• শিরোনাম


    কাতারে আপনার পাসপোর্ট কোম্পানি আটকে রাখলে কী করবেন?

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৯ জুন ২০২১ | ১:১৮ পূর্বাহ্ণ

    কাতারে আপনার পাসপোর্ট কোম্পানি আটকে রাখলে কী করবেন?

    কোম্পানি যদি কর্মীদের পাসপোর্ট অফিসে জমা রাখে,
    তবে তা বেআইনি ও অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে

    কাতারে কর্মরত কোনো বিদেশি কর্মীর পাসপোর্ট তাঁর কোম্পানির নিয়োগকর্তা (মুদির বা মালিক, পুরনো ভাষায় যাকে কফিল বলা হয়) কখনো আটকে রাখতে পারবে না। কোনো কোম্পানি যদি কর্মীদের পাসপোর্ট অফিসে জমা রাখে, তবে তা বেআইনি ও অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। এই অপরাধে শাস্তির বিধান রয়েছে কাতারে অভিবাসন আইনে।



    কাতারে বিদেশিদের প্রবেশ, বসবাস ও দেশত্যাগ সম্পর্কে যে আইন রয়েছে, এটিকে ২০১৫ সালের ২১ নং আইন বলা হয়ে থাকে। এই আইনের আট নং ধারায় বলা হয়েছে, কোম্পানির মালিক বিদেশি কর্মীর জন্য কাতারে বৈধভাবে বসবাসের পরিচয়পত্র (ইকামা) তৈরি করে দেওয়ার পর কর্মীর কাছে তার পাসপোর্ট হস্তান্তর করবে।

    তবে যদি ওই কর্মী লিখিতভাবে নিজের পাসপোর্ট কোম্পানির কাছে জমা রাখার আবেদন করে তবে চাহিবামাত্র হস্তান্তর শর্তে সেটি কোম্পানির মালিক জমা রাখতে পারেন।

    ফলে কাতারের কোনো কোম্পানি যদি কর্মীদের লিখিত আবেদন ছাড়া জোর করে পাসপোর্ট আটকে রাখে, তবে এই অপরাধে ওই কোম্পানিকে আর্থিক জরিমানা গুনতে হবে।

    এ বিষয়ে বিদেশি কর্মীদের জন্য প্রণীত আইনের ৩৯ নং ধারায় বলা হয়েছে, কর্মীর পাসপোর্ট আটকে রাখার অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হলে কোম্পানিকে ২৫ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে।

    কাজেই কাতারে কর্মরত প্রত্যেক বিদেশি কর্মী নিজের পাসপোর্ট নিজের কাছে রাখতে চাওয়া তাঁর আইনি অধিকার। কোনো কোম্পানি যদি জোর করে পাসপোর্ট জমা নেয়, তবে এক্ষেত্রে ওই কর্মী অবশ্যই কোম্পানির বিরুদ্ধে অভিযোগ বা মামলা দায়ের করতে পারেন।

    তবে কখনো কখনো অনেক কর্মী সুরক্ষার জন্য নিজের পাসপোর্ট তাঁর কোম্পানির কাছে জমা রাখতে চান, সেক্ষেত্রে ওই কর্মী লিখিতভাবে বিষয়টি জানিয়ে তারপর পাসপোর্ট জমা দেবেন।

    এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে কোনো প্রতিষ্ঠান যদি নিজের পক্ষ থেকে কর্মীর নামে আবেদন লিখে তাতে কর্মীর স্বাক্ষর নিয়ে পাসপোর্ট আটকে রাখার প্রতারণা না করতে পারে, সে ব্যাপারে অবশ্যই কর্মীকে সচেতন থাকতে হবে।

    কোম্পানির পক্ষ থেকে যে কোনো সময় কোনো কাগজে স্বাক্ষর করতে বলা হলে তাতে কী লেখা রয়েছে, তা জানতে চাওয়া একজন সচেতন কর্মীর অবশ্য কর্তব্য।

    মনে রাখবেন, কোনো সাদা কাগজে স্বাক্ষর করা মানে নিজের উপর অজানা বিপদ ডেকে আনা। তাই এ ধরণের অন্ধবিশ্বাস বা বোকামি থেকে অবশ্যই দূরে থাকতে হবে।

    বিদেশে বসবাসকালে আপনার পাসপোর্ট আপনার সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ। এটি হারিয়ে গেলে আপনি নিজের দেশে ফেরত যাওয়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবেন বা ভোগান্তির মুখোমুখি হবেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে আইনের মুখোমুখি হতে হবে।

    তাই কোনোভাবেই নিজের পাসপোর্ট অন্য কারও কাছে জমা রাখবেন না। আপনার কোম্পানি যদি আপনার পাসপোর্ট আটকে রেখে থাকে, তবে আজই তা নিজের সংগ্রহে নিয়ে নিন নয়তো পুলিশের কাছে অভিযোগ করুন।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম