• শিরোনাম


    চামড়ার ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মনে চাপাক্ষোভ।

    রিপোর্ট: মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি | ১৪ আগস্ট ২০১৯ | ৭:২৭ পূর্বাহ্ণ

    চামড়ার ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মনে চাপাক্ষোভ।

    ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কোরবাণীর পশুর চামড়ায় ব্যপক দরপতন হয়েছে। চামড়ার ন্যয্যমূল্য গরীবের হক হওয়ায় তার যথাযথ মূল্য না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে মাদ্রাসার ছাত্র, শিক্ষক সহ সাধারণ জনগণ। কোরবাণীর পশুর চামড়ার দরপতন করে এক শ্রেণির মুনাফালোভী ব্যক্তিবর্গ গরীবের হক নষ্ট করছে বলে স্থানীয় ভুক্তভোগীদের অভিযোগ।
    দেশের কওমী মাদ্রাসাগুলো কোরবানির সময়ে চামড়া কালেকশন করে তা বিক্রির মাধ্যমে পাওয়া অর্থ দিয়ে শরিয়তের বিধিবিধান অনুযায়ী মাদ্রাসার গরীব, অসহায় ছাত্রদের অন্য বাসস্থান , ও শিক্ষা সামগ্রী সহ তাদের প্রয়োজনীয় সবকিছুর ব্যবস্থা করে থাকে।
    কিন্তু এবছর চামড়ার ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় স্থানীয় মাদ্রাসা শিক্ষানুরাগীদের মনে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।বিভিন্ন মাদ্রাসার দায়িত্বশীলদের সাথে এবিষয়ে কথা বললে তারা বলেন চামড়া নিয়ে এবছর যা ঘটেছে তা দেশের ইতিহাসে এক ন্যাক্কারজনক ঘটনা।
    তারা বলেন মাদ্রাসা শিক্ষাব্যবস্থাকে বাধাগ্রস্ত করতে দেশী-বিদেশী আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের অংশ কিনা তা ও খতিয়ে দেখতে কওমী মাদ্রাসার সর্বোচচদায়িত্বশীলদের ভাববার সময় এসেছে। এমনকি কেউকেউ কওমী ঘরানার বিত্তবানদের আগামীতে নিজস্ব ট্যানারি করার প্রস্তাব ও দেন। যেন এই ট্যানারিতেই সারাদেশের মাদ্রাসার চামড়াগুলো একত্রিত করে তা বাজারজাত করনের পক্রিয়া করা যায়।

    কোরবাণীর পশুর ন্যায্য বাজারমূল্য নিশ্চিত করে কওমী মাদ্রাসা শিক্ষাব্যবস্থাকে দেশী-বিদেশী আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রকারীদের হাত থেকে রক্ষা করতে সরকারের সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের প্রতি দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় কওমী মাদ্রাসার শিক্ষার্থী, শিক্ষকবৃন্দ সহ মাদ্রাসা শিক্ষানুরাগী সংশ্লিষ্ট জনেরা।



    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম