• শিরোনাম


    চীনের কাছে মুসলিম নির্যাতনের জবাব চাইলো আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি

    | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ১:০৯ অপরাহ্ণ

    চীনের কাছে মুসলিম নির্যাতনের জবাব চাইলো  আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি

    চীনের তথাকথিত শিক্ষাক্ষেন্দ্রে আটক বন্দীদের ভাগ্যে কী ঘটেছে তা জানাতে চীন সরকারের কাছে দাবী জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।
    মানবাধিকার সংগঠনটি উইঘুর মুসলিমদের ওপর ‘পদ্ধতিগত দমন’ অভিযান বন্ধ করতে চীন সরকারকে আহ্বান জানিয়েছে ।
    উল্লেখ্য, চীন সরকার উইঘুরদের আটক করে শিক্ষাকেন্দ্রে রাখার যে বর্ণনা দিচ্ছে জাতিসংঘ, হিউম্যান রাইটস ওয়াচসহ অন্যান্য মানবাধিকার সংগঠন এবং উইঘুর সম্প্রদায় একে ‘নির্যাতনের বন্দি শিবির’ বলছে।
    চীন থেকে পালিয়ে আসা উইঘুর মুসলিমরা সাক্ষ্য দিচ্ছে যে ক্ষুদ্র এই তার্কিক নৃগোষ্ঠীর জনগণকে ব্যাপক হারে ধরপাকড় ও নির্যাতন করা হচ্ছে।
    উইঘুর বন্দিদের জোর পূর্বক ইসলামী অনুশীলন ছাড়তে এবং অন্য যেকোন ধর্মীয় সংস্কৃতি বিশেষ করে হানদের সংস্কৃতি মেনে নিতে বাধ্য করা হচ্ছে।
    অ্যামনেস্টির পূর্ব এশিয়ার পরিচালক নিকোলাস বুকেলিন চীনকে সতর্ক করে বলেছেন, চীন সরকারকে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীদের ওপর অত্যাচার করার সুযোগ দেয়া উচিত নয়।
    বুকেলিন বলেন, বিশ্বের সরকারগুলোকে অবশ্যই জিনজিয়ান স্বশাসিত প্রদেশে উইঘুরদের ওপর যে দুঃস্বপ্ন বয়ে যাচ্ছে তা উন্মোচন করতে চীনকে বাধ্য করতে হবে।
    তিনি আরো বলেন, শত সহস্র উইঘুর পরিবার সরকারের কঠোরতার কারণে নিষ্পেষিত হচ্ছে।
    উইঘুরদের ওপর নির্যাতনের তদন্ত করতে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ১০০ জনের বেশি মানুষের সাক্ষাৎকার নিয়েছে যাদের আত্নীয় স্বজন জিনজিয়ান থেকে গুম হয়েছে।
    সাক্ষাৎকার প্রদানকারী ব্যক্তিরা মনে করছেন, নিখোঁজ ব্যক্তিদের কথিত শিক্ষাকেন্দ্রে বন্দি করে রাখা হয়েছে।
    মানবাধিকার সংগঠনগুলো মনে করছে, বন্দি শিবিরে যারা ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করতে সরকারের নির্দেশনা মেনে চলছেন না তাদের ওপর কঠোর নির্যাতন করা হচ্ছে।
    এ বিষয়ে বুকেলিন বলেন, বিশাল সেই বন্দি শিবির করা হয়েছে মগোজ ধোলাই, নির্যাতন ও শাস্তি প্রদানের জন্য।
    চীন বরাবরই এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তবে উইঘুরদের অবস্থা যাচাই করতে সাংবাদিক বা মানবাধিকার সংগঠনের কাউকে কথিত শিক্ষা কেন্দ্রে চীন সরকার যেতে দেয়নি।

    Facebook Comments



    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম