• শিরোনাম


    ওয়াজ কেমন হওয়া উচিৎ? মুফতি দিলাওয়ার হোসাইন সাহেবের গুরত্বপূর্ণ নসিহত৷

    | ১৪ অক্টোবর ২০১৮ | ২:১১ পূর্বাহ্ণ

    ওয়াজ কেমন হওয়া উচিৎ? মুফতি দিলাওয়ার হোসাইন সাহেবের গুরত্বপূর্ণ নসিহত৷

    তিনি বলেন; ওয়াজ বলা হয় এমন আলোচনাকে যার মাধ্যমে মানুষের অন্তর নরম হয়, চোখে পানি আসে এবং শ্রোতামহল আল্লাহমুখী হয়। ইলম তো থাকতেই হবে, সেই সঙ্গে ইলম অনুযায়ী আমল থাকাটাও জরুরি। আমার আব্বাজান রহ. বলতেন, ওয়ায়েজের ইলম ও আমল দেখে তাকে দাওয়াত দাও।

    মনগড়া ওয়াজ ইসলামের জন্য ক্ষতিকর উল্লেখ করে তিনি বলেন, একজন দাঈর ক্ষেত্রে সর্বপ্রথম যে জিনিসটা দরকার সেটা হলো কুরআন হাদিসের পাশাপাশি বিশুদ্ধ জ্ঞান থাকা। ইতিহাস থেকে উদাহারণ দিতে ইতিহাসের বিশুদ্ধ জ্ঞান জানতে হবে। ফিকাহ শাস্ত্রে পারদর্শী হতে হবে।



    প্রচলিত ওয়াজ মাহফিলের রীতি ভেঙে কুরআন হাদিসের বিশুদ্ধ জ্ঞান সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে মুফতি দিলাওয়ার হোসাইন বলেন, এখন মানুষ আর সুর চায় না, বিশেষ করে শিক্ষিত মহল৷

    আমি তখন মারকাযুদ দাওয়াতে খেদমত করি। ১৯৯৬ অথবা ৯৭ এর ঘটনা সেটা। প্রেসক্লাবে এক ওয়াজ মাহফিলে আমাকে দ্বিতীয় বক্তা হিসেবে দাওয়াত দেওয়া হয়। আমি আলোচনা করছিলাম এমন সময়ে প্রধান বক্তা মাওলানা হাবিবুর রহমান যুক্তিবাদী চলে আসলেন। এদিকে, সঞ্চালক তার নাম ঘোষণা করতে আমার কাছ থেকে মাইক নিলেন কিন্তু শ্রোতামহল দাঁড়িয়ে বললেন, আগে হুজুরের বক্তব্য শেষ হবে তারপর প্রধান বক্তা ওয়াজ করবে। দেখেন, আমি সাধারণত সুর দিয়ে ওয়াজ করি না।

    তিনি আরেকটি উদাহারণ দেন। বলেন, আরেকটা ঘটনা বলি, আমি একটি মসজিদে মাসের একটি সপ্তাহ জুমা পড়াই। মসজিদ কমিটি আমাকে বললেন, বাকি সপ্তাহগুলোর জন্য আপনি একজন খতিব নির্ধারণ করে দেন।

    আমি একজনকে পাঠালাম, সে সুর করে আলোচনা করত। মসজিদ কমিটি আমাকে বলল, তাকে নিষেধ করবেন সে যেন সুর ব্যবহার না করে।

    এখান থেকে বুঝুন, শিক্ষিত শ্রোতা মহল সুরের পাগল নয়, তারা কুরআন হাদিসের জ্ঞান চায়। সবশেষে আমি বলব, ওয়ায়েজ যিনি হবেন তিনি লিল্লাহিয়াতের উদ্দেশ্যে ওয়াজ করবেন।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম