• শিরোনাম


    ধূমপানে সৌন্দর্য নষ্ট হয়।

    | ২৯ নভেম্বর ২০১৮ | ৬:০০ অপরাহ্ণ

    ধূমপানে সৌন্দর্য নষ্ট হয়।

    নিয়মিত ধূমপান করেন? ছাড়ার চেষ্টা করছেন, কিন্তু পারছেন না? আপনার মতো কিন্তু অনেকেই রয়েছেন। কিন্তু মনে রাখবেন, যত তাড়াতাড়ি ধূমপান ছাড়বেন, ততই আপনার জন্য মঙ্গল। কারণ, ধূমপান শুধুমাত্র আপনার ফুসফুস বা শ্বাসযন্ত্রের ক্ষতি করছে না, শরীরের অন্য অঙ্গগুলিও সমান তালে ক্ষতির শিকার হচ্ছে। তা ছাড়াও ধূমপানের কুপ্রভাব কিন্তু সুদ‚রপ্রসারী। বিশ্বাস হচ্ছেনা? তাহলে জেনে নিন নিয়মিত ধূমপানের ফলে আপনার শরীরে ঠিক কী কী ক্ষতি হতে পারে-
    ১. চোখে প্রভাবঃ ধূমপানের কারণে আপনার চোখে কমবয়সেই ছানি পড়তে পারে। নিয়মিত ধূমপান চোখে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস বাড়ায়। ধূমপান ছাড়ার পরও অবশ্য চোখে ছানি পড়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।
    ২. চুলে প্রভাব ঃ হেয়ার ফলিকলে প্রচ্ছন্ন প্রভাব বিস্তার করে ধূমপান। যার জেরে চুলের গোড়ার ক্ষতি হয়। ধূমপানের প্রভাবে চুল পড়তে শুরু হয়। কারণ, ফলিকল কমজোর হয়ে গেলে চুল সহজেই ভেঙে যায়। ধূমপায়ী মানুষের টাক পড়ার সম্ভাবনা তাই বেশি।
    ৩. ত্বকে প্রভাব ঃ ধূমপানের জন্য শরীরে ভিটামিন সি-এর অভাব দেখা দিতে পারে। ত্বককে উজ্জ্বল ও সুরক্ষিত রাখার জন্য ভিটামিন সি একটি প্রয়োজনীয় উপাদান। ধূমপান ত্বকে অক্সিজেনের পরিমাণ কমিয়ে দিতে পারে। ফলে ত্বক অনুজ্জ্বল ও ফ্যাকাশে দেখাতে পারে।
    ৪. রক্তে প্রভাব ঃ সিগারেট, বিড়ি, হুঁকো ইত্যাদিতে থাকা তামাক থেকে উৎপন্ন নিকোটিন রক্ত চলাচলে বাধা দেয়। অনেক সময় অতিরিক্ত ধূমপানের ফলে রক্ত জমাট বাঁধতে শুরু করে।
    ৫. চেহারায় প্রভাব ঃ ধূমপানের ফলে চেহারা বুড়িয়ে যেতে পারে তাড়াাতাড়ি। অতিরিক্ত ধূমপানের ফলে আপনাকে বয়সের তুলনায় বেশি বয়স্ক দেখা দিতে পারে। কারণ, ধূমপান বলিরেখা তৈরির ক্ষেত্রে প্রচ্ছন্ন প্রভাব রাখে।
    ৬. স্ট্রেচমার্ক ঃ ধূমপানের কারণে বাড়তে পারে স্ট্রেচ মার্ক। নিকোটিন ত্বকের কানেক্টিভ টিস্যু ও ফাইবার-এর ক্ষতি করে দেয়। ফলে সাদা স্ট্রেচ মার্ক দেখা দিতে পারে।
    ৭. ক্ষুধামন্দা ঃ ধূমপানের ফলে ক্ষিদে কমে যেতে পারে। ফলে চেহারায় তার ছাপ পড়তে পারে প্রকটভাবে।

    Facebook Comments



    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম