• শিরোনাম


    নোবেল খ্যাত ম্যাগসেসে পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশের কৃতি বিজ্ঞানী ফেরদৌসী কাদরী

    ম. কাজী এনাম, স্টাফ রিপোর্টার | ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১২:৪৬ অপরাহ্ণ

    নোবেল খ্যাত ম্যাগসেসে পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশের কৃতি বিজ্ঞানী ফেরদৌসী কাদরী

    পরীমণি যেদিন জামিন পেলেন, সেদিন এশিয়ার নোবেল খ্যাত ম্যাগসেসে পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশের কৃতি বিজ্ঞানী ফেরদৌসী কাদরী। অথচ ফেসবুক জুড়ে ছবি, প্রোফাইল পিকচার, গল্প, কাহিনী, স্ট্যাটাস এমনকি পত্র-পত্রিকায় শুধুই পরীমণি আর হুডখোলা জিপে যেন তাঁর দিগ্বিজয়ী হাস্যোজ্জ্বল ছবি।

    তাঁরা দুজনেই নারী। কিন্তু, ডঃ ফেরদৌসী কাদরী’র তেমন কোন খবর নেই। সংবাদের শিরোনামে তিনি নেই, নেই সংবাদপত্রের প্রথম পাতায়। মানব কল্যাণে তাঁর কতটা অবদান, তা নিয়ে নেই কোন আলোচনা!



    অথচ যে পরিমণীকে নিয়ে এতো লঙ্কাকাণ্ড দেশের নারী জাগরণে তার অবদান কি? মানব সভ্যতার কল্যাণে তার অবদান কি? এমনকি কোনোকালে তাকে তো নারীবাদি কোনো আন্দোলনের পক্ষেও একটা স্ট্যাটাস দিতে দেখা যায়নি!

    ভিনদেশী নুসরাতের ছেলের বাবা কে? — এ-ই আমাদের আলোচনার বিষয়!

    অপূর্ব কয় বিয়ে করলেন, কনের বাড়ি কোথায় সেটাও প্রথম পাতায়, বিনোদন পাতায়। অথচ ক্যাপটেন নওশাদ, যিনি নিজে জীবন দিয়ে বিমান ভর্তি যাত্রীদের জীবন বাঁচিয়ে গেলেন, তা আর প্রথম পাতায় জায়গা পেল না।

    আজ আমাদের চর্চার বিষয় হলো পরীমণি, পিয়াসা, মৌ, পাপিয়া, হিরো আলম, অনন্ত জলিল, সেফুদা, আনভীর, শাহেদ, ই-ভ্যালি, ই-অরেঞ্জ, ডেসটিনি!!

    প্রশ্ন হচ্ছে, আমাদের ডেসটিনি কোথায়??

    বলতে দ্বিধা নেই, আগামী প্রজন্মের মধ্যে বিখ্যাত বিজ্ঞানী, গবেষক, অর্থনীতিবিদ, ইঞ্জিনিয়ার, স্থপতি কিংবা ডাক্তার তৈরি হওয়ার সংখ্যাটা উল্লেখযোগ্য হারে কমে যাবে। কারণ, আমরা জ্ঞানের কদর করছি না তাই। আর বেড়ে যাবে, ফেইসবুকার, মোটিভেশনাল স্পিকার আর ইউটিউবারের সংখ্যা। ইতোমধ্যে তাই ঘটছে। টিকটকে চোখ রাখলে সেটা বোঝা যায়। টিকটক সেলিব্রেটিদের দাপট সেটারই ইঙ্গিত বহন করে। দেশের অর্ধেক ইন্টারনেট ব্যবহার হয় পণোগ্রাফি আর টিকটক দেখে! আহা বিনোদন!

    কথায় আছে, “যে দেশে জ্ঞানীর কদর হয় না, সে দেশে গুণী জন্মায় না”।

    সুন্দরী প্রতিযোগিতা, রিয়েলিটি শো এর স্পন্সরের অভাব হয় না। কিন্তু কোনো বিজ্ঞান বিষয়ক শো, বিতর্ক প্রতিযোগিতার স্পন্সরশিপ যোগাড় করতে কি পরিমাণ কাঠখড় পোড়াতে হয় সেটা স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের জীবনে অনেকেই দেখেছেন।

    দেশের কোনো টেলিভিশনে বিজ্ঞান বিষয়ক বড় মাপের কোনো রিয়েলিটি টাইপ শো চোখে পড়েনি গেল ২৫ বছরেও। না পড়ার কারণও আছে। ওই শো কেউ দেখবে না। এ জাতি দেখবে সুন্দরীদের। দেখবে শরীর আর সৌন্দর্য। এ জাতির ভবিষ্যত কেবল বিনোদন নেওয়াতে আর দেওয়াতে নিবিষ্ট। পত্রিকায় বিনোদন পাতার নিউজেও হিটের বন্যা। শিক্ষা আর বিজ্ঞানপাতা গড়ের মাঠ। আমাদের মনোজগতেও কি তাই নয়?

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম