• শিরোনাম


    গাইবান্ধার আবেদার ভাগ্যে জোটেনি বয়স্ক ভাতা

    | ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ | ৫:২৬ অপরাহ্ণ

    গাইবান্ধার  আবেদার ভাগ্যে জোটেনি বয়স্ক ভাতা

    বয়সের ভারে ন্যুব্জ ৮০ থেকে ৮৫ বয়সের বৃদ্ধা আবেদা বেওয়া। বাড়ি গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের মনোহরপুর গ্রামে (ওয়ার্ড নং ৮)।

    প্রায় নয় বছর আগে স্বামী মারা যাওয়ার পর এক ছেলে ও পাঁচ মেয়ের জননী এখন চার শতক বসত ভিটেতে একাই জীবন যাপন করছেন। মেয়ে পাঁচটির বিয়ে হয়ে গেছে অনেক আগেই। একমাত্র ছেলে রাজা মিয়া ঢাকার একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে খুব অল্প বেতনের চাকরি করেন। তাতে তার নিজ সংসারের প্রয়োজন মিটে না।



    তাই চলতে ফিরতে না পারলেও আবেদা বেওয়াকে খুব কষ্ট করে দু’হাতে লাঠি নিয়ে খুড়ে খুড়ে এ বাড়ি ও বাড়ি গিয়ে ভিক্ষা করে পেটের অন্য জোগাড় করতে হয় এখনও। তাতে বর্তমানে বৃদ্ধার শরীরের প্রয়োজনমত নিয়মিত খাবার ও পুষ্টি জোটে না। চিকিৎসা সে তো তার কাছে অমাবস্যার চাঁদ। তারপরও দুই বার পা ভেঙ্গে গেলে ছেলে রাজা মিয়া ধারকর্জ করে চিকিৎসা করে মায়ের অসুস্থতার চিকিৎসা করেছেন।

    শুক্রবার ওই এলাকায় গেলে হঠাৎ দেখা হয় আবেদা বেওয়ার সঙ্গে। এসময় তাকে জিজ্ঞেস কর হয় ‘আপনি কি বয়স্ক ভাতা পান ?’ চোখে মুখে হতাশা ও অভিমান নিয়ে অসহায়ভাবে মাথা নাড়িয়ে বললেন না। আবার প্রশ্ন, ‘কখনো পেয়েছেন?’ এবারো উত্তরে বলেন, না।

    ওই বৃদ্ধার প্রতিবেশী সন্তোষ বলেন, এই বৃদ্ধাকে কখনো কেউ কোনো প্রকার ভাতা দেয়নি। তিনি খুব অসহায়

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম