• শিরোনাম


    আরব গবেষকদের বিশ্লেষণে ‘করোনা ভাইরাস’ : মুফতি ছালেহ বিন আব্দুল কুদ্দুস

    লেখক : মুফতি ছালেহ বিন আব্দুল কুদ্দুস, অতিথি লেখক | ০২ এপ্রিল ২০২০ | ৬:৪৪ অপরাহ্ণ

    আরব গবেষকদের বিশ্লেষণে ‘করোনা ভাইরাস’ : মুফতি ছালেহ বিন আব্দুল কুদ্দুস

    বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিকগুলোর সম্পাদকীয় পাতায় প্রকাশিত প্রবন্ধ-নিবন্ধ পড়ে তেমন সুচিন্তা ও গভীরতা অর্জন করা যায় না। এমন লেখক খুবই স্বল্পসংখ্যক যারা নতুনত্ব ও সুচিন্তার আলো ছড়াতে পারেন। রয়টার্স, বিবিসি ইত্যাদি বিশ্বমিডিয়ার অনুকরণজীর্ণতা দৃশ্যমান থাকে সেসব লেখায়। এর বিপরীতে আরববিশ্ব বিশেষত সৌদীআরবের পত্রিকাগুলোর মতামত বিভাগের প্রতিটি বিশ্লেষণ আপনাকে এক চিন্তার জগতে নিয়ে যাবে। আজ আমি করোনা ভাইরাস সম্পর্কে ওসব আর্টিকেলের কিছু খণ্ডাংশ তুলে ধরব। যা আরবের প্রসিদ্ধ দৈনিক “الشرق الأوسط” থেকে গ্রহণ করেছি।

    রিয়াদস্থ আল-ইমাম ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক হামদ আলমাজেদ লিখেন,
    “العقل والمنطق والنظر في المآلات يفرض أن تجعل من جائحة فيروس كورونا وما خلفته من هلاك في الحرث الاقتصادي، والنسل البشري والأمن الاجتماعي، محطة تأمل واستدراك للأخطاء ومراجعة للأحوال وتصحيح للأوضاع، فتتخلص الدول والأحزاب والطوائف والآيديولوجيات من كل هذا، فمن لم يغيره خطر ماحق وتهديد صاعق، كخطر كورونا الداهم المميت، فلا أمل في تطوره وتحسين وضعه.”
    – الشرق الأوسط ،الثلاثاء – 30 رجب 1441 هـ – 24 مارس 2020 مـ
    ‘‘ …বুদ্ধি-দর্শন ও দূরদর্শিতার দাবী এই যে, করোনা উদ্ভূত অর্থনৈতিক সংকট, প্রাণনাশ এবং জননিরাপত্তা নষ্ট হওযার ক্ষেত্রে ভাবনার পরিধিকে সম্প্রসার করা হবে। ভুল সংশোধন, অবস্থার পুনর্বিবেচনা ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। তখনই সকল দেশ ও জনগোষ্ঠীর মুক্তির পথ বেরিয়ে আসবে। কিন্তু করোনার মত প্রাণঘাতী ভাইরাসও যার চিন্তাকে আলোড়িত করতে পারেনি, তার মুক্তি-উন্নতির কী আশা করা যেতে পারে!?’’



    মিসরী লেখক ইমীল আমীন লিখেন,
    “المؤكد أن القارة الأوروبية انكشفت أوراقها بشكل غير طبيعي، وقد تذهب رياح كورونا الهوجاء بهيكلها البنيوي المسمى الاتحاد الأوروبي، وحين تنجلي العاصفة ستضحى أمام حقيقة صعود سريع ومخيف للمطالبين بالعودة إلى حدود الدولة الوطنية، وغسل الأيادي من التحالفات الكبرى، والانكفاء إلى داخل الأوطان.”
    — الشرق الأوسط ، الأربعاء – 8 شعبان 1441 هـ – 01 أبريل 2020 مـ
    ‘‘… নিশ্চিত যে, অপ্রাকৃতিকভাবেই ইউরোপের নাড়ি-নক্ষত্র খুলে গেছে। সর্বগ্রাসী করোনার ঝঞ্ঝাবায়ু ইউরোপীয় একতাকে তছনছ করে দিচ্ছে। এই তুফানের অবসান ঘটলে তড়িৎ গতির প্রগতি বাস্তবতার সঙ্গী হয়ে ফুটে ওঠবে। তখন তাকে ফিরে যেতে হবে গৃহাভ্যন্তরে, আন্তঃচুক্তি থেকে হাত গুটিয়ে নেবে এবং সে হয়ে যাবে ঘরকুনো।।’’

    আরব বুদ্ধিজীবী মিশআল আস-সাদীরী লিখেন,
    ومثلما ذكرت يوم الثلاثاء الماضي، فإنني للأسف لا أستطيع السفر الآن بسبب إصابتي «بإنفلونزا» حادة وأخشى أن تتحول إلى «كورونا»، لهذا سوف ألزم بيتي بعيداً عن العالم والناس، ليس لمدة أربعة عشر يوماً فقط، ولكن لمدة «ألف ليلة وليلة» –.
    — الشرق الأوسط الخميس – 2 شعبان 1441 هـ – 26 مارس 2020 مـ
    ‘‘…যেমনটা আমি গত মঙ্গলবার উল্লেখ করেছি, বর্তমানে আমি কোন ভ্রমণেই সক্ষম নই। পরিচিত পৃথিবী ও গণমানুষ থেকে দূরত্ব বজায় রেখে হোম কোয়ারেন্টাইনে অবস্থান করতে থাকব। আর এটা শুধু ১৪দিনের জন্য নয়; বরং হাজারো রজনী অব্যাহত থাকবে আমার এ কর্মসূচী।।”

    সিরিয়ার প্রখ্যাত সাংবাদিক ফায়েয সারা লিখেন,
    ” إن التكلفة البشرية التي يمكن أن تصيب سوريا في ظل الوضع الراهن في احتمالات «كورونا»، أكبر من كل التصورات، وسوف تكون لها فواتير إضافية في جوانب أخرى، ولا سيما من الناحية الاقتصادية، بحيث تصير الكارثة شاملة ومتعددة المجالات، وتصيب الجميع، وتتعداهم إلى المحيط الإقليمي، لأن أحداً لن يستطيع الإبقاء على الكارثة في حدود الجغرافيا السورية، وأول من سوف يتأثر دول الجوار والدول التي يتبعها جنود وميليشيات موجودة على الأراضي السورية، الأمر الذي يعني ضرورة القيام بمبادرة تدخل إقليمي ودولي عاجل في سوريا في ضوء حقيقة يعرفها الجميع، أنه ليس من طرف سوري قادر على فعل شيء، وقد يكون لهذه المبادرة، إذا تمت لمواجهة «كورونا» في سوريا، أن تهزمه، وقد تلحق به نظام الأسد أيضا ”
    الشرق الأوسط الأربعاء – 8 شعبان 1441 هـ – 01 أبريل 2020 مـ–
    “…করোনাসৃষ্ট সাম্প্রতিক সময়ের মানবিক বিপর্যয় সকল কল্পনাকেও ছাড়িয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন দিক বিশেষত অর্থনৈতিকভাবে মহাসংকট দেখা দিবে। এর ক্ষেত্র বিস্তিৃত হয়ে মুহীত ইকলীমী পর্যন্ত ছড়াতে পারে। সংক্রমণের শিকার হবে সিরিয়াতে অবস্থানরত সকল মিলিটারী। যেহেতু সিরিয়াবাসী কিছুই করতে পারছেনা, তাই আন্তর্জাতিক লোক এনে অবস্থা পরিবর্তনের চেষ্টা চালাতে হবে। আর এতে স্বৈরাচারী আসাদ সরকারেরও টনক নড়বে।।”

    লেখক: মুফতি ছালেহ বিন আব্দুল কুদ্দুস
    প্রাবন্ধিক ও অনুবাদক: শাহবাজপুর, বি-বাড়িয়া, বাংলাদেশ।
    ২/৪/২০২০ইং, বৃহস্পতিবার।।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম