• শিরোনাম


    ইসলামী শ্রমনীতি অনুসরন ছাড়া শ্রমিক স্বার্থ রক্ষা হবেনা: নেজামে ইসলাম পর্টি

    | ০১ মে ২০১৯ | ৯:৩০ অপরাহ্ণ

    ইসলামী শ্রমনীতি অনুসরন ছাড়া শ্রমিক স্বার্থ রক্ষা হবেনা: নেজামে ইসলাম পর্টি

    ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা মোঃ আবদুল লতিফ নেজামী শোষণ থেকে মুক্ত হওয়ার লক্ষ্যে দলীয় রাজনীতির বাইরে থেকে নিজেদের সংগঠিত হওয়ার জন্যে শ্রমজীবী মানুষদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন যে, ইসলামী শ্রমনীতি অনুসরন ছাড়া শ্রমিকদের স্বার্থ সংরক্ষণ করা যাবেনা। তিনি বলেন, শ্রমিক সংগঠনকে সত্যিকারের বারগেইনিং এজেন্ট ও সাহসী নেতৃত্ব গড়ে তুলতে হবে। শত বাধা-নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও শ্রমিক সাধারণকে সংঘবদ্ধ থাকতে হবে। বলিষ্ঠ ও সাহসী নেতৃত্বে পরিচালিত ট্রেড ইউনিয়নগুলো শিল্পস্বার্থে এবং শ্রমিকদের কল্যাণে অকুতোভয়ে লড়ে যেতে হবে স্বার্থবাদী মালিকদের বিরুদ্ধে। তিনি বলেন বহু সংগ্রামে প্রাণ বিসর্জন ও নির্যাতন-নিপীড়নের বিরুদ্ধে শ্রমিক শ্রেণীর প্রতিরোধ লড়াইয়ে নিগৃহিত শ্রমজীবী মানুষের সম্মিলিত প্রতিরোধ এবং অর্জনের দিন হিসেবে গোড়াপত্তন হয় পহেলা মে’র। তিনি বলেন, যে প্রাণশক্তি জাতীয় জীবনকে প্রফুল্ল, অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করতে প্রবল ভ’মিকা পালন করছে, স্বার্থবাদী মুনাফাখোর মালিকদের জেদ-জবরদস্তির অনুপ্রবেশের যাতনায় প্রলুব্ধ হয়ে সেই শক্তি নিজস্ব সংগ্রামী ঐতিহ্য জলাঞ্জলী দিয়ে চলেছে ।
    তিনি বুধবার বাদ আসর বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টি মে দিবস উপলক্ষ্যে পুরানা পল্টনস্থ মাওলানা আতহার আলী (রহ.) মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। আলোচনা সভায় মে দিবসের বিভিন্ন দিকের ওপর আলোকপাত করে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শেখ লোকমান হোসেন, মাওলানা একেএম আশরাফুল হক, মুফতি আবদুল কাইয়ূম, আলহাজ¦ মাওলানা মোঃ ওবায়দুল হক প্রমূখ।
    মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী আরো বলেন, উৎপাদনযন্ত্র, উৎপাদন ব্যবস্থা ও বন্টন প্রণালী’র মালিকানায় শ্রমিকদের সম্পৃক্ত করা প্রয়োজন । তিনি বলেন, এখন শ্রমিকদের ওপর নানামাত্রিক শোষণ-নিপীড়ন চলছে । ন্যায্য মজুরি থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে শ্রমিকদের। চলছে বঞ্চনা ও বৈষম্য। তাই মে দিবসের আদর্শ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে শ্রমিকদের সঙ্ঘবব্ধ হতে হবে। অধিকার আদায়ের মাধ্যমেই মে দিবসের পূর্ণতা পাবে। এ লক্ষ্যেই শ্রমিক সমাজকে এগিয়ে যেতে হবে।
    তিনি পরিশেষে বলেন, কারখানা হবে শ্রমিকের। যে উন্নয়নে শ্রমজীবী মানুষের স্বার্থ রক্ষা হবে, সেই কাজে শ্রমজীবী মানুষ তার সর্বস্ব দিয়ে কাজ করতে প্রস্তুত। শ্রমিকদের ন্যায্য অধিকার প্রদানের মাধ্যমে শিল্প বিকাশ এবং উৎপাদন বৃদ্ধি করা সম্ভব এবং এর মাধ্যমেই জাতীয় অর্থনীতি সুদৃঢ় হবে। তবেই শিল্প, শ্রমিক, দেশ ও জাতি সমৃদ্ধ হবে।

    Facebook Comments



    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম