• শিরোনাম


    বক্তাদের প্রতি মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভীর গুরুত্বপূর্ণ নসিহত

    রিপোর্ট: মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান, প্রতিনিধি আওয়ার কন্ঠ | ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ১২:৪৭ অপরাহ্ণ

    বক্তাদের প্রতি মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভীর গুরুত্বপূর্ণ নসিহত

    আকাশ বাতাস মুখরিত করা সুরের মূর্ছনা,শ্রোতাদের মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখার মতো কণ্ঠমাধুরীর ইন্দ্রজাল, অবিরাম তারস্বরে চিতকার,ইস্যুভিত্তিক উচ্চ কণ্ঠ , চমক জাগানো শব্দোচ্চারণ, সত্য ও পরিস্থিতির দাবি মিশ্রিত কান্না, আকর্ষণীয় কিসসা-কাহিনি, উপমামূলক গল্প-ঘটনা, গান ও গজলের কলি গেয়ে ওঠা , মন আকৃষ্ট করা দীর্ঘ টানে কোরআন পাঠ এবং লাগসই জায়গায় মুগ্ধতার আওয়াজ তোলাতে পারা ছাড়াও আকর্ষণীয় উপস্থাপনের দক্ষতা প্রদর্শন করতে পারলে আপনি বিশ, ত্রিশ, চল্লিশ, পঞ্চাশ, যাট, সত্তুর হাজার এমনকি লাখ, দুই লাখ টাকা ঘন্টার বক্তা হতে পারবেন।

    যা সব ওয়ায়েজের পক্ষে ইচ্ছা করলেই সম্ভব নয়। আর সবসময়ই এমন অবস্থা চলতেই থাকবে, এমনটিও নয়। এ অঙ্গনে এখন আপনাদের যাদের গ্রহণযোগ্যতা কিংবা ব্যবস্থা আছে তারা প্রতিদিন একাধিক ওয়াজ করতে পারলে দু তিন বারের সম্মানী পাওয়াও সম্ভব। দুনিয়ায় অর্থ সম্পদ যশ খ্যাতি প্রতিষ্ঠা ও সুখ-শান্তি আপনাদের জন্য মুবারক হোক।



    যদি ইলম,তাকওয়া,হিকমাহ ও আখলাকি মানদণ্ড বিচারে ওয়াজের যোগ্যতা রাখেন বলে আত্মবিশ্বাস থাকে তাহলে দীনি এ অঙ্গনে অগ্রসর হোন। জনপ্রিয়তা, অর্থ সম্পদ ও ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব আপনার হাতের মুঠোয়। নিয়্যত ঠিক রেখে ইখলাসের সাথে দীনের এ খিদমত করে সফল মানুষের খাতায় নাম লিখান। জনপ্রিয়তার গ্রাফ চাঙ্গা হলে এমপি মন্ত্রী হওয়ারও সুযোগ আসতে পারে। তবে ভদ্রতা বজায় রাখতে হবে। লোভ সামলাতে হবে। তাড়াহুড়ো করে নিয়ম ভেঙে বদনাম কুড়াবেন না। নির্লজ্জ দরকষাকষি, অশোভন চুক্তি, ওয়াদা না রাখা, কঠোর ও দুর্বীনিত আচরণ করা থেকে বেঁচে থাকুন।

    সম্ভব হলে উন্নত রুচি, উত্তম লিল্লাহিয়্যত, যুহদ, দুনিয়াবিমুখ আর্থিক লেনদেন সযত্নে সংরক্ষণ ও লালন করে অতীত দিনের ওয়ায়েজগণের মতো বিনিময় বা পারিশ্রমিক ছাড়া দীনি শিক্ষা ও চেতনা বিস্তার করে জাতিকে আলোর পথ দেখান। প্রয়োজনে সম্মানজনক পথখরচ ও যৌক্তিক সম্মানী পর্যন্ত সীমিত থাকা অধিক সমীচীন। শুধু অতীত কেন,নিজেদের বর্তমান আকাবিরদের নীতি অনুসরণ করলেই বদনাম ও বিতর্ক থাকেনা।

    তবে ভালোভাবে না জেনে মাসআলা, ফতওয়া কিংবা সমাধান দিবেন না। সিনিয়র সমাজসচেতন অধিক জানাশোনা আলেমদের সাথে পরামর্শ করে নতুন প্রজন্মের জন্য সমাধান পেশ করুন। আপনার আচরণ সংযত, ভাষা শালীন শিষ্ট এবং ভাবভঙ্গি বিনয়াবনত রাখুন। অহংকার যেন আপনাকে মোটেও স্পর্শ না করতে পারে।

    এ সমাজের চলমান ওরফে প্রাপ্ত হক,শরিয়াসম্মত ও সৌন্দর্যমণ্ডিত বিষয়াদিকে বিনাকারণে আঘাত করবেন না। যা না জানেন বা যথেষ্ট না জানেন তেমন বিষয়,শব্দ, পরিভাষা, ঘটনা, ইতিহাস ইত্যাদি বলবেন না। ইলমী মুরব্বিদের সাথে যোগাযোগ করে জেনে নিন এবং নিজে পরিস্কার হয়ে মানুষের সামনে বলুন। বক্তানামক কোনো মানুষের অতিরিক্ত হালকামি, কৌতুকাভিনয়, অভব্যতা, মূঢ়তা, লাজ লজ্জাহীনতা ও নিকৃষ্ট আচরণের জন্য আলেমের শান যেন প্রশ্নবিদ্ধ না হতে পারে। এ বিষয়ে প্রত্যেক আলেমের দৃষ্টি আকর্ষণ করা কর্তব্য বলে মনে করছি।

    মুতালাআ বা অধ্যয়ন জারী রাখবেন। একজন ইসলাহী ইলমী আখলাকী মুরব্বি কিংবা গাইড থাকা অপরিহার্য। নিঃস্বার্থ শুভার্থীগণের দেওয়া সংশোধন বা ইসলাহ বিনা দ্বিধায় গ্রহন করবেন। আলোচনা পজেটিভ রাখুন। অন্যের সমালোচনা না করে জাতিকে আলোর দিশা দিয়ে ইসলামের বিজয়ের সন্ধান দিন। হিংসুকের হিংসায় ও উদ্দেশ্য মূলক সমালোচনায় বিচলিত হবেন না।

    ইসলামের শত্রুদের ফাঁদে পা দিবেন না। আপনার প্রতিভা ও জনপ্রিয়তা যেন ইসলাম বিরোধীদের পৃষ্ঠপোষকতা ও সহযোগিতা নেওয়ার ফলে দীনের বিরুদ্ধে ব্যবহৃত না হতে পারে, সে দিকে তীক্ষ্ণ দৃষ্টি রাখবেন। দুশমনরা সবসময়ই উম্মতের ক্ষতি করতে সচেষ্ট। সবসময় আল্লাহকে ভয় করে তার দেওয়া নেয়ামতের শোকরিয়া আদায় করে চলুন। আমল আখলাক ঠিক রেখে মুরব্বিদের তত্তাবধানে জীবনের অমূল্য সময়গুলো অতিবাহিত করে জাতিকে ইসলামের সঠিক পথ দেখান। নিজেও নিজের আখিরাত সুন্দর করুন। আল্লাহর সন্তুষ্টিই হোক আমাদের সব কাজের মূল লক্ষ্য ও প্রেরণা।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম