• শিরোনাম


    ওলামায়ে কেরাম ও তাবলীগের সাথীদের ওজাহাতী জোড়ে সিদ্ধান্তসমুহ

    গাজী আশরাফ আজহার- বি,বাড়ীয়া ৷ | ২৮ জুলাই ২০১৮ | ২:০৫ অপরাহ্ণ

    ওলামায়ে কেরাম ও তাবলীগের সাথীদের ওজাহাতী জোড়ে সিদ্ধান্তসমুহ

    শনিবার (২৮ জুলাই) রাজধানী ঢাকার মোহাম্মদপুরে তাবলিগ জমাতের সংকট নিরসনে আয়োজিত ওয়াজাহাতি জোড়ে ওলামায়ে কেরাম কিছু সিদ্ধান্ত নেন,পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।
    ________________সিদ্ধান্তসমূহ_______________

    (১)জমহুর ওলামায়ে কেরাম একমত হয়েছেন যে তিনটি মৌলিক কারণে (ক) কোরআন ও হাদিস মনগড়া ব্যাখ্যা (খ) তাবলীগের গুরুত্ব বুঝাতে গিয়ে তাবলীগ ব্যতীত দিনের অন্যান্য মেহনতকে যথা দ্বীনি শিক্ষা, তাসাউফ ইত্যাদি কে হেয় প্রতিপন্ন করা (ঘ) পূর্ববর্তী তিন হজরতজ্বী ( মাওলানা ইলিয়াস রহঃ মাওলানা এনামুল হাসান ও মাওলানা ইউসুফ সাহেব রহঃ) উসূল ও কর্মপন্থা থেকে সরে যাবার কারণে বর্তমানে মাওলানা সাদের অনুসরণ করা সম্পূর্ণভাবে বর্জনীয় ও নিষিদ্ধ ৷
    (২)মাওলানা সাদ সাহেব মাওলানা এনামুল হাসান রহঃ এর রেখে যাওয়া শুরায়ী নেজামকে উপেক্ষা করে আমির দাবি করেছেন, যা শরীয়ত বিরোধী তাই তার কোনরূপ সিদ্ধান্ত-ফয়সালা বা নির্দেশ কাকরাইল তথা বাংলাদেশে বাস্তবায়িত করা যাবে না ৷
    (৩)দারুল উলুম দেওবন্দ আশঙ্কা প্রকাশ করেছে যে, মাওলানা মোহাম্মদ সাদ সাহেব আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের মতাদর্শ থেকে সরে গিয়ে নতুন কোন ফেরকা গঠনের অপচেষ্টা চালাচ্ছে, এহেন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের কোন জামাত বা ব্যক্তি কে নিজামুদ্দিনে পাঠানো বা যাওয়া মুনাসিব হবে না, অনুরূপভাবে নিজামুদ্দিন থেকে আগত কোন জামাতকে বাংলাদেশের কোন জেলায়, থানায়, ইউনিয়নে কাজ করার সুযোগ দেওয়া যাবে না ৷
    (৪)হযরত মাওলানা ইলিয়াস সাহেব রহঃ মাওলানা ইউসুফ রহঃ ও মাওলানা এনামুল হাসান রহঃ এর বাতানো পদ্ধতিতে দাওয়াত ও তাবলীগের কাজ সারা দুনিয়াতে সমাদৃত ও গৃহীত হয়েছে ৷ তাই বাংলাদেশের তাবলীগের কাজ পূর্ববর্তী তিন হযরতের পদ্ধতিতে এবং উলামায়ে কেরামের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হবে, নতুন কোন পদ্ধতি চালু করা যাবে না,কাকরাইল-টঙ্গী ময়দান এবং জেলা মারকাজসহ সকল মারকাজ এই নীতিতেই পরিচালিত হবে ৷
    (৫)কাকরাইল মসজিদের যে সমস্ত শুরা সদস্য আমরণ মাওলানা মোহাম্মদ সাদ সাহেবের ভ্রান্ত আকিদা অনুসরণের হলফনামা করেছেন,যা শরীয়ত পরিপন্থী তাঁরা শুরা সদস্য থাকার যোগ্যতা হারিয়ে ফেলেছেন, অতএব, তাদেরকে তাবলীগের কাজে শুরা ও ফায়সাল না রাখার আহ্বান জানানো যাচ্ছে ৷
    (৬)2018 এর টঙ্গী ইজতেমায় সরকারের সাথে পরামর্শক্রমে আগামী 2019 এর টঙ্গী ইজতেমার জন্য নির্ধারিত তারিখ, প্রথম পর্ব 18-19-20 জানুয়ারি ও দ্বিতীয় পর্ব 25-26-27 জানুয়ারি এর সাথে আজকের মজমা ঐক্যমত পোষন করেছে ৷



    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম