• শিরোনাম


    খুলনা বিভাগীয় জাদুঘর, এ যেন আমার ঘরের পাশে অদেখাঘর: এস.এম. শাহনূর

    | ১৩ জুলাই ২০১৯ | ১:১৯ অপরাহ্ণ

    খুলনা বিভাগীয় জাদুঘর, এ যেন আমার ঘরের পাশে অদেখাঘর: এস.এম. শাহনূর

    প্রশস্ত সিঁড়ি দিয়ে ওঠার পথেই চোঁখ আটকে গেলো থরে থরে সাজানো মুক্তিযুদ্ধের নানা ছবির উপর।দু’তলায় ঘুরে ঘুরে দেখা মিললো শত বছরের পুরনো শিবমূর্তী, পুরনো দিনের জমিদার বাড়ির ব্যবহৃত বাসন, অলংকার, হাতিয়ার,পাথরে খোদাইকরা দরূদ শরীফ,পরিত্র কোরআন মজিদের বেশ কিছু সুরা প্রভৃতি।

    আধো আলো,আধো আধারীর ৬টি গ্যালারির প্রতিটিতে আপনি হারিয়ে যাবেন কখনো মোগল,পাল,পট্টিকের কিংবা খ্রীস্টপূর্ব হাজার বছর আগের ইতিহাসে।
    এখানে রয়েছে বেশ কিছু শিলালিপি। যার অনেকগুলোর অর্থ উদ্ধার করা হয়েছে।১৯৯৮ সালে এই জাদুঘরটি প্রতিষ্ঠিত হয়।জাতীয় জাদুঘরের আওতায় ও প্রত্নতত্ত অধিদপ্তরের তত্তাবধানে জাদুঘরটি পরিচালিত। আয়তনের দিক থেকে এটি দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম জাদুঘর।ধীরে ধীরে প্রতিষ্ঠানটি এলাকাবাসীর বিনোদন এবং জ্ঞান অর্জনের জন্য বেশ পরিচিত হয়ে উঠেছে।



    জাদুঘর একটি অনানুষ্ঠানিক শিক্ষা কেন্দ্র। সিরিয়াস দর্শনার্থী বা Highly Sophisticated না হলে প্রত্নতাত্ত্বিক জাদুঘর পরিদর্শনকালে আপনি হয়তো নিরানন্দ,নিষ্প্রাণ,একঘেঁয়েমী কিংবা হতাশা
    বোধ করতে পারেন, এমনকি আপনার কাছে তা যথেষ্ট উপভোগ্য নাও হতে পারে।পোঁড়ামাটি, ইট, কাঠ ও পাথর কিংবা ধাতব উপাদানে নির্মিত জাদুঘর এর প্রতিটি পুরাবস্তুর পরতে পরতে লুকিয়ে আছে ইতিহাসের সব বিচিত্র উপাদান ও বিমুর্ত ইতিহাস। যা হাজার পৃষ্ঠার ইতিহাস গ্রন্থ অধ্যয়নের চেয়েও তা উত্তম,ফলপ্রসূ ও কার্যকরী।

    খুলনা নিউ মার্কেট ও খুলনা রেলওয়ে স্টেশনের মাঝামাঝি-খুলনা জেলার শিববাড়ী ট্রাফিক মোড়ের জিয়া পাবলিক হলের পাশেই প্রতিষ্ঠিত
    খুলনা জাদুঘর।দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রাপ্ত নানান প্রত্নতাত্তিক নিদর্শন বিশেষ করে ঝিনাইদহের বারবাজার, যশোরের ভরত ভায়ানা এবং বাগেরহাটের খানজাহান আলী সমাধিসৌধ খননের ফলে প্রাপ্ত নানান দুর্লভ নিদর্শন প্রদর্শিত হচ্ছে এ জাদুঘরে।
    এ জাদুঘরে দেশের দক্ষিণ অঞ্চলের বিভিন্ন ঐতিহ্য খ্যাত আলোকচিত্র দেখা যাবে,তার মধ্যে বিশ্ব ঐতিহ্য খ্যাত ষাটগম্বুজ জামে মসজিদ, নয়গম্বুজ মসজিদ, রনবিজয়পুর মসজিদ, জিন্দা পীরের মসজিদ, সোনা বিবির মসজিদ, সিঙ্গারা মসজিদ, দীদার খার মসজিদ, আনোয়ার খার মসজিদ, আহমদ খার মসজিদ, চিল্লাখানা, খানজাহান আলী (র.) এর বসতভিটা ও দীঘি, কোতয়ালী, কালোদীঘি, বিবি গোগিনীর মসজিদ এবং দশ গম্বুজ মসজিদসহ বৃহত্তর খুলনা,
    যশোর , বাগেরহাট , সাতক্ষীরা , নড়াইল ,
    মাগুরা, কুষ্টিয়া , ঝিনাইদহ , মেহেরপুর অঞ্চলের। এছাড়াও সারা দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রত্নতত্ত স্থাপনার আলোকচিত্র এখানে দেখা যাবে।
    আলোকচিত্র ছাড়া জাদুঘরে দেখা যাবে গুপ্ত, পাল, সেন, মোগল ও ব্রিটিশ আমলের নানা রকম পুরাকীর্তির নিদর্শন, পোড়ামাটির বিভিন্ন মূর্তি, কষ্টি পাথরের মূর্তি, কালো পাথরের মূর্তি, তামা, লোহা, পিতল, মাটি ও কাচের তৈজসপত্র, বিভিন্ন ধাতুর তৈরি অস্ত্র, বিভিন্ন খেলনা, নানা রকম ব্যবহার্য সামগ্রী, মোগল আমলের স্বর্ণ ও রৌপ্য মুদ্রাসহ বৃহত্তর খুলনা অঞ্চলসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির হাজার বছরের পুরনো নিদর্শনসমূহ।একটু অনুসন্ধিৎসু, কৌতুহলী হয়ে উঠলে আপনি এই জাদুঘর পরিদর্শন করে পেতে পারেন বাংলা ও বাঙালির হাজার বছরের সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের ছোঁয়া,দুর্লভ সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের অমূল্য উপাদান।আপনি হয়ে উঠতে পারেন জ্ঞানদীপ্ত, প্রত্নমনস্ক একজন আলোকিত মানুষ।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম