• শিরোনাম


    গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদে (কোভিড-১৯)প্রতিরোধ বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

    এম.এ. রহিম, গোয়াইনঘাট উপজেলা প্রতিনিধি (সিলেট) | ১৮ এপ্রিল ২০২০ | ৮:০৪ অপরাহ্ণ

    গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদে (কোভিড-১৯)প্রতিরোধ বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

    সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
    শনিবার দুপুর ১২ঘটিকায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে করোনা ভাইরাস বিষয়ক জরুরী সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.নাজমুস সাকিবের সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

    এসময় প্রধান অতিথি হিশেবে উপস্থিত থেকে দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোছাঃ শারমিন সুলতানা।
    করোনাভাইরাস নিয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দেন তিনি।



    তিনি বলেন কোভিড-১৯ যা করোনা ভাইরাস নামে পরিচিত – সাম্প্রতিক সময়ে গণমাধ্যমের শিরোনামে প্রাধান্য বিস্তার করেছে কোভিড-১৯। এশিয়ার বিভিন্ন অংশ এবং এর বাইরেও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস।
    সাধারণ সতর্কতা অবলম্বন করে আপনারা এই ভাইরাসটির সংক্রমণ ও বিস্তারের ঝুঁকি কমিয়ে আনতে পারবেন।

    কতটা ভয়ংকর এই ভাইরা…?
    শ্বাসতন্ত্রের অন্যান্য অসুস্থতার মতো এই ভাইরাসের ক্ষেত্রেও সর্দি, কাশি, গলা ব্যথা এবং জ্বরসহ হালকা লক্ষণ দেখা দিতে পারে । কিছু মানুষের জন্য এই ভাইরাসের সংক্রমণ মারাত্মক হতে পারে। এর ফলে নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট এবং অর্গান বিপর্যয়ের মতো ঘটনাও ঘটতে পারে। তবে খুব কম ক্ষেত্রেই এই রোগ মারাত্মক হয়। এই ভাইরাস সংক্রমণের ফলে বয়স্ক ও আগে থেকে অসুস্থ ব্যক্তিদের মারাত্মকভাবে অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

    করোনা ভাইরাসসহ অন্যান্য রোগের বিস্তার সীমিত পর্যায়ে রাখতে মেডিক্যাল মাস্ক সাহায্য করে।
    তবে এটার ব্যবহারই এককভাবে সংক্রমণ হ্রাস করতে যথেষ্ঠ নয়! নিয়মিত হাত ধোয়া এবং সম্ভাব্য সংক্রমিত ব্যক্তির সাথে মেলামেশা না করা এই ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি কমানোর সর্বোত্তম উপায় রয়েছে।

    যে কোন বয়সের মানুষই এই ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে। তবে একটি বিষয় লক্ষ্যণীয় যে, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শিশুদের ক্ষেত্রে এখনও পর্যন্ত কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। প্রধানত: আগে থেকে অসুস্থ বয়স্ক ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে এই ভাইরাস মারাত্মক হতে পারে।

    তবে শহরাঞ্চলের দরিদ্র শিশুদের ক্ষেত্রে এই ভাইরাসের পরোক্ষ প্রভাব রয়েছে।
    এসব প্রভাবের মধ্যে রয়েছে বিদ্যালয় বন্ধ থাকা, যা সম্প্রতি মঙ্গোলিয়ায় দেখা গেছে। এই করোনাভাইরাসটি ভয়াবহ গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে। এটি প্রতিরোধ করার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা অত্যন্ত জরুরি।
    শিশুদের উপর এই ভাইরাসের প্রভাব বা এতে কতজন আক্রান্ত হতে পারে- সে সম্পর্কে আমরা এখনও বেশি কিছু জানি না। কিন্তু নিবিড় পর্যবেক্ষণ ও প্রতিরোধ এক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে হয়।

    এসময় উপস্থিত ছিলেন গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদের সুযোগ্য চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ফারুক আহমেদ, ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা গোলাম আম্বিয়া কয়েছ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফিয়া বেগমসহ উপজেলার সকল ইউপি চেয়ারম্যান ও বিভাগীয় কর্মকর্তারা।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম