• শিরোনাম


    কসবা উপজেলার পুরকুইল গ্রামের নামকরণের ইতিকথা: এস এম শাহনূর

    | ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ৭:১৯ অপরাহ্ণ

    কসবা উপজেলার পুরকুইল গ্রামের নামকরণের ইতিকথা: এস এম শাহনূর

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলাধীন ২নং মেহারী ইউনিয়নের অন্তর্গত দ্বীনের পতাকাবাহী এক নিভৃত জনপদ পুরকুইল গ্রাম।আমার জন্মের পূর্ব থেকেই এ গ্রামের প্রতি রয়েছে এক ভালবাসার টান।কারণ আমার মরহুম পিতা মাস্তান হাজী আব্দুল জব্বার বল্লভপুরী (রহ.) এবং পুরকুইল দরবার শরীফের পীর যুগের অন্যতম আলেম হযরত মাওলানা মরহুম আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান(রহ.) পীর সাহেব, ওঁনারা ছিলেন গত শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ আলেম পীর প্রফেসর আব্দুল খালেক ছতুরাভী (রহ) এর মুরিদ ও পীর ভাই।ছতুরা দরবার শরীফ,সোনাকান্দা দরবার শরীফ,মাছিহাতা দরবার শরীফ, আড়াইবাড়ি দরবার শরীফ ও পাক হাজীপুর দরবার শরীফে মাস্তান হাজী আব্দুল জব্বার (রহ.) হরহামেশা যাওয়া আসা করতেন। একই মুর্শিদের মুরিদ হলেও হাফেজ হযরত মাওলানা আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান(রহ.)স্বীয় পীর মুর্শিদ কর্তৃক তায়াজ্জুহ ও ফয়েজপ্রাপ্ত হয়ে হলেন পীর আর আলহাজ্ব আব্দুল জব্বার (রহ.)স্বীয় পীর মুর্শিদ কর্তৃক তায়াজ্জুহ ও ফয়েজপ্রাপ্ত হয়ে হলেন মদীনার আশিক ও মাস্তানা।যুগের অন্যতম আলেম হযরত মাওলানা মরহুম আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান(রহ.) পীর সাহেবের পদধূলিতে ধন্য হয়েছে পুরকুইল গ্রাম। এ গ্রামের মাটিতেই তিনি চির নিদ্রায় শায়িত আছেন।কিন্তু কোন সেঁ পীর মুর্শিদ কর্তৃক তায়াজ্জুহ ও ফয়েজপ্রাপ্ত হয়ে ধন্য হলেন হাফেজ মাওলানা মরহুম আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান(রহ.) পীর সাহের?ধন্য হলো পুরকুইল গ্রামবাসী?

    পীর ও আধ্যাত্নিক শিক্ষক,ফুরফুরা শরীফের মুজ্জাদিদে যামান আবু বকর সিদ্দিক (রঃ) এর খিলাফাত প্রাপ্ত প্রাজ্ঞজনদের মধ্যে ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ (র), হযরত নেসারুদ্দীন আহমাদ (রঃ),রুহুল আমিন বর্ধমানী (রঃ), সদরুদ্দীন আহমাদ শহীদ (রঃ) ও পীর প্রফেসর আব্দুল খালেক (রঃ) ছিলেন অন্যতম। ইংরেজি শিক্ষিত সমাজে দ্বীন প্রচারের জন্য ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ (রঃ) ও তাঁর পীরভাই পীর প্রফেসর আব্দুল খালেক (রঃ) স্বীয় পীর মুর্শিদ কর্তৃক তায়াজ্জুহ ও ফয়েজপ্রাপ্ত হয়ে বিশেষ দায়িত্ব প্রাপ্ত ছিলেন।



    পীর প্রফেসর আব্দুল খালেক (রঃ) প্রণীত “সেরাজুস সালেকীন” “সায়্যিদুল মুরসালীন”, বোখারী শরীফের ব্যাখ্যাগ্রন্থ ফতহুল বারী রচয়িতা হাফেজ ইবনে হাজার আসকালানীর (র) মুনাব্বেহতের বাংলা অনুবাদ উল্লেখযোগ্য। এছাড়া তার রচিত গুনচা-ই-ফারসী প্রথম খন্ড, দুররাতুল আদাব ২য় খন্ড, সহজ আরবী ব্যাকরণ মাদ্রাসার বিভিন্ন শ্রেণীর পাঠ্যসূচীর অর্ন্তভূক্ত ছিলো।তৎকালীন যুগে ফারসী ও আরবী তে এম,এ ফাষ্টক্লাস ফাষ্ট (গোল্ড মেডেলিষ্ট)। কুতুবুল ইরশাদ পীর প্রফেসর আবদুল খালেক (র) এর খলিফা ও মুরিদদের মধ্যে উল্লখেযোগ্য ছিলেন প্রথম খলিফা ইমামুত্ব তরিক্বত শায়খ সায়্যিদ বোরহানুদ্দীন উয়েসী (র)। প্রায় ২৫ জন অন্যান্য খলিফা বৃন্দের মধ্যে সূফী খোন্দকার আবদুল জব্বার (র), অধ্যাপক এম.এফ.এম আবদুল আযীয (র), সূফী ফাতেহ আলী (র), সূফী সিদ্দিক আহমদ খান (র.),ও বিশিষ্ট মুরিদ মুসলিম রেঁনেসার কবি ফররুখ আহমদ (র.) প্রমুখ উল্লখেযোগ্য।কবি তার সিরাজুম মুনীরা কাব্যগ্রন্থ তার মুর্শিদ পীর প্রফেসর আবদুল খালেক সাহেবকে (র) উৎসর্গ করেছিলেন।

    তিনি ১৯৫৫ সালের ২ এপ্রিল ৬৩ বছর বয়সে মাওলার সান্নিধ্যে চলে যান।(জন্ম-১৮৯২ ইং সালের ২৪ আগষ্ট,) ইন্না লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন।প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন বায়তুল মোকাররমের প্রথম খতীব আওলাদে রাসূল মাওলানা মুফতী আমীমুল এহসান মুজাদ্দেদী (র) এর ইমামতিতে শেরে বাংলা এ,কে ফজলুল হক, মাওলানা আবদুল হামীদ খান ভাসানী সহ সমাজ ও রাষ্ট্রের অনেক গণ্য মান্য ব্যক্তিবর্গ তাঁর জানাজার নামাজে শরীক হন।

    ➤এক নজরে পুরকুইল গ্রাম:

    গ্রামের আয়তন (প্রায়): ১৪০ বিঘা
    (মোট জনসংখ্যা (প্রায়): ১৭০০ জন, .
    মোট ভোটার: ৯০০ জন,
    পুরুষ ও মহিলার অনুপাত ৫৫ঃ৪৫
    প্ররাসীর সংখ্যা =৬২জন
    শিক্ষার হার=৮৩%
    দারিদ্রতার হার=১১%

    ➤এছাড়াও এখানে রয়েছে –
    ১ টি ফাযিল মাদ্রাসা(এবতেদায়ি সহ)।
    যার প্রতিষ্ঠাতা যুগের শ্রেষ্ঠ আলেম পীরে কামেল মুর্শিদে মোকাম্মেল আলহাজ্ব হযরত মাওলানা হাফেজ হাবিবুর রহমান (রঃ)পীরসাহেব।
    ৩ টি মসজিদ।
    ২ টি ঈদগাহ ।
    ১ টি বড় মাঠ মাদ্রাসায়(খেলার জন্য নয়, মাহফিল ও ইসলামি জলসার জন্য)।
    ১ টি ছোট বাজার (মোড় সংলগ্ন)।
    ৪ টি কবরস্থান (বাড়ির আশেপাশে বেশ কিছু পারিবারিক কবরস্থানও আছে)।
    ১৮ টি.পুকুর (ছোট বড়)
    ১ টি বড় দিঘী। (গ্রামের দঃ পশ্চিমে,নাম চুছলার পুকুর)।

    ➤সামাজকল্যাণ মুলক সংগঠন।

    ক. আলহাবিব সোসাইটি।
    খ. ড্যাফোডিল অর্গানাইজেশন।
    গ. হাজী হাউজ গ্রুপ লিঃ

    ➤পেশা:

    কৃষিজীবি=৪৭%
    প্রবাসী =০৫%
    চাকুরীজীবি =১১%
    ব্যবসায়ী =১৪%
    অন্যান্য =২৬%

    ➤সীমানা:

    উত্তরে -যমুনা গ্রাম।
    পূর্বে-খেওড়া গ্রাম।
    দক্ষিণে- বাহারআটা,তিলারপাড়, চৌবেপুর গ্রাম।
    পশ্চিমে – ঈশাননগর গ্রাম।

    ➤বরেণ্য ও গুণী ব্যক্তিগণের নামের তালিকা:

    ✪ হাদিয়ে জামান কুতুবুল আকতাব আলহাজ্ব হযরত মাওলানা হাবিবুর রহমান(রঃ)
    প্রতিষ্ঠাতা,পুরকুইল গাউছিয়া হাবিবিয়া দরবার শরীফ ও পুরকুইল হাবিবিয়া ফাযিল মাদ্রাসা।
    ✪ পীরজাদা মরহুম আলহাজ্ব ফারুক আহমেদ (র)।
    বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী,পুরকুইল গাউছিয়া হাবিবিয়া দরবার শরীফ।
    ✪ ওস্তাজুল ওলামা পীরজাদা মরহুম এ টি এম হাফেজ আহম্মদ(র),
    (সাবেক অধ্যক্ষ পুরকুইল ফাযিল মাদ্রাসা)।
    ✪ অলীয়ে কামেল মুর্শিদে মুকাম্মেল আলহাজ্ব হোসাইন আহমেদ আল হাবিবি (রঃ) পীর সাহেব।
    ✪ অলীয়ে কামেল মুর্শিদে মুকাম্মেল হযরত মাওলানা ড. ছদরুদ্দীন আহমদ (রঃ) পীর সাহেব।
    ✪ মরহুম আব্দুল আজিজ
    ২ বার নির্বাচিত সাবেক ২নং মেহারী ইউপি চেয়ারম্যান।
    ✪ কর্নেল মো: রফিকুল ইসলাম
    বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।
    ✪ ডা.ওবায়দুর রহমান,এমবিবিএস
    মেডিসিন বিশেষজ্ঞ, সদর হাসপাতাল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।
    ✪ মোঃ ফারুক আহমদ ভূঁঞা
    বিশিষ্ট শিক্ষনুরাগী ও সমাজ সেবক।
    ✪ হযরত মাও. হাফেজ হাফিজুর রহমান।
    ইমাম, আজিমপুর কবরস্থান মসজিদ,ঢাকা। ,
    ✪ মো: আবুল বাশার (পূর্ব পাড়া)।
    বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সমাজ সেবক।
    ✪ মোঃ মাসুম ভূঁঞা (দ: পাড়া)।
    বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সমাজ সেবক।
    ✪ সিরাজুম মনির সজল,
    ম্যানেজার,রুপালী ব্যাংক লি:।
    ✪ যুদ্ধাহত মুক্তিযুদ্ধা আব্দুল আজিজ
    অবসর প্রাপ্ত সেনাবাহিনী।
    ✪ এডভোকেট শরীফুল ইসলাম,
    জজকোর্ট,ঢাকা।
    ✪ আশরাফুল ইসলাম উজ্জ্বল,
    সহকারি শিক্ষা অফিসার -সিলেট।

    ➤জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নামের তালিকা:

    ✪ মোঃআব্দুল আজিজ
    ✪ মোঃ আদুরি শহীদ
    ✪ মোঃঅলি আহমেদ
    ✪ মোঃ হাসান আলী
    ✪ মোঃ হেলাল ভূঁঞা
    ✪ মোঃ ফুল মিয়া প্রমুহ।

    ➤শিক্ষক/শিক্ষিকা বৃন্দের নাম/পরিচয়:

    * প্রফেসর মোঃ মমিনুল হক ইকবাল
    (ইস্পাহানি স্কুল এন্ড কলেজ কুমিল্লা)।
    * প্রভাষক আক্তার হোসেন বাবুল
    কুটি মহিলা ডিগ্রি কলেজ।
    * প্রভাষক মোঃ নুরুল হুদা(কবি ও লেখক)
    পুরকুইল গাউছিয়া হাবিবিয়া ফাযিল মাদ্রাসা।
    * কবির মোরাদ হুমায়ুন মাস্টার।
    কসবা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়।
    * মোঃ রফিকুল ইসলাম।
    পুরকুইল ফাযিল মাদ্রাসা।
    * মোঃ কবির আহমদ।
    নেয়ামতপুর উচ্চ বিদ্যালয়।
    * মোঃ সিরাজুম মনির
    কসবা মহিলা মাদ্রাসা।
    * মোঃ সিরাজুল ইসলাম
    শিকারপুর উচ্চ বিদ্যালয়।
    * মোঃ নূরে আলম
    খাড়েরা উচ্চ বিদ্যালয়।
    * সাদিয়া নুর চৈতি।
    রাইতলা উচ্চ বিদ্যালয়।
    * ফাহমিদা আক্তার
    বাহার আটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
    * রাশেদা আক্তার
    যমুনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
    * সালমা আক্তার
    বাহারআটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।
    * সুমাইয়া আক্তার হিরা
    যমুনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
    * ফরিদা আক্তার।
    যমুনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

    ➤পুরকুইল নামকরণ:

    সংস্কৃত ভাষায় পুর শব্দ দ্বারা ঘর বা গ্রামকে বোঝায়।যা সাধারণত(বাংলা অভিধান অনুযায়ী) কোন স্থান নামের সাথে প্রত্যয় হিসাবে যুক্ত হয়ে নতুন শব্দ গঠন করে থাকে।যেমন: বল্লভপুর,শেরপুর,জয়পুর ইত্যাদি। আলোচ্য পুরকুইল(পুর+কুল)গ্রামের নাম পুর এবং কুল দুটো শব্দের সমন্বয়ে গঠিত একটি যুগ্ন শব্দ।পুরকুইল নামকরণের ক্ষেত্রে পুর শব্দের অর্থ দাঁড়িয়েছে মোটা,ভারী বা অভিজাত।আর কুল শব্দের অর্থ হলো জাতি,বংশ বা গোষ্ঠী।
    গত ১৫ আগস্ট ২০১৯ইং খেওড়া বায়তুল নূর জামে মসজিদে জোহরের নামাজের পর পুরকুইল দরবার শরীফের বর্তমান গদীনিশিন পীর ড.ছদরুদ্দীন আহমদ(রঃ)সাহেবের কাছে পুরকুইল গ্রামের নামকরণ বিষয়ে ওনার মূল্যবান মতামত জানতে চাইলে,পুর এবং কুল শব্দ দুটোর উপরোক্ত অর্থ বিশ্লেষণ করে তিনি বলেন, “অত্র জনপদে প্রথম দিকেই অভিজাত বংশীয় কিংবা জ্ঞানী গুণী সম্প্রদায়ের লোকজনের বসতি ছিল বলে একে পুরকুল>পুরকুইল বলা হয়”।

    ★অন্য একটি তথ্য মতে,(শিমরাইল বাজার সংলগ্ন প্রয়াত ডাঃ অনন্দ্র নাথ থেকে লেখক কর্তৃক সংগৃহীত)বরদাখাত এবং নূরনগর পরগণার মধ্যবর্তী সীমানা ঠিক করার জন্য উভয় পরগণার অধিকর্তাগণ বুড়ি নদীর তীরে,উত্তর-দক্ষিণে লম্বালম্বি ভাবে জেগে উঠা চর বা আইল কে বরদাখাত পরগণার পূর্ব সীমানা এবং নূরনগর পরগণার পশ্চিম সীমানা হিসাবে চিহ্নিত করে। সীমানা নির্ধারণী এ আইলের উপর আস্তে আস্তে জনবসতি গড়ে উঠে।পরবর্তীকালে এটিই (সীম+আইল) সীমাইল বা শিমরাইল নাম ধারণ করে।জানা যায়, “শিমরাইল গ্রামের পূর্ব কোণে ছোট্ট একটি জনবসতি গড়ে উঠে। ধারণা করা হয় পূর্বকোণে গড়ে উঠা জনবসতির পূর্বকোণ (পূর্বকোণ শব্দের অপভ্রংশ)থেকেই পুরকুইল নামের উৎপত্তি।”

     

    ➤তথ্য সূত্রঃ-
    ১. জীবনী-হযরত শাহ সূফী অধ্যাপক আবদুল খালেক (র.)।। সিদ্দিক আহমদ খান
    ২. ফুরফুরা শরীফরে ইতবিৃত্ত।। মুবারক আলী রহমানী
    ৩. ফুরফুরার ইতিহাস।। আবদুল্লাহ্ আল আরিফ সম্পাদিত
    ৪. ইসলাম প্রসঙ্গ।। ড. মুহাম্মাদ শহীদুল্লাহ
    ৫. আখেরী নবী (স.), হাদীয়াতুছ সালেকীন।।আল্লামা শায়খ মুহাম্মাদ বোরহানুদ্দীন (র)
    ৬. কবি ফররুখ আহমদ-ব্যক্তি ও কবি।। শাহাবুদ্দিন আহমদ সম্পাদিত
    ৭. সাইয়েদুল মুরসালিন (তৃতীয় খন্ড)।। অধ্যাপক আবদুল খালেক (র.)
    ৮. ব্রাক্ষ্মণবাড়ীয়া জেলার ইতিবৃত্ত।। শোয়েব চৌধুরী সম্পাদিত
    ৯. নামকরণের ইতিকথা।। এস এম শাহনূর
    ১০. ব্যক্তিগত সংগ্রহশালা
    ১১. প্রভাষক মোঃ নুরুল হুদা(কবি ও লেখক)
    পুরকুইল গাউছিয়া হাবিবিয়া ফাযিল মাদ্রাসা।
    ১২. Tej Ram Sharma (১৯৭৮)। Personal and geographical names in the Gupta inscriptions । Concept Publishing Co., Delhi। পৃষ্ঠা 224-225।

    💻এস এম শাহনূর
    (কবি ও আঞ্চলিক ইতিহাস গবেষক)

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম