• শিরোনাম


    ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হাসপাতালের ছাদ থেকে নবজাতককে ছুঁড়ে ফেলে মায়ের আত্মহত্যা।

    | ১৯ অক্টোবর ২০১৮ | ৬:০১ অপরাহ্ণ

    ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হাসপাতালের  ছাদ থেকে নবজাতককে ছুঁড়ে ফেলে মায়ের আত্মহত্যা।

    ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছাদ থেকে চারদিন বয়সী নিজের নবজাতক পুত্র সন্তানকে ছুঁড়ে ফেলে সীমা আক্তার (২৫) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন।

    শুক্রবার (১৯ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে জেলা শহরের পুরাতন জেলরোডস্থ দি ল্যাব এইড ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও স্পেশালাইজড হাসপাতালে এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।



    FB_IMG_1539965488057

    নিহত সীমা সদর উপজেলার বাসুদেব ইউনিয়নের ঘাটিয়ারা ফুলচং গ্রামের মনির মিয়ার স্ত্রী। মনির লেবানন প্রবাসী। গত এক বছর আগে পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে হয়।

    পুলিশ জানায়, গত ১৬ অক্টোবর বিকালে প্রসব বেদনা নিয়ে সীমা জেলরোডস্থ লাইফ কেয়ার হাসপাতালের ৩০২ নম্বর বেডে ভর্তি হন। এদিন সন্ধ্যায় সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে ছেলে সন্তানের জন্ম দেন সীমা।

    শুক্রবার সকালে হাসপাতাল থেকে তাদের ছাড় পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সকাল সাড়ে ৮টার দিকে রহস্যজনক কারণে লাইফ কেয়ার হাসপাতালের পার্শ্ববর্তী ল্যাব এইড ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও স্পেশালাইজড হাসপাতালের ছাদ থেকে সীমা প্রথমে তার নবজাতককে ছুঁড়ে ফেলে দেনে। এরপর তিনি নিজেও নিচে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেন।

    হাসপাতালে উপস্থিত সীমার মা রেহানা বেগম কি কারণে তার মেয়ে নবজাতককে নিয়ে লাফিয়ে পড়েছেন সেটি স্পষ্ট করে বলতে পারেননি।

    সীমার পাশের বেডের (৩০৩) এক রোগীর স্বজন জানান, সারারাত বাচ্চাটি দুধের জন্য কান্নাকাটি করছিল। সীমা ফোনে কারো সঙ্গে ঝগড়া করছিল। ফোনে সে বলছিল ‘বাচ্চাকে দুধ দিতে হবে না, সকালে দেখবা আমি কি করি।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম