• শিরোনাম


    বেকারত্বরোধে কওমী মাদরাসা ও ওলামায়ে কেরামের অবদান -হাবীব আনওয়ার

    | ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ১২:৪৬ অপরাহ্ণ

    বেকারত্বরোধে কওমী মাদরাসা ও ওলামায়ে কেরামের অবদান -হাবীব আনওয়ার

    ফজর নামাজ পড়েই ছুটলাম চট্টগ্রাম ১নং নাবিক কলোনির দিকে। ছোট ভাই নেভীতে চাকুরির ইন্টারভিউ দিবে। পরীক্ষা ৯ টা থেকে। আমরা পৌঁছলাম তখন ঘড়ির কাটা ৭:৩০ এ। এসে দিকে শতশত চাকুরী প্রত্যাশী ভাই লাইনে দাঁড়িয়ে আছে। আমরাও দাঁড়ালাম। মূহুর্তেই আমাদের পিছনে চাকুরী প্রত্যাশীদের লাইন দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হতে লাগলো। অল্পক্ষণেই কয়েক হাজার চাকুরী প্রত্যাশীরা বেকারত্বের অভিশাপ থেকে বাঁচতে লাইনে দাঁড়িয়েছে। মাত্র ৫০ টি পদের বিপরীতে কয়েক হাজার আবেদন জমা পড়েছে! চাকুরী নামক সোনার হরিণ খুঁজতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে তাঁরা এসেছে। এসেছে বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্ত হতে।

    বেকারত্ব! একটি অভিশপ্ত নাম। হাজারো মানুষের স্বপ্ন ভঙ্গের নাম বেকারত্ব। দক্ষিণ এশিয়ার আটটি দেশের মধ্যে বেকারের সর্বোচ্চ হারের দিক থেকে বাংলাদেশ তৃতীয় অবস্থানে। তবে বাংলাদেশের চেয়ে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ আফগানিস্তান ও দ্বীপদেশ মালদ্বীপে বেকার মানুষের হার বেশি।



    আইএলওর হিসাবে ২০১০ সালে বাংলাদেশে ২০ লাখ লোক বেকার ছিল। ২০১২ সালে ছিল ২৪ লাখ। ২০১৬ সালে তা ২৮ লাখে উঠেছে। ২০১৯ সালে এ সংখ্যা ৩০ লাখে ওঠার আশঙ্কা করছে আইএলও। (প্রথম আলো অনলাইন সংস্করণ ২৪ জানুয়ারি ২০১৮)

    বেকারত্ব সমস্যা সমাধানে সবাই সচেষ্ট হলেও আন্তরিকতার বড় অভাব। লাগামহীন দূর্নীতি, চাঁদাবাজি, চাকরির ক্ষেত্রে ঘুষের ছড়াছড়ি, নানান অনিয়মের বেড়াজালে আবদ্ধ হয়ে আছে দেশের কর্মসংস্থানগুলো। যে দেশে জ্ঞানীর কদর নেই সেদেশে বেকারত্ব থাকাটা আশ্চর্যের কিছু নয়! এসএসসি ফেল ছাত্র যখন এসি রুমে বসে দূর্নীতির আখড়া খুলে বসে, ঠিক তখন বিসিএস ক্যাডার একটা চাকরির জন্য মানুষের দ্বারে ঘুরতে ঘুরতে জুতোর তলা ক্ষয় করছে। একটা চাকরি জন্য মারামারি, রাস্তা অবরোধ, বিভিন্ন কার্যালয়ে স্মারকলিপীসহ ইত্যাদি প্রতিবাদ মূলক কর্মসূচি চোখে পড়ে। সর্বশেষ কোঠা সংস্কার আন্দোলন আমরা সবাই প্রত্যক্ষ করেছি।

    কিন্তু এর পুরো বিপরীত চিত্র দেশের কওমী মাদরাসাগুলোতে। বেকারত্বের কোন ছাপ বা কোন অভিযোগ অনুযোগ নেই কওমী ওলামাদের। চাকরির জন্য আন্দোলন -সংগ্রাম বা মিছিল মিটিংয়ের কোন প্রয়োজন হয়নি। প্রাতিষ্ঠানিক পড়ালেখা শেষ করে প্রতিবছর কওমী মাদরাসা থেকে কয়েক হাজার শিক্ষার্থী বের হয়। কিন্তু আজ পর্যন্ত কোন শিক্ষার্থী চাকরির জন্য কারো কাছে কোন অভিযোগ বা অনুযোগ দেয়নি। কোন আন্দোলন -সংগ্রামেরও প্রয়োজন পরেনি। এমনকি কোন কওমী শিক্ষার্থী বেকার বসে আছে এমন চিত্রও কোথাও দেখা যায় না। মোট কথা কওমী শিক্ষার্থীরা বেকারত্বের অভিশাপ থেকে নিজেদের বের করে নিজেরাই নিজেদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে নিয়েছে। সরকার বা কোন মন্ত্রণালয়ে চাপ সৃষ্টি, রাস্তা অবরোধ কিংবা কোন সংগ্রামের প্রয়োজন পড়েনি। মোট কথা বেকারত্বদূরীকরণে কওমী মাদরাসার ভূমিকা অপরিসীম।
    তারপরও বুদ্ধি বিক্রেতা বুদ্ধিজীবিরা কওমী ওলামাদেরকে সমাজের বোঝা, আনকালচার্ড ইত্যাদি বলে সাধু সাজার চেষ্টা করে। কওমী মাদরাসাকে জঙ্গি ও সন্ত্রাসের প্রজনন কেন্দ্র বলে গালি দিলেও বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যা বা কোটা সংস্কার আন্দোলন নেতা নূরুর উপর ছাত্রলীগের অমানবিক নির্যাতনের সময় তারা প্রতিবাদ করার পরিবর্তে নববধূবেশে হাতে চুড়ি আর ঘোমটা দিয়ে ঘরে বসে থাকে। কারণ, তারা ভালো ভাবেই জানে এসকল লাগামহীন সংগঠনগুলোর বিরুদ্ধে কিছু বললে তাদের হালও আবারারের মত হবে। শুধু ছাত্রলীগ নয়, বি এন পি আমালে ছাত্রদল বা বিএনপির অংঙ্গ সংগঠনগুলোর অনিয়ম, হলমার্ক, ডেসটিনি, ব্যাংক ডাকাতি, এমনকি সর্বশেষ ক্যাসিনো নিয়েও তাদের তেমন সাড়াশব্দ ছিল না।

    ফিরে আসি মূল কথায়, মোটকথা বেকরত্বের অভিশাপ বর্তমান আমাদের দেশে এমন ভাবে জেঁকে বসেছে যে কোন ভাবেই এর থেকে বের হওয়া সম্ভব নয়। তবে সরকার সবদিক থেকেই কিন্তু লাভবান হচ্ছে। চাকুরী প্রত্যাশীদের থেকে নেওয়া ফি সরকারের বড় একটা ইনকাম সোর্স। উদাহরণ হিসেবে আজকের কথায় বলি। প্রতিজন চাকুরী প্রত্যাশীদের থেকে ২০০ টাকা করে আবেদন ফি নেওয়া হয়েছে। তাহলে যদি ২ হাজার আবেদন পরে তাহলে ২০০০×২০০ = ৪০,০০০০ হাজার টাকা সরকারি কোষাগারে জমা হচ্ছে। মাঝ থেকে জনগণ…!

    বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্ত করতে হলে সর্বপ্রথম সরকারকে আন্তরিক হতে হবে। দেশের কর্মসংস্থানগুলোকে দলীয়করণ, স্বজনপ্রীতি, মামা-চাচা, সর্বোপরি দূর্নীতি মুক্তকরণ করতে হবে। এবং ইসলামি শ্রমনীতিকে প্রাধান্য দিতে হবে। তাহলে ইনশাআল্লাহ দেশকে বেকারত্ব মক্ত সম্ভব হবে।

    শিক্ষার্থী : দারুল উলূম মুঈনুল ইসলাম (হাটহাজারী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়) হাটহাজারী,চট্টগ্রাম।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম