• শিরোনাম


    কওমি সনদের স্বীকৃতিতে তিন ধরনের মানুষ নাখুশ। মিসেস আলিমা শাহিদা

    | ০৫ অক্টোবর ২০১৮ | ৬:০৯ পূর্বাহ্ণ

    কওমি সনদের স্বীকৃতিতে তিন ধরনের মানুষ নাখুশ। মিসেস আলিমা শাহিদা

    ১.কওমি কিছু আলেম।
    (ক) যারা বিএনপি পন্থী রাজনীতিবিদ। তাঁরা চান ম্যাডাম খালেদা ‘কওমি সনদে’র স্বীকৃতির কৃতিত্ব অর্জন করুক।কিন্ত ম্যাডাম জিয়া যে ব্যর্থ, অতীতে পারেননি তাঁর ঘাড়ে যে শয়তানরা চষেছিলে। আগামিতেও পারবেননা এই কথা বিশ্বাস করতে তাঁরা নারাজ।
    (খ) পরহেজগার কিছু আলেম,তাঁদের ধারনা কওমি মাদ্রাসার স্বকীয়তা নষ্ট হবে। আমরা আশাবাদি স্বকীয়তা নষ্ট হবেনা,ইনশাআল্লাহ।
    কিছু কওমিছাত্র স্বীকৃতিেবিরুধী। যারা ১০ সাবজেক্ট মিলিয়ে ৫০ মার্ক পায়না।তারা বরকতান বুখারী পড়তে চায়।
    এই আশা বাদ দিন।যোগ্য হয়ে উঠুন,ফায়দা হবে।
    ভালো করে পড়তে না জানলে বরকত হবে কিভাবে?
    টেনেটুনে বুখারী না পড়ে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ে নুরানী ট্রেনিং দিয়ে শিক্ষকতায় লাগা উচিত। সময় বাঁচবে,ইনকাম হবে।
    ২.জামাত শিবির।
    এদের মধ্যেও আবার দুই ধরনের লোক।
    (ক) আবেগে বুঝে না বুঝে,হিংশায়,উগ্রতায়। তাদের ধারনা ওদেরকে মাস্টার্সের মান দিয়ে দিচ্ছে ! তাদের কী যোগ্যতা রয়েছে?
    (খ) বুঝে শুনে বিরুদ্বিতা করছেন,এদের ধারনা কওমি শিক্ষার্থিদের সার্টিফিকেট যদি মূল্যায়ন হয়ে যায় তাহলে চাকরিতে আমাদের ভাড়া ভাতে ছাই পড়বে।
    তবে জামাতের কেন্দ্র থেকে প্রধানমন্ত্রীসহ সংলিষ্ট সকলকে অভিনন্দ জানানো হয়েছে। এটা কেন্দ্রের বিচক্ষণতা ও উদারতা(?)। আমরাও এই উদারতার কারনে তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই।
    কওমি সনদের স্বীকৃতির বিরুদ্বিতার আরকেটি কারন হলো,এই সব রাজনৈতিকদের ধারনা স্বীকৃতি পেয়ে যদি কওমিওয়ালারা আওয়ামীলীগে ভোট দিয়ে দেন।
    বাবারা! আপনাদেরতো বুঝা উচিত ছিল সনদের স্বীকৃতি আমাদের অধিকার। অধিকার যেভাবেই হোক আদায় করতে হয়।ভোট আলাদা বিষয়।Sabbir মামা আমাকে একদিন চা’র টেবিলে বলেছিন! ‘আমাকে যদি প্লেট ভরে স্বর্ণ দিয়ে বলা হয় যে স্বীকৃতির বদলে কওমি আলেমরা নৌকায় ভোট দিবে তবুও আমি বিশ্বাস করবনা’।
    ভিন্ন প্রসঙ্গ, তিনি হয়ত নৌকাপ্রেমী। বিশ্বাস অবিশ্বাসের বিষয় আলাদা।সেদিকে যাচ্ছিনা।
    ৩.আরো যারা নাখুশ।
    জাকিরমঞ্জিল,আটরশ্মী,দেওয়ানবাগী,রাজারবাগী,কুতুববাগী এক কথায় সব মাজারপন্থী,বিদাতী, লা মাজহাবি সহ সকল বাতিল ফেরকা এবং জাসদ, বাসদ তসলিমা নাসরিনসহ সকল নাস্তিক কওমি সনদের স্বীকৃতিতে নাখুশ।কারন একটাই, তারা চায়না হক এই দেশে মাথা উঁচু করে দাড়াক।
    স্বীকৃতির স্বীকৃতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দিবে ‘আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া’।
    এখানেও চলছে বিরুদ্বিতা।
    সমালোচকদের প্রতি ভালোবাসা।
    ‘কওমি সনদের স্বীকৃতি’ কওম ও কওমির জন্য মঙ্গলজনক হোক।

    Facebook Comments



    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম