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ গড়ে তুলতে হবে জনসাধারণকে। মানবাধিকার আপনাদের পক্ষে আছে ও থাকবে।



    বিষয়টি নীলকমল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন হাওলাদার ঘটনাস্থলে গিয়ে সততা পেয়ে দুলারহাট থানা পুলিশ কে খবর দিলে থানা পুলিশ রিক্তা বেগম কে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়ে দেন।

    জানা যায়, ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক চরফ্যাশন উপজেলার আমিনাবাদ ইউনিয়নের হোসেনের মেয়ে রিক্তা বেগমের সাথে দুলারহাট থানার নীলকমল ইউনিয়নের আঃ হানিফ এর ছেলে জামাল বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বিবাহের পর থেকে রিক্তা বেগমকে মারধর ও মৌখিকভাবে নির্যাতন করে আসছে বলে রিক্তা বেগম জানান। পরিশেষে রিক্তা কে গত মঙ্গল বার (৯ অক্টোবর ) বিকেল সারে তিন টার দিকে স্বামী জামাল দা ছ্যাকা দিয়ে রিক্তার শরিরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত-বিক্ষত করেন।

    পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় শুক্রবার ১২.৩০ মিনিটের সময় নীলকমল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন হাওলাদার দুলারহাট থানা পুলিশ কে খবর দিলে দুলারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান পাটওয়ারী নেতৃত্বে ওসি তদন্ত নওশের আলী, এস আই সাদ্দাম, এস আই সিদ্দিক, এ এস আই শহিদসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে গত ১২ অক্টোবর মোঃ জামাল হোসেনকে আটক করেন এবং মোছাঃ রিক্তা বেগমকে উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসার জন্য চরফ্যাশন সদর হাসপাতাল পাঠিয়ে দেন।

    এ ব্যাপারে দুলারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজান মানবাধিকারকে জানান, মোঃ জামাল হোসেনকে আটক করে জেলা আদালতের মধ্যেমে জেল হাজেতে প্ররণ করা হয়েছে এবং রিক্তা বেগম বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দ্বায়ের করেন।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম