• শিরোনাম


    আমেনা শরীফ শাহীন এর একগুচ্ছ কবিতা

    | ০৫ এপ্রিল ২০২০ | ১১:৩৭ পূর্বাহ্ণ

    আমেনা শরীফ শাহীন এর একগুচ্ছ কবিতা

    কবি পরিচিতি:
    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলার খেওড়া আনন্দময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯৯৬ইং এসএসসি ব্যাচের মেধাবী ছাত্রী।পিতার নাম- শরীফ এ কে এম শামসুল হক। জন্ম তারিখ- একুশে ফেব্রয়ারি।সফলতার সাথে স্কুল পাশ করে তিনি ভর্তি হন স্বনামধন্য বিদ্যাপীঠ চট্রগ্রাম কলেজে। সেখান থেকে এইচএসসি পাশ করে পরবর্তিতে ঢাকাস্থ ইডেন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অনার্স ও মাষ্টার্স ডিগ্রী সম্পন্ন করেন। কর্মজীবনের শুরুতে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা PHREB এ কো-অর্ডিনেটর,চিটাগাং প্রি-ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজ, হালিশহর জাহানারা বেগম স্কুল এবং সরকারি প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা বিভাগে কাজ করেন।পরে বাংলাদেশের কম্প্রোটোলার জেনারেল এন্ড অডিট এ সিনিয়র অডিটর হিসাবে পেশা গ্রহণ করেন। বর্তমানে তিনি অডিট কমপ্লেক্স ঢাকায়-রেলওয়ে অডিট ডাইরেক্টরিয়েট এ সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।তাঁর অন্য আরেক পরিচয় তিনি “বিশ্ববাঙালি সম্মাননা” “অমর একুশে সাহিত্য পুরস্কার” প্রাপ্ত কবি ও গবেষক এস এম শাহনূর এর সহধর্মিণী।

    ➤সেলফীবাজ
    ওদের বলে দিন,
    ওরা যেন ধান না মেশিন;
    তবেই বদলে যাবে কৃষকের দিন।
    ওদের বলে দিন,
    ওরা যেন মওকুফ করে,
    কৃষকের কৃষিঋন।
    তবে কৃষকের অাসবে ফিরে সুদিন।
    ওদের বলে দিন,
    ওরা যেন কৃষি খাতে না করে দূনীর্তি,
    তাহলেই কৃষক পাবে অর্থনৈতিক মুক্তি।
    তবেই শোধ হবে কৃষকের প্রতি ঋন।।
    ওদের বলে দিন,
    ওরা যেন বাড়ায় কৃষি বাজেট,
    তাতে ভারী হবে কৃষকের পকেট,
    কৃষক বাঁচলে বাঁচবে দেশ,
    এই হউক ওদের নিদের্শ।।।
    ৩০ এপ্রিল ২০২০ইং



    ➤মধ্য রাতের প্রার্থনা

    প্রভু,তোমার কাছে কি নিয়ে যাব,
    কি দিয়ে দিবো তোমার সওয়াল-জবাব!
    তুমি তো দিয়েছো মোদের অফুরন্ত,
    রাখনি মোদের কোন অভাব।।
    তবুও করেছি কেন এত পাপ!!

    পড়েনি নামাজ সময়মতো,
    রাখিনি রোজা নিয়মিত ;
    কন্ঠে বাজেনি কোরঅানের সুর,
    কত যে ছিল সুরা সব সুমধুর!
    কেমনে দিব হিসাব,কত যে করেছি পাপ!

    করেনি কোন কাজ মানুষের কল্যানে,
    করেনি কোন দান নিভৃতে গোপনে,
    দেয়নি যাকাতের নামে কোন অনুদান,
    যতটুকু দিয়েছি,তারচে বেশি পেয়েছি,
    তুমিতো দিয়ে দিয়েছো সব প্রতিদান।
    কি করে বদলাবে মোদের স্বভাব,
    এত পেয়েছি তবুও যায়নি মোদের অভাব।

    নফসের গোলামীতে ছিলাম মসগুল,
    জীবনের প্রতি পদে পদে করেছি ভুল,
    খুঁজে বেড়িয়েছি শুধু দুনিয়ার শান্তি ;
    পরকালের হিসেবে নেই কোন প্রাপ্তি।
    কি করে দিবো জবাব,সবই যে ছিল মোদের পাপ!

    প্রভু অামরা গোনাহগার,তোমার কাছে ক্ষমা চাই,
    তুমি মাফ করে দাও তোমার হাবীবের উছিলায়,
    অার যেন না করি তব অন্যায়,
    ঈমানের সাথে করিও চির বিদায়!!
    পরকালে যেন দিতে পারি সব হিসাব,
    তুমি ঘুচে দাও মোদের সকল পাপ।।
    ২৭ এপ্রিল ২০২০ইং

    ➤বন্দী জীবন
    অাচ্ছা কেন মানুষগুলো হয়েছে
    আজ চার দেয়ালে বন্দি??
    পাখিরা সব উড়ছে অাকাশে
    কার সাথে হয়েছে এমন সন্ধি??
    কার ইশারায় পৃথিবীতে
    অাজ বইছে মহামারী?
    অাসুন সবাই মিলে
    একমাত্র তারঁই ইবাদত করি।।
    কে দিয়েছে অাসমান জমিন?
    কে দিয়েছে এমন অক্সিজেন?
    লাগেনা নিতে কোন বিল ভাউচার;
    সবাইকে দিয়েছে বেঁচে থাকার অধিকার।।
    ১৪ এপ্রিল ২০২০ইং

    ➤মানুষের কল্যাণে
    ”তুমি আমার জীবন,
    আমি তোমার জীবন,
    দু’জন দু’জনার কত যে অাপন,
    কেউ জানে না,কেউ জানে না।”

    যদি হয় একজনের করোনা,
    আরেক জন পাশে ও যাবে না,
    বলবে না তখন,
    তুমি আমার জীবন!

    করোনায় এলে মরণ;
    কেউ আসবেনা করতে দাফন,
    পড়ে থাকা লাশের ঠিকানা,
    কেউ জানবে না,কেউ খবর নিবে না।

    দুজনার দুটি মনে হউক
    একটি আশা;
    আল্লাহ রাসুলের প্রতি
    প্রেমের পিপাসা,
    তবেই পাবে জীবনে
    শান্তি সুখের ভালোবাসা।

    সাজানো পৃথিবীটা হঠাৎ
    যেন থমকে গেল,
    সত্যিকারের ভালোবাসা
    মানবতার কাছে খুঁজে পেলো।
    সুন্দর স্বপ্ন নিয়ে,
    আগামীর পৃথিবী অামরা সাজাবো,
    মানুষ মানুষের কল্যাণে
    এগিয়ে যাবো।

    ১২ এপ্রিল ২০২০ইং

    ➤এমন একটি পৃথিবী চেয়েছিল প্রকৃতি
    পৃথিবীটা কেমন বদলে গেল,
    চারদিক সুনশান নিরবতা ;
    পাখি গায় গান, নেই কোলাহল,
    সবুজের সমারোহে গাছপালা লতাপাতা।

    রাস্তায় নেই ট্রাফিকের লালবাতি,
    নেই বাসের কালো ধোঁয়া ;
    চলেনা কোন মার্সিডিজ, কিংবা বিএমডব্লিউ,
    কোথায় হয়ে গেল সব হাওয়া!

    কত কি রং তামাশা চলতো
    এই ধরনীর বুকে;
    করোনার আক্রমণে আজ নিস্তব্ধ,
    গোটা পৃথিবী যেন মৃত্যুর মুখে।

    সাগরের জলে অাজ
    নেই কোন বাড়তি তোষণ
    মাছেরা করে খেলা,
    নেই কোন জাহাজের শব্দ দূষণ।

    আকাশে উড়ে না বিমান,
    নষ্ট হয় না ফুয়েল,।
    বাতাস হয় না দূষণ,
    মনের সুখে গেয়ে বেড়ায় দোয়েল।

    এমন একটা পৃথিবী,
    হয়তো চেয়েছিল প্রকৃতি,
    বেঁচে থাকলে কেউ কোনদিন,
    ভুলতে পারবে না করোনার স্মৃতি।

    ১১ এপ্রিল ২০২০ইং

    ➤দেখতে দেখতে সামীহার হলো আজ ২৯ মাস,
    চারদিকে ছড়িয়ে পড়ল করোনা ভাইরাস,
    মনটা তাই ভালো নাই,,
    করোনা’ নিয়ে আছি চিন্তায়,
    নিয়ম কানুন মেনে চলুন,এই ভাইরাস প্রতিরোধে,
    আল্লাহ যেন সবাই কে রাখে নিরাপদে।।
    ২৫ মার্চ ২০২০ইং

    ➤চৌদ্দ মাসে সেজেছ তুমি বধু,
    মা তোমাকেই ভালবাসে শুধু।।
    ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮ইং

    ➤মধ্যবিত্তের শ্লোগান

    উচ্চ বিত্তরা বসে বসে পুঁজি খাবে;
    গরীবরা সাহায্য পাবে,
    মধ্যবিত্তরা কোথায় যাবে?

    না পারবে কারো কাছে চাইতে,
    না পারবে কষ্ট সইতে,
    আসবে না কেউ তাদের বাঁচাতে??

    মা বাবা ভাই বোন,একসাথে করে বসবাস,
    বাবা রাতে ঘুমায় না, ছাড়ে দীর্ঘ শ্বাস,
    কি করে চলবে বেতনহীন এই মাস?

    অতঃপর করে ধার দেনা,
    একমাসে শোধ করে আরেক মাসের পাওনা,
    কেউ কি কিছু দেয় মাগনা মাগনা?

    সমাজে মধ্যবিত্তের খোঁজ কেউ রাখেনা,
    কোন লিষ্টে তাদের নাম থাকেনা,
    লোক লজ্জায় কাউকে কিছু বলতে পারে না।

    যদি না বাড়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম,
    মজুদদার রা যদি না ভরায় মাল দিয়ে গুদাম,
    তবেই অাসবে মধ্যবিত্ত পরিবারের আরাম।।
    ৫ এপ্রিল ২০২০ইং

    ➤হোম কোয়ারান্টাইন
    আমরা আর কবে হবো সচেতন ;
    কখন বুঝবে আমাদের অবুজ মন?
    আমরা কি দেখতে চাই,
    হাসপাতালের দুয়ার থেকে বের হউক
    শত শত লাশের মিছিল,
    কিংবা গণকবরে রূপান্তরিত হউক,
    সবুজ শ্যামল বাংলার মাঠ,ঘাট বিল?
    আমরা কেন মানিনা কোন শাসন বারন;
    সভ্য জাতির এটাই কি উদাহরণ??
    কিছু দানবীর দানের নামে করে খেলা;
    দানের নামে তারা জমায় মানুষের মেলা!
    এক হাত গ্রহণ করে দান,
    দশ হাতে ছবি তুলে দেয় প্রতিদান।
    যারা নেয় তারা যে মানুষ, আছে তাদের সম্মান,
    এতটুকু বুঝার নেই,দানবীরদের হিতাহিত জ্ঞান!
    মসজিদ,মন্দির, গীর্জায় যেন না করি ভীড়,
    সবার হৃদয়ে যেন গড়ি এক আল্লাহর মসজিদ,মন্দির।
    আল্লাহকে যেন স্মরণ করি ঘরে বসে,
    এক ধ্যানে,জ্ঞানে,আর মন থেকে ভালোবেসে।
    ৩ এপ্রিল ২০২০ইং

    ➤ অস্পৃশ্য
    এখন কান্নার রোল আর পড়বেনা বাড়িতে,
    লাশ উঠবে না আর বাড়ীমুখী গাড়িতে,
    জানবে না কেউ লাশের খবর,
    পাড়া পরশি অাসবে না অার দিতে কবর।
    কেউ যাবে না জানাযায়;
    পুলিশ থাকবে পাহাড়ায়,
    এমন মৃত্যু চাই না,
    যে লাশের গোসল হবে না,
    হবে না লাশের দাফন কাফন;
    কবর খুড়ঁবে পুলিশ প্রশাসন।
    অপেক্ষা করা হবে না আসবে কখন ‘প্রিয়জন,
    শেষ যাত্রায় থাকবে না বাবা ভাই আত্মীয় স্বজন।
    মাবুদ তুমি রক্ষা করো,
    তুমি চাইলে সবই পারো,
    আমরা চাই তোমার করুনা,
    দূর করে দাও মহামারী করোনা।
    জীবন সায়াহ্নে তোমার কাছে এই প্রার্থনা,
    এমন মরন তুমি আমাদের দিওনা।

    ৩১ মার্চ ২০২০ইং

    পড়ন্ত বিকেলের অলস বেলায়,
    পাখিরা যেখানে ফিরে বপন নীড়ে,
    আমি তাকিয়ে অাছি দিগন্তের সীমানায়;
    ২৯ মার্চ ২০২০ইং

    ➤২০২০ ও স্বাধীনতা দিবস
    স্বাধীনতা শব্দটি অাজ হয়ে গেছে মলিন,
    বিশ্ব জুড়ে বাজছে কেবলি শোকের বায়োলিন,
    অজানা আশংকায় কাপছে জাতি,
    লাল সবুজের পতাকায় আজ নেই কোন জ্যোতি।।

    আজ শুধু প্রভুর নিকট একটিই প্রার্থনা,
    রক্ষা করো মোদের মহামারি ‘করোনা’।
    তবুও জাতির বীর সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা
    ভালো থাকুক জীবিত সব মুক্তি যোদ্ধা।।

    যে জাতি স্বাধীনতা এনেছে নয় মাস যুদ্ধ করে
    সে জাতি আজ একমাস থাকতে পারবো না বন্দি হয়ে ঘরে?
    আমরা তো তাদেরই যোগ্য উত্তরসূরী ;
    তবে আর নয় অযথা ঘুরাঘুরি।
    ২৬ মার্চ ২০২০ইং

    দেখতে দেখতে সামীহার হলো অাজ ২৯ মাস,
    চারদিকে ছড়িয়ে পড়ল করোনা ভাইরাস,
    মনটা তাই ভালো নাই,,
    করোনা’ নিয়ে অাছি চিন্তায়,
    নিয়ম কানুন মেনে চলুন,এই ভাইরাস প্রতিরোধে,
    অাল্লাহ যেন সবাই কে রাখে নিরাপদে।।
    ২৫ মার্চ ২০২০ইং

    ➤প্রার্থনা
    হে,আল্লাহ!
    ভুল যদি করি পাহাড় সমান,
    তুমি ক্ষমা দিও আকাশ সমান,
    তুমি তো গাফফার, রহিম রহমান।
    হে আল্লাহ,
    পাপ যদি করে থাকি সমুদ্রের ফেনার ন্যায়,
    ক্ষমা চাই তোমার কাছে প্রিয় নবীর উছিলায়।
    হে আল্লাহ,
    ক্ষমা করে দাও,রোগ বালাই থেকে মুক্তি দাও,
    তোমার বান্দার মোনাজাত কবুল করে নাও।
    হে আল্লাহ,
    সাগরের জল কালি করে,
    গাছের পাতার খাতা করে
    যদি লিখা হয় তোমার গুনগান
    তবু লিখে শেষ তো হবে না,
    তোমার দয়ার সীমানা,,
    হে আল্লাহ,
    দূর করে দাও মহামারী ‘করোনা;
    আমরা পেতে চাই তোমার দয়ার করুনা।।
    ২০ মার্চ ২০২০ইং

    ➤সন্ধ্যা
    সন্ধ্যা তুমি এসো না
    তুমি এলে ভয় হয় অামার;
    তুমি এনে দাও অন্ধকার!

    তুমি ছিনিয়ে নাও সূর্য কে;
    বিচ্ছিন্ন করো দিনের ঝলমলে অালো
    তাই তোমাকে লাগে না ভালো!

    তুমি জাগিয়ে দাও মানুষকে পশুর হিংস্রতা;
    গোধূলির লাল রক্তকে তুমি করো নিকষ কালো;
    তোমার হৃদয়ের বিবর্ণ রুপকে জাগিয়ে তোল।

    তাই অামি তোমাকে ভয় পাই;
    তুমি এসো না অামার ছোট্ট নীড়ে;
    যেখানে অামার প্রশান্তি বাস করে।

    ➤কবি
    তোমারি হাতেই রচিত হউক
    বাংলার অলিখিত ইতিহাস,
    বাংলা ভাষা অবহেলিত থাকার
    নেই কোন অবকাশ ;
    বাংলা ভাষা ছড়িয়ে যাক বিশ্ব দরবারে;
    হউক তা তোমারি হাত ধরে।

    ➤ফাগুনের গান
    অামাকে ভাবিয়া কেউ কোন কালে লিখেনি
    কোন পদ্য;কিংবা ভালোবেসে দেয়নি কোন উপমা;
    অামার দুটো চোঁখ কি বিষাক্ত ;
    ছিলনা কোন ভালোবাসার প্রতিমা?
    মনের মাঝেও কখনো কেউ দেয়নি ঠাই;
    শরীরের রংটা কালো এটাই করতো যাচাই।
    কুৎসিত কালো বলিয়া অামি কি নই মানুষ?
    স্রষ্টার নিজ হাতে গড়া আমি, অামার কি দোষ!

    প্রতিটি ফাগুনে অামার চোঁখে সলিল সমাধি,
    হৃদয় হরিত কৃষ্ণচূড়া, পলাশ অার মাধবী।
    মায়ের শেখানো প্রতিটি অক্ষর অামার চোঁখে রক্ত বর্ণ;
    মায়ের ভাষা বাংলা অামার প্রাণের স্পন্দন।

    অামি শুধু গাই তাদেরই জয়গান;
    অামার ভাষার জন্য যারা দিয়ে গেল প্রান।
    মা,মাতৃভূমি অার মায়ের ভাষা;
    ফাগুনের মাসে এই হউক অামাদের ভালোবাসা।।

    ১১ ফেব্রয়ারী ২০২০ইং

    ➤চাকরি
    চাকরির বয়স অাট;
    অার কতদূর উনষাট?
    অামার বয়স কিন্তু লিখিনি;
    তাই বলে বয়স থেমে থাকেনি;;
    অারো বহুদূর দিতে হবে পাড়ি;
    বন্ধুর পথ যেন ফুরায় না তারাতাড়ি।

    ৩০ জানুয়ারি ২০২০

    ➤আজ নবাবের জন্মদিন
    পরিবারের নবাব;
    তাই একটু বেশি ভাব!
    কাজকর্ম কিছু নাই;
    ঘুরাঘুরি খাই দায়।
    জন্মদিনে শুভ কামনা,
    মায়ের মনে কষ্ট দিসনা।
    বিঃদ্রঃ তুই কিন্তু সামীহার সবচে’ প্রিয়,
    তাই তোকে ভালোবাসি অামিও!

    ২১ জানুয়ারি ২০২০ইং

    ➤প্রাণান্ত চাওয়া
    অামার চলার পথে জাগিয়ে দেয় অনুপ্রেরণা ;
    অামার ব্যর্থতার দায়ে তার অনুশোচনা ;
    অামার সদা ভাল থাকা তার অকৃত্রিম মনোবাসনা।
    কিছু সম্পর্ক সাহস যোগায়;
    কিছু শব্দ ভঙ্গুর স্বপ্নের জোড়া লাগায়;
    কিছু ছায়া নতুন করে পথ চলতে শেখায়।।
    অামি যেন ভেঙে না পড়ি;
    অামি যেন নতুন ছন্দে জীবন গড়ি;
    অামি যেন জীবন যুদ্ধে জয়লাভ করি।।
    অামাদের সম্পর্কের মাঝে বেচেঁ থাকুক বিশ্বাস ;
    ভালবাসা হউক প্রতি মুহূর্তের নিঃশ্বাস;
    একটা ছাদে হউক দুটি প্রাণের অাজীবন বসবাস।।

    ২০ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

    ➤সাকিব আল হাসান
    তুমি ছাড়া ক্রিকেট খেলা;
    লবনহীন তরকারির মতো;
    বালিশহীন বিছানার মতো
    চাঁদহীন রাতের মতো;
    হয়তো খেলা দেখায় থাকবে না কোন উচ্ছ্বাস ;
    বাজবে না করতালি;
    কিংবা হবেনা কোন চিৎকার;চেঁচামেচি ;
    তুমি না থাকলে খেলায় থাকবে না কোন প্রাণ;
    তুমিই ছিলে সেরা;ভবিষ্যতে এটাই হবে প্রমাণ।।

    ২৯ ডিসেম্বর ৩০১৯ইং

    ➤মায়ের তুল্য কেউ নয়
    মা যেন বৃত্ত;
    মাকে ঘিরেই সন্তানের সবকিছু অাবতির্ত;
    মা যেন বট বৃক্ষ কিংবা অাকাশ;
    মায়ের ছায়ার তলে সন্তান অনুভব করে
    সুশীতল বাতাস;
    মা যেন ডাক্তার কিংবা মহা কবিরাজ;
    সন্তানের সব ব্যাধি অাগ থেকেই করতে পারে অান্তাজ;
    মা যেন শিক্ষার এক মহান কারিগর ;
    মায়ের কাছেই প্রথম শিখে প্রতিটি অক্ষরের পরিসর।
    মা যেন অাবেগ অনুভূতির নাম;
    প্রতি মুহূর্তে কামনা করে সন্তানের মঙ্গল, সুনাম;
    মা’কে নিয়ে লিখে কাব্য শেষ হবে নাকো;
    কেবল মা না থাকলেই সন্তান বুঝতে পারে মায়ের অভাব টুকু।

    অালহামদুলিল্লাহ অাজ ২৫ অক্টোবর ;সামীহার হলো দু বছর)

    ➤হৃদয়ের কথা
    কখনো যদি হারিয়ে যাই;
    অসীম শূন্যে;কিংবা মিশে যাই মৃত্তিকায়;
    তবে কি খুঁজবে অামায়।
    ফেলবে কি দু ‘ফোটা জল?
    কিংবা ভারাক্রান্ত হৃদয়ে দু’চোঁখ করবে কি টলমল?
    কোন অতীত স্মৃতি তোমায় করবে কি দহন,
    কিংবা মনের অজান্তে হৃদয়ে বইবে কি রক্তক্ষরণ?
    যদি তোমার উত্তর হয় ‘না’
    তবেই অামি স্বাথর্ক’
    পৃথিবীর তরে অামার নেই কোন দেনা;
    কিংবা অামার হারিয়ে যাওয়ার নেই কোন মানা।
    অামি হারিয়ে যেতে চাই;
    অামি তোমাকে ভালবাসাহীন বন্ধন থেকে মুক্তি দিতে চাই।
    অামি তোমাকে দান করে গেলাম তোমার সকল দায়।

    ২৩ অক্টোবর ২০১৯ইং

    ➤মানুষ হওয়া চাই
    হে স্বাধীনতা;তোমাকে পেতে হলে
    অার কত তনু নুসরাত ধর্ষিত হবে?
    অার কত তুহিন,অাবরারকে দিতে হবে জীবন বলিদান?
    এই স্বাধীনতার জন্যই কি সেদিন পাক হায়েনাদের বিরূদ্ধে বীর বাঙ্গালী অস্ত্র ধরেছিল?
    অার মা বোনেরা বিলিছে সম্মান।
    জানিনা অার কত কাল পরে বিবেক জাগ্রত হবে?
    প্রতিটা বাঙালি মানুষ হবে?

    ১৪ অক্টোবর ২০১৯ ইং

    ➤বাবার রাজকন্যা
    তোমার ঠিকানা ;অামার হৃদয়ের অাস্তানা;
    তোমাকে যেন অাঘাত করতে না পারে কোন হায়ে না।
    তুমি হাসলে হাসবে দেশ;তুমি অামার বাংলাদেশ।।

    ১৩ অক্টোবর ২০১৯ইং

    ➤বন্দী স্বাধীনতা
    স্বাধীনতা,
    তুমি কি?
    জুয়ার অাসরে মদের বাহার;
    পিয়নের সিন্ধুকে টাকার পাহাড়।
    স্বাধীনতা,
    তুমি কি?
    দুনীতির ঘরে জন্ম নেওয়া অবৈধ কালো টাকা,
    রাস্তায় ফেলে রাঘব বোয়ালরা শহর ছেড়ে দিচ্ছে গা ঢাকা।
    স্বাধীনতা,
    তুমি কি?
    ঘরে ঘরে জন্ম নেওয়া নব্য নেতার অবৈধ হাতিয়ার ;
    যারা কেড়ে নিয়েছ ত্যাগী নেতার রাজনৈতিক অধিকার।
    স্বাধীনতা,তুমি আমার ৭১ এর স্বাধীনতা নও?
    কেন স্বাধীনতার নামে মিথ্যে ইতিহাস শোনাও!
    ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ইং

    কাটেনা সময় যখন সামীহার
    অার কিছুতেই;
    বাবার টেলিফোনেও মন ভরে না
    জানালার গ্রীল ধরে ঠেকায় মাথা;
    কখন অাসবে মা কখন হবে কথা।
    এভাবেই যায় কেটে দিন মাস;
    সামীহার অাজ তেইস মাস।।
    ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ইং

    ➤অপেক্ষা
    কিছুটা সময় চাই,
    একান্তই অামার;
    এতটুকু ক্ষণে,
    থাকুক দূরে;
    অাত্বীয় স্বজন;পরিবার।।
    ভাবনা গুলো অাজ এলোমেলো;
    ছন্দহারা কবিতার লাইনগুলো।।
    দুরের তারা দিচ্ছে অামায় ইশারা
    অামি যেন না হই দিশেহারা।
    এক ফালি চাঁদ, কাটাবে অামার সাথে রাত;
    জোছনার আলোতে রাখবে ‘সে’ অামার হাতে হাত।।
    ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ইং

    সকালে মেলিয়া আঁখি ;
    খুজে বেড়াই ভালবাসার পাখি;
    মনের গহীনে তাদের স্থান ;
    সীমাহীন সুখের লাগি;
    তোদের সাথে করি অবস্থান।।
    বিঃদ্রঃ আজ মুনিয়ার জন্মদিন,
    সামীহার বাইশ মাস।।
    ২৫ আগস্ট ২০১৯ইং

    বৃষ্টি পড়ে টাপুরটুপুর
    পায়ে দিয়ে রূপার নুপুর;
    আঁকাবাকা মেঠোপথে সামীহা নানার বাড়ী যায়।।
    ১৫ আগস্ট ২০১৯ইং

    আমার মন মায়ের মমতা ভরা;
    আমি নইকো কোন ছেলে ধরা।
    আমি শুধু একটি সুখে দিন কাটাই
    বেলা শেষে যখন সন্ধ্যা আসে
    আদুরে মেয়েকে যেন কাছে পাই।
    পৃথিবীর সব মাই এমন,হয়তো অামার মতন;
    কোন আঘাতে না ভেঙ্গে যেন সুখের দর্পন।
    একুশ মাস পূর্ন হলো আজ সামীহার,
    একুশ বছরের সীমানায়ও অটুট থাকুক মায়ের মমতার।
    ২৫ জুলাই ২০১৯ইং

    ➤নারী মানে
    একটি নারী
    একটি পরিবারের শক্তি।।
    একটি নারী
    একটি রাষ্ট্রের মূল চালিকা শক্তি।।
    একটি নারী
    নষ্ট করেছে দেশের ভাবমূ্র্তি।।
    একটি নারী
    দুটি মৃত্যুর স্বাক্ষী।
    একটি নারী
    কল্লা কাটার স্বীকৃতি।
    একটি নারী
    মা ছেলেকে খুঁজতে এসে খায় গণ পিটুনি
    এই ছিল তার নিয়তি।।
    ২১ জুলাই ২০১৯ইং

    আজ বয়স তার ঊনিশ মাস;
    মায়ের হৃদয়ে করে বসবাস;
    আদরের নাড়ি ছেড়া ধন;
    আল্লাহ যেন ভাল রাখে সারাজীবন।
    ২৫ মে ২০১৯ইং

    আমার বই পত্র ছিড়বে এই হল বায়না,
    ধরতে না দিলে শুরূ করে কান্না;
    বয়স তার হলো আঠার মাস,
    সকাল সকাল ঘুম ভাঙ্গা অভ্যাস।
    কি আর লিখব আজ
    সর্বত্র অশনি সংকেত বিরাজ;
    স্কুলে পরিমল,মাদ্রাসায় সিরাজ।
    কোথায় পাবে নিরাপত্তা?
    বিপন্ন আজ জাতির স্বাধীনতা।
    ২৪ এপ্রিল ২০১৯ইং

    অাগুনের দেশ বাংলাদেশ ;
    ধর্ষকের ও নাই যে শেষ!
    নববর্ষে সব অপশক্তির হবে অবসান
    এই হউক বাঙালির বৈশাখী গান।
    ১৪ এপ্রিল ২০১৯ইং

    তুমি কবি অাগামীর সম্ভাবনা
    বিকশিত হউক দেশাত্ববোধের চেতনা।
    এনেছ তুমি জাতিসংঘের শান্তির পদক
    তোমার লেখায় জাগ্রত হউক প্রতিটি পাঠক।
    ১২ এপ্রিল ২০১৯ইং

    সামীহার বয়স অাজ সতের মাস;
    এই তারিখ টি ভুলিবার নেই কোন অবকাশ।
    অাল্লাহ যেন দান করেন সুস্থতা;
    সাথে জড়িয়ে থাক মায়ের সব মমতা।
    ২৫ মার্চ ২০১৯ইং

    পূর্ন হলো সামীহার ষোল মাস,
    ভালো লাগে তার আকাশ বাতাস।
    ভাললাগে তার মা বাবার সান্নিধ্য,
    প্রিয়জনের কাছে খুঁজে আনন্দ।
    আল্লাহর কাছে শুধু চাওয়া,
    সামীহার ভালো মানুষ হওয়া।
    ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ইং

    সামীহার আজ বয়স হলো পনের মাস;
    ভালো লাগে তার দেখতে আকাশ।
    বাবা নেই কাছে তার
    ভুলেনি এ আওয়াজটা বাবার নাক ডাকার!
    সামীহা ভালো নেই তার বাবাকে ছাড়া,
    তাইতো ওকে আনন্দে রাখতে চাইছে প্রিয়জনেরা।
    ২৫ জানুয়ারি ২০১৯ইং

    ছুটির দিনে;সামীহা তার বাবার সনে,পৃথিবীটা কে লাগছে বড়ই বিচিত্র;তাইতো দেখছে মানচিত্র।।
    ১৩ জানুয়ারি ২০১৯ইং

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    মগের মুল্লুক (কবিতা)

    ১১ আগস্ট ২০১৮

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম