• শিরোনাম


    চরবাটা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন জামিনে মুক্ত

    মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি | ২০ জানুয়ারি ২০২০ | ৬:২৩ পূর্বাহ্ণ

    চরবাটা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন জামিনে মুক্ত


    নোয়াখালী জেলার সুবর্ণচর উপজেলার ২ নং চরবাটা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন গতকাল দুপুর ১১:০০ ঘটিকার সময় নোয়াখালী জেলা দায়রা জর্জ কোর্ট থেকে জামিন লাভ করেন।

    গত ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং স্হানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়,স্হানীয় সরকার বিভাগ এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানান যে,নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০(সংশোধিত ২০০৩) এর ৯(১)৩০ ধারাদ্বয় দন্ডবিধির ৩৪২/৩২৩/৪৩/৫০৬(২) ধারার মামলার অভিযোগ বিজ্ঞ আদালত কৃর্তৃক গৃহীত হওয়ায় জনস্বার্থে তার দ্বারা ইউনিয়ন পরিষদে ক্ষমতা প্রয়োগ প্রশাসনিক দৃষ্টিকোণ থেকে উচিত নয় বলে সরকার মনে করেন। তাই চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন মামলা হওয়ার কারনে জনগনের নায্য অধিকার আদায়ে,সেবা প্রধানের লক্ষে,রাষ্ট্রীয় আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে গত ১/১/২০২০ ইং বিজ্ঞ আদালতে উপস্হিত হয়ে আত্নসমর্পন করে জামিনের জন্য আবেদন করেন।কিন্তুু বিজ্ঞ আদালত জামিন আবেদন না মন্জুর করে চেয়ারম্যানকে কারাগারে প্রেরিত করার নির্দেশ দেন।



    চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন আদালতের প্রতি সম্মান রেখে,সকল আইনি প্রক্রিয়া সম্পূন্ন করে গতকাল জামিনে মুক্তি লাভ করেন।

    ২ নং চরবাটা ইউনিয়নের শত শত নেতা কর্মীরা সকাল ১০ ঘটিকা হতে আদালত চত্বরে অপেক্ষায় থাকে, কখন প্রিয় চেয়ারম্যানের মোজাম্মেল হোসেনের জামিন হবে তার জন্য। আওয়ামিলীগ,যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদের দেখা যায় চেয়ারম্যানকে এক নজর দেখতে অপেক্ষা করতে দীর্ঘ সময়।

    সকল আইনি প্রক্রিয়া শেষে, আদালত চত্বরে চেয়ারম্যান কে ফুলের মালা দিয়ে বরণ করে নেন নেতা কর্মীরা। এসময় উপস্থিত ছিলেন মোঃ বোরহান উদ্দিন,সভাপতি ৮ নং ওয়ার্ড যুবলীগ,নিজাম উদ্দিন,কামরুল ডুবাই, আওয়ামিলীগ নেতা মোঃ সোহাগ ছাত্রলীগ নেতা, ২ নং চরবাটা,সোহাগ, আকবর হোসেন শাহনাজ মেম্বার,আবু মেম্বার,আবুল খায়ের,টুটুল,সেন্টু,আরাফাত ও শামীম সহ আরো অনেকে।

    চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন বলেন,আমি একটি মহলের রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার যার কারণে বার বার আমাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে।সামাজিক,রাজনৈতিক,ও অর্থনৈতিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করতেছে। উক্ত রাজনৈতিক মহল ভেবে ছিলো,২নং চরবাটা ইউনিয়নে আমার জনপ্রিয়তা হ্রাস করে তারা প্রভাব বিস্তার করবে চরবাটার মাটিতে। আমার বাবা মরহুম হাজী মোশারফ হোসেন ২ নং চরবাটার প্রথম নিরবার্চিত চেয়ারম্যান ছিলেন।তার অবদান ২ নং চরবাটার মানুষ মনে রেখে আমাকে বিপুল ভোটে নিরবার্চিত করেন।আর আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ মনে করে যে,আমাকে মামলা দিয়ে,মিথ্যাচার করে,হয়রানি করে,তার ক্ষমতাবল প্রয়োগ করবে ২ নং চরবাটাতে।কিন্তুু ২ নং চরবাটার জনগন তাদের প্রত্যাক্ষান করে আমাকে, তাদের ভালোবাসা দিয়ে মুক্ত করে আনেছেন।আমি আছি থাকবো,চরবাটার মানুষের সাথে যত ষড়যন্ত্র করা হোক না জনগন আমার পাশে আছে।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম