• শিরোনাম


    কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন নোয়াখালী সুবর্ণচরের কামার শিল্পীরা

    রিয়াজ উদ্দিন রুবেল, স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী। | ২৮ জুলাই ২০২০ | ৯:৪২ পূর্বাহ্ণ

    কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন নোয়াখালী সুবর্ণচরের কামার শিল্পীরা

    পবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন নোয়াখালী সুবর্ণচরের কামারশিল্পীরা। দিন রাত টুং টাং শব্দে মুখরিত হচ্ছে উপজেলার হাট-বাজারসহ কামার শিল্পীদের দোকানগুলোতে।

    সুবর্ণচর উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের কামার দোকানগুলোতে কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে দা, বটি, চাকু, চাপাতিসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম তৈরি ও মেরামতের কাজ করছে কামার শিল্পীরা। দম ফেলারও সময় যেন তারা পাচ্ছেন না। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত তারা কাজ করছেন। কামারশিল্পীরা বিভিন্নস্থান থেকে লোহা কিনে এনে সেগুলো আগুনে পুড়িয়ে দা, বটি, চাপাতি, চাকুসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র তৈরি করছেন।



    কোরবানিতে পশু জবাই ও গোস্ত কাটাকুটিতে এসব ব্যবহার্য জিনিসপত্র স্থানীয়রা কিনে থাকেন। বর্তমানে আধুনিক যন্ত্রাংশের প্রভাবে কামার শিল্পের দুর্দিন চললেও পবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে জমে উঠেছে এ শিল্প। ঈদ মৌসুমে কেউ কেউ রাস্তার পাশে খোলা জায়গায় অস্থায়ী দোকান বসিয়ে দা, ছুরি, চাকু বিক্রি করছেন। কোরবানির পর এমন অস্থায়ী দোকানগুলা আর দেখা মিলবে না।

    অমূল্য চন্দ্র মজুমদার নামে এক কামার শিল্পী জানান,এক সময় আমাদের লোহার তৈরি দা, বটি, চাপাতি, চাকুসহ বিভিন্ন জিনিসপত্রের যে কদর ছিল বর্তমানে তা আর নেই। মেশিনের সাহায্যে বর্তমানে আধুনিক যন্ত্রপাতি তৈরি হচ্ছে। ফলে আমাদের তৈরি যন্ত্রপাতি মানুষ তেমন একটা কিনছেন না। হয়তোবা এক সময় এই পেশাই আর থাকবে না। তবে কোরবানির ঈদের সময় আমরা একটু আশাবাদী হই। আমাদের পূর্বপুরুষরা এই কাজ করে আসছেন তাই আমরা সে পেশা ধরে রেখেছি। সারা বছর তেমন কোনো কাজ না থাকলেও কোরবানির সময় আমাদের তৈরি সরঞ্জামের চাহিদা বেড়ে যায়। একটি দা, বটি ও ছুরি শান দিতে ৫০ থেকে ৮০ টাকা আর তৈরি করতে গেলে মজুরিসহ এক কেজি ওজনের একেকটি দা, বটি, চাপাতি ৮০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

    তিনি আরো বলেন, এই পেশায় এখনো আমরা যারা আছি তারা খুবই অবহেলিত। বর্তমানে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের দাম বেশি হলেও সে অনুযায়ী আমরা আমাদের তৈরি করা সরঞ্জামের ন্যায্যমূল্য পাই না। এখন আমাদের লোহাও বেশি দামে কিনতে হয়। এই পেশায় থেকে পরিবার পরিজন নিয়ে সংসার চালাতে খুবই কষ্ট হয়। ভবিষৎতে হয়তো এ শিল্প একদিন হারিয়ে যাবে।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম