• শিরোনাম


    এই বছর হজে খুতবা দিবেন শায়খ আবদুল্লাহ বিন সোলায়মান

    তাজউদ্দিন তারেক, সৌদি আরব প্রতিনিধি | ২৯ জুলাই ২০২০ | ১২:৩৬ অপরাহ্ণ

    এই বছর হজে খুতবা দিবেন শায়খ আবদুল্লাহ বিন সোলায়মান

    হাজারো কণ্ঠে ‘লাব্বাইকা আল্লাহুম্মা লাব্বাইক’ ধ্বনির মাধ্যমে পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু মঙ্গলবার রাত থেকে। বৈশ্বিক মহামারি প্রাণঘাতিক করোনাভাইরাসের কারণে
    এবার ছোট পরিসরে হজ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এতে অংশ গ্রহন করছেন ১৬০টিদেশর ১০ হাজার হাজী। আগামী বৃহস্পতিবার পবিত্র হজ্জ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এরই মধ্যে এ বছর হজের জন্য নতুন খতিব শায়খ আবদুল্লাহ বিন সোলায়মান আল মানিয়াকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

    এই বছর হজে সৌদি সরকারী ঘোষণায় আরাফার ঐতিহাসিক মসজিদে নামিরায় খুতবা প্রদানকারীর নাম প্রকাশিত হয়েছে, মঙ্গলবার খাদেমুল হারামাইন শরিফাইন বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ এক রাজকীয় ফরমানে খতিবের নাম প্রকাশ করা হয়। সৌদি আরবের শীর্ষ উলামা বোর্ডের সম্মানিত সদস্য মহামান্য শায়েখ ড. আব্দুল্লাহ বিন সুলাইমান আল-মুনী্ হাফিজাহুল্লাহ। সূত্রঃ আখবার সৌদীয়া ২৪.কম। এবার আরবি ভাষার পাশাপাশি থাকছে আরো ১০ ভাষায় খুতবা। সেই তালিকায় স্থান পেয়েছে বাংলা ভাষাও।



    ইতিমধ্যে হজ্জের পবিত্র তীর্থের যাত্রীরা মক্কায় আসতে শুরু করেছেন। এবং হাজীতের গ্রহন করতে পবিত্র নগরী মক্কা এখন সম্পূর্ণ প্রস্তুত। খতিব শায়খ সোলায়মান আগামী বৃহস্পতিবার (৯ জিলহজ) মসজিদে নামিরা থেকে স্থানীয় সময় দুপুর সাড়ে ১২টার পর হজের খুতবা দেবেন। এদিন হজযাত্রীরা মিনা থেকে আরাফাতের ময়দানে উপস্থিত হবেন। আরাফাতের ময়দানে জোহর ও আসরের নামাজ একত্রে পড়া হয়।

    ৮৯ বছর বয়সী শায়খ সোলায়মান আইনজ্ঞ হিসেবে প্রসিদ্ধ। তিনি অরগানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন বা ওআইসির ইসলামিক ফিকহ একাডেমির সদস্য। এর আগে তিনি মক্কা আল মোকাররামা কোর্টের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি সৌদি আরবের বিভিন্ন ব্যাংকের শরিয়া কমিটিতেও আছেন। এ ছাড়া তিনি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে জড়িত।

    শরিয়া আইনে পিএইচডি ডিগ্রিধারী শায়খ সোলায়মান একজন লেখক। শরিয়া শাসনব্যবস্থা ও ইসলামিক অর্থনীতি বিষয়ে তাঁর উল্লেখযোগ্য রচনা রয়েছে।

    ১৯৮১ সাল থেকে টানা ৩৫ বছর হজের খুতবা দিয়েছেন সৌদি আরবের গ্র্যান্ড মুফতি শায়খ আবদুল আজিজ বিন আবদুল্লাহ আশ শায়খ। ২০১৬ সালে তিনি বার্ধক্যজনিত কারণে অবসর নেন। এর পর থেকে প্রতি বছর একজন করে নতুন খতিব নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।

    ২০১৬ সালে হজের খুতবা দেন মসজিদে হারামের প্রধান ইমাম ও খতিব ড. আবদুর রহমান আস- সুদাইস। সুললিত কণ্ঠে কুরআন তেলাওয়াতের দরুণ বিশ্বে ব্যাপক জনপ্রিয় ড. সুদাইস।
    ২০১৭ সালে হজের খুতবা দেন ইসলামি আইনে অভিজ্ঞ ও পণ্ডিত শায়খ ড. সাআদ আশ শাসরি।
    ২০১৮ সালেও হজের খুতবা দেওয়ার জন্য নতুন খতিব নিয়োগ দেওয়া হয়। তিনি হলেন শায়খ ডা. হুসাইন বিন আবদুল আজিজ আশ শায়েখ।
    ২০১৯ সালে শায়খ মুহাম্মদ বিন হাসান আলে শায়খকে হজের খতিব হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। তিনি সৌদি আরবের সর্বোচ্চ উলামা পরিষদ ও মুফতি বোর্ডের সদস্য এবং খাদেমুল হারামাইন শরিফাইন হাদিস কমপ্লেক্সের পরিচালক।

    এইদিকে হজ্বের অনুমতি ছাড়া মিনা, মুজদালিফা এবং আরাফাতের পবিত্র স্থানগুলিতে প্রবেশ করবেন তাদেরকে ১০,০০০ রিয়াল জরিমানা করার বিধান করা হয়েছে এবং দ্বিতীয় বার তা দ্বিগুণ করা হবে।

    দীর্ঘ ৯০ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম সৌদি আরবের বাইরের কোনো দেশ থেকে হজে অংশগ্রহণ করতে আসা হয়নি। এবার সৌদিতে উন্মুক্ত স্থানে হবেনা ঈদুল আযহার জামাত, মসজিদেই আদায় করতে হবে।আরাফার ও ঈদুল আযহার দিন পবিত্র কাবা সর্বসাধারণের জন্য বন্ধ থাকবে। সৌদিতে আগামী ৩১জুলাই পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপিত হবে।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম