• শিরোনাম


    জনতার কাঠগড়ায় কওমির জবানবন্দি। আওয়ার কণ্ঠ

    | ০৮ অক্টোবর ২০১৮ | ২:৪০ পূর্বাহ্ণ

    জনতার কাঠগড়ায় কওমির জবানবন্দি।  আওয়ার কণ্ঠ

    “যাহা বলিব সত্য বলিব।
    সত্য বৈ মিথ্যা বলিব না”।
    .
    ইদানিং কালে কিছু মানুষ আমার প্রতি ভুল ধারণা করতে শুরু করেছে। এদের মাঝে এমনও মানুষ আছে যারা আমাকে একসময় অত্যন্ত ভালবাসত এবং গভীরভাবে শ্রদ্ধা নিবেদন করত।
    কেউ বলছে, আমি নাকি আওয়ামীলীগ হয়ে গেছি। কেউ বলছে, আমি নাকি শাপলার শহীদানের রক্তের সাথে গাদ্দারী করেছি। কেউ বলছে, আমি নাকি আদর্শচ্যুত হয়ে গেছি। আরো কতজনের কত কী মন্তব্য!
    ভালবাসার সেই ভাই/বন্ধুদের তরে আমি বলতে চাই, তোরা বিশ্বাস কর! আমি আওয়ামীলীগ হয়ে যাইনি। শাপলার শহীদানের রক্তের ঋণ আমাকেই শোধতে হবে- সে কথাটাও ভুলে যাইনি। আর আমি পূর্বসূরিদের আদর্শ থেকেও বিচ্যুত হইনি।
    হ্যাঁ, আমি জানি, আমার প্রতি তোমাদের এই ভুল ধারণার উৎপত্তিস্থল কোথায়। আমি আওয়ামীলীগের কাছ থেকে স্বীকৃতি গ্রহণ করেছি… তাইতো?
    শোন! স্বীকৃতিটা ছিল আমাদের পাওনা। এ পাওনা আওয়ামীলীগের কাছে নয়, সরকারের কাছে। স্বাধীনতা উত্তর যখন যে সরকার ছিল সে সরকারেরই দায়িত্ব ছিল আমার এ পাওনা পরিশোধ করা। আজকে যদি আওয়ামীলীগ না হয়ে সরকারে অন্য কোন দল হত আর তারা আমাদের এ পাওনা পরিশোধ করতে চাইতো (ঠিক যেভাবে আওয়ামীলীগ করেছে), আমরা গ্রহণ করতাম। কারণ পাওনা বা ঋণ শত্রু দিয়েছে নাকি মিত্র তা ধর্তব্য নয়। আর স্বীকৃতি পরবর্তীতে যে কওমী অঙ্গনের কিছু মানুষকে অভিনন্দন-বিনোদন নিয়ে উচ্যবাচ্য করতে দেখা যাচ্ছে, এরা গুটিকয়েকজন মাত্র। এদের সােথ একমত নয় আপামর কওমী জনতা।
    আবারো বলছি, কওমীরা আওয়ামীলীগ হয়ে যায়নি। তারা যদি কখনো সুযোগ পেয়ে যায়, শাপলার শহীদানের রক্তের ঋণ শোধ করেই তবে ক্ষান্ত হবে।
    .
    তবুও যদি তোমাদের বুঝে না আসে, আল্লাহর কাছে দুআ করি, আল্লাহ তোমাদের অন্তরচোখের পর্দা সরিয়ে দেন…..

    Facebook Comments



    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম