• শিরোনাম


    পরিবারের মৃত মা আর চার ভাইয়ের সাথে বেঁচে গেলো ৯ মাসের শিশু

    অনলাইন সংস্করণ | ২০ মে ২০২১ | ৬:৫৮ পূর্বাহ্ণ

    পরিবারের মৃত মা আর চার ভাইয়ের সাথে বেঁচে গেলো ৯ মাসের শিশু

    নিথর মায়ের জড়ানো দু’টো হাতের ভিতর থেকে উদ্ধার করা হয়েছিল তাকে। পাঁচ মাসের ওমর আল-হাদিদির ছোট্ট পায়ের তিন জায়গায় ভেঙে গিয়েছে। চোখের পাতাগুলো রক্ত জমে কালচে গাঢ় লাল রং। ইন্টারনেটের সৌজন্যে হাসপাতালের নার্সদের কোলে একরত্তির রক্তাক্ত ছবি দেখে ফেলেছে গোটা দুনিয়া। ওমরের বাবা, মহম্মদ আল-হাদিদি গাজ়ার কোনও এক হাসপাতালের বিছানার ধারে বসে বিলাপ করে চলেছেন, ‘‘তুই ছাড়া এই পৃথিবীতে আমার আর কেউ রইল না।”

    ইজ়রায়েলি দখলদার বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র একসঙ্গে কেড়েছে ওমরের মা আর ভাই দাদাকে। ভাইদের বয়স ১৩ থেকে ৬-এর মধ্যে। ঈদের ঠিক ১দিন পরেই শনিবার ভোর রাত থেকে ইজ়রায়েলি সেনার একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র নিশানা করেছিল গাজ়ার বহুতলগুলোকে। ঈদ উপলক্ষে ওমরদের নিয়ে এক কাকার বাড়ি গিয়েছিলেন তার মা। ৩৭ বছরের মুহম্মদ বলেছেন, ‘‘নতুন পোশাক পরে হাতে খেলনা নিয়ে আমার ভাইয়ের বাড়ি গিয়েছিল ছেলেরা। রাতে বায়না করল ওখানেই থেকে যাওয়ার। আমি বাধা দিইনি। ভোর রাতে একটা ফোনে ঘুম থেকে উঠি। ওই এলাকাতেই পর পর বোমা পড়ছে। পৌঁছে দেখি গোটা বাড়িটাই ধ্বংসস্তূপ। আমার স্ত্রী আর চার ছেলে শেষ হয়ে গিয়েছে চাপা পড়ে। আমার ভাইয়েরদর স্ত্রী আর বাচ্চারাও বেঁচে নেই। বাকি ভাইদের মতো প্রথম থেকেই মায়ের দুধ খেত না ওমর। ঈশ্বর ওকে ওই জন্যই এ ভাবে তৈরি করেছেন হয়তো।’’



    প্রায় দু’সপ্তাহ ধরে চলা ইজ়রায়েল-প্যালেস্তাইন সংঘর্ষে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২১৯ জন সাধারণ মানুষের। যার মধ্যে শিশুদের সংখ্যাই ৬১। ধ্বংসস্তূপের আনাচকানাচে এখনও চাপা পড়ে রয়েছে অনেক শিশু, যাদের বেঁচে থাকার আশাটা ক্ষীণ। একশোরও বেশি হামাস সদস্যকে মেরেছে কুখ্যাত ইসরায়েলী বাহিনী, গত কয়েক দিনে হামাস তাদের দিকে শয়ে শয়ে রকেট ছুড়েছে বলে দাবি করেছে ইসরায়েল। হামাসের হামলায় ইসরায়েলে এখনও পর্যন্ত মারা গিয়েছেন ১২ জন। গত কাল ইসরায়েলের আক্রমণ কিছুটা হলেও কম ছিল। যদিও আজ সকাল থেকেই গাজা ভূখণ্ডে আকাশ-হামলা জারি রেখেছে তারা। প্যালেস্তাইনের স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় জানিয়েছে, মঙ্গলবার ভোর রাতে ইসরায়েলের হামলায় গুঁড়িয়ে গিয়েছে গাজ়ার একমাত্র কোভিড পরীক্ষাকেন্দ্রটি। এর ফলে সেখানকার মানুষের করোনা পরীক্ষা নিয়ে ঘোর অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। গোটা বিশ্বের মধ্যে প্যালেস্তাইনের সংক্রমণের পজ়িটিভিটি রেট খুবই বেশি।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম