• শিরোনাম


    কেমিক্যাল নয় গ্যাস সিলিন্ডার থেকেই আগুন শিল্প মন্ত্রণালয়ের তদন্ত প্রতিবেদন।

    | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৬:০৩ অপরাহ্ণ

    কেমিক্যাল নয় গ্যাস সিলিন্ডার থেকেই আগুন শিল্প মন্ত্রণালয়ের তদন্ত প্রতিবেদন।

    রাজধানীর চকবাজারের অগ্নিকান্ডের জন্য গ্যাস সিলিন্ডারের বিস্ফোরণকে প্রাথমিকভাবে দায়ী করেছে শিল্প মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কেমিক্যাল বা রাসায়নিকের জন্য অগ্নিকান্ড হয়নি। ওয়াহেদ ম্যানসনের সামনে একটি গাড়ির গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। অগ্নিদগ্ধ কারও দেহে কেমিক্যালের চিহ্ন বা গন্ধ পাওয়া যায়নি।

    গতকাল বৃহস্পতিবার মন্ত্রণালয়ের প্রাথমিক তদন্তের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাত ১০টা ৩৫ মিনিটে চকবাজার এলাকার চুড়িহাট্টা জামে মসজিদ সংলগ্ন আসগর লেন, নবকুমার দত্ত রোড ও হায়দার বক্স লেনের মিলনস্থলে অগ্নিকান্ড সংঘটিত হয়। এই গলিপথের একপাশে ওয়াহেদ ম্যানসন। অন্যপাশে বাচ্চু মিয়ার গলি। ওয়াহেদ ম্যানসনের নিচতলায় হোটেল ও ওপরের তলায় কসমেটিকসের গুদাম ছিল। এর আশপাশের কয়েকটি দোকানে বিক্রির জন্য প্লাস্টিকের গ্রেনুলার রাখা ছিল।



    আশপাশে কেমিক্যালের কোনো কারখানা বা গোডাউন (গুদাম ঘর) ছিল না। এলাকাবাসীর ভাষ্য অনুযায়ী, এলাকায় গ্যাস সিলিন্ডারবাহী একটি গাড়ি রাখা ছিল। এ সময় হোটেল অথবা গাড়িতে রাখা একটি গ্যাস সিলিন্ডার হঠাত্ করে বিস্ফোরিত হয়। ওই বিস্ফোরণে আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। ওই আগুন বৈদ্যুতিক লাইনের ট্রান্সফরমারে ধরে যায়। এতে ওই ট্রান্সফরমারে বিস্ফোরণ ঘটে। এর ফলে ওই পুরো এলাকা অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। ওই স্থানের বাসিন্দারা অন্ধকারে বের হওয়ার পথ হারিয়ে ফেলেন। ওয়াহেদ ম্যানসন ও বাচ্চু মিয়ার বাড়ি সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। এ ছাড়া আশপাশের বেশ কয়েকটি বাড়িঘর অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সিলিন্ডারবাহী গাড়িটি সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়েছে। রাস্তায় কসমেটিকসের প্রচুর বোতল ও প্লাস্টিকের গ্রেনুলার ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকতে দেখা গেছে।

    প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, অগ্নিকান্ডে এ পর্যন্ত ৭৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালের চিকিত্সকেরা নিশ্চিত করেছেন যে, ভর্তি হওয়া অগ্নিদ্বগ্ধ কারও দেহ থেকে কেমিক্যালের চিহ্ন অথবা গন্ধ পাওয়া যায়নি। এ ছাড়া অগ্নিদগ্ধ দেহগুলো ড্রাই ফ্লেমে দগ্ধ ছিল।

    অগ্নিকান্ডের কারণ অনুসন্ধান, প্রাথমিক ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ, অগ্নি দুর্ঘটনা পুনরাবৃত্তি রোধে সুপারিশ পেশের জন্য ১২ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ মফিজুল হককে আহ্বায়ক করে গঠিত এই কমিটিকে পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। এই কমিটি ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছে।

    এদিকে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, শিল্প সচিব আবদুল হালিম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মহাপরিচালক-১ মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিনসহ শিল্প মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের কর্মকর্তারা চকবাজারের অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় শিল্পমন্ত্রী জনসাধারণ, প্রত্যক্ষদর্শী ও ভুক্তভোগীদের সঙ্গে দুর্ঘটনার সূত্রপাত এবং ক্ষতিগ্রস্ত ভবনগুলোর বিষয়ে কথা বলেন। এ ছাড়া মন্ত্রী ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে বার্ন ইউনিটে ভর্তিকৃত আহত, দগ্ধ রোগী ও চিকিত্সকদের সঙ্গে কথা বলেন

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম