• শিরোনাম


    “ফ্রী ফায়ার ও পাবজি”প্রজন্ম ধংসের মূল উৎস [] শেখ আরিফ বিল্লাহ আজিজী

    | ০৭ জুন ২০২১ | ১:৪৬ অপরাহ্ণ

    “ফ্রী ফায়ার ও পাবজি”প্রজন্ম ধংসের মূল উৎস [] শেখ আরিফ বিল্লাহ আজিজী

    বর্তমান সময়ে তরুণ প্রজন্মের মাঝে সবচেয়ে বেশি যে নেশা তৈরী হয়েছে তার নাম হলো পাবজি ও ফ্রী-ফাইয়ার গেইমস। যা উঠতি বয়সী প্রজন্মের জন্য অত্যন্ত বিপদজনক ও ক্ষতিকর।এই ভয়ংকর আগ্রাসন প্রতিটি তরুণ-তরুণী,কিশোর-কিশোরী মাঝে ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। তৈরি হচ্ছে কিশোরগ্যাঙ্গ, তাছাড়া ও শিক্ষর্থীরা দিন দিন পড়াশোনা থেকে বিমুখ হয়ে যাচ্ছে। পিতা মাতার অবাধ্য সন্তানে রুপান্তর হচ্ছে। যে সন্তানকে নিয়ে পিতা মাতা বিশাল স্বপ্ন দেখছে, সেই স্বপ্ন সন্তান নিমেষেই বিনিষ্ট করে দিচ্ছে।হতাশার মাঝে পতিত করছে তার পরিবার,সমাজ ও স্বজনদেরকে।
    তৈরী হচ্ছে কিশোর অপরাধ বা কিশোর গ্যাং।

    আধুনিক বিশ্বের অসংগঠিত সমাজ ব্যবস্থায় দ্রুত শিল্পায়ন ও নগরায়নের নেতিবাচক ফল হলো কিশোর অপরাধ। পরিবার কাঠামোর দ্রুত পরিবর্তন, শহর ও বস্তির ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশ এবং সমাজজীবনে বিরাজমান নৈরাজ্য ও হতাশা কিশোর অপরাধ বৃদ্ধির প্রধান কারণ। অপসংস্কৃতির বাঁধ ভাঙা জোয়ারও এজন্য অনেকাংশে দায়ী। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বলেছেন- ‘তের চৌদ্দ বছরের মতো এমন বালাই আর নেই’।
    এ বয়সের ছেলেমেয়েদের সামনে থাকে অদম্য আশা আর জীবন জগৎ সম্পর্কে থাকে অতিকৌতূহল। অনেক সময় প্রতিকূল পরিবেশের কারণে আশাভঙ্গের বেদনায় হতাশার হাত ধরে নৈরাশ্যের অন্ধকারে পতিত হয় তাদের জীবন। এতে কিশোর বয়সীরা ধীরে ধীরে অপরাধপ্রবণ হয়ে পড়ে। কিশোর অপরাধ দেশ ও জাতির সার্বিক কল্যাণে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে।



    কিশোর বয়সীদের দ্বারা সংঘটিত সমাজে বিদ্যমান মূল্যবোধ ও নিয়মনীতি বিরোধী কাজই কিশোর অপরাধ। তবে সামাজিক মূল্যবোধ রাষ্ট্র, শহর, গ্রাম বা এলাকাভেদে বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে, এমন একটি হলো আমাদের সমাজে ” ফ্রী-ফায়ার ও পাবজী ” গেইমস। এই আসক্তিময় গেমসের পিছনে নষ্ট হচ্ছে তরুণ তরুণীর মহা মূলব্যবান সময়। এর পিছনে ব্যায় করছে হাজার হাজার অর্থ।ব্যার্থতার পর কেউ কেউ আত্মহত্যার পথ বেছে নিচ্ছে।

    কবে দেখতে পারব একটি ব্যাধিমুক্ত সমাজ, একটি সুন্দর সমাজব্যবস্থা?
    একটি কল্যাণময় রাষ্ট্র? বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রীর নিকট উদাত্ত আহ্বান থাকবে অতি অনাবিলম্বে বাংলাদেশে এই ধংসময় গেইমস নিষিদ্ধ করে দিন।এবং যুব সমাজের প্রতি আহবান থাকবে আসুন সোনার বাংলার অাদর্শবান নাগরিক হয়ে, দেশ ও মানবতার পক্ষে দূর্নিতীমুক্ত সমাজ গঠনের প্রত্যয় নিয়ে সমুক্ষে অগ্রসর হয়। আর্দশবান যুবকরা জাগ্রত হলেই জাগ্রত হবে বাংলাদেশ।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম