• শিরোনাম


    আখাউড়ায় প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধার বাড়ী দখলের হুমকি, থানায় জিডি

    রিপোর্ট: আশরাফুল মামুন, আখাউড়া থেকে | ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

    আখাউড়ায় প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধার বাড়ী দখলের হুমকি,  থানায় জিডি

    ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি মাইনুল ইসলাম চেয়ারম্যানের বাড়ি দখলে র হুমকি । একটি বিশেষ মহলের চাপে প্রয়াত মাইনুল ইসলামের ছেলে সহ পরিবারের সব সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এ ঘটনায় মাজহারুল ইসলাম রাজিব আখাউড়া থানায় বাদী হয়ে জিডি এন্ট্রি করেছেন।

    গতকাল রাত ৯ টায় মাজহারুল ইসলাম রাজিব তার নিজ বাড়ীতে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন,
    আখাউড়া পৌরশহরের প্রাণকেন্দ্র মসজিদপাড়ায় তার চাচা মোঃ ফখরুল ইসলাম স্থানীয় প্রভাবশালী নেতৃত্বের ছত্রছায়ায় ওই মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি দখলের পাঁয়তারা করছেন বলে তিনি অভিযোগ করেছেন।



    প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধার ছেলে মাজহারুল ইসলাম রাজীব আরো বলেন, সম্প্রতি আমার চাচা ফখরুল ইসলাম একটি ভুয়া নোটারীর দলিল তৈরি আমাকে জানান, ইমারত নির্মাণের জন্য ওনার কাছ থেকে আমার বাবা ৫৬,০০,০০০ (ছাপান্ন লাখ) টাকা নিয়েছিলেন। বিনিময়ে ওই ইমারতের দ্বিতীয়তলার পশ্চিম দিকে দুই রুম, ২টি বাথরুম, ১টি বারান্দাসহ ডুপ্লেক্স বাড়ির দোতলায় ওঠার সিঁড়ি আমার চাচা ফখরুল ইসলামকে প্রদান করেন। বাবা মৃত্যুর চার বছর পর তিনি এসে এ দাবি করছেন। মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের অভিযোগ, ২০০৮ সালে ইমারত নির্মাণ শেষে ২০১০ সালে ওই ইমারতে বসবাস করে আসছি। কিন্তু হঠাৎ করে চাচার আমাদের কাছে বাড়ির এমন দাবি হাস্যকর। মাইনুল ইসলাম বেঁচে থাকাকালে কখনও এ ধরনের কথা পরিবারের কোনো সদস্যের কাছে জানাননি বা বলে যাননি। এমতাবস্থায় মাজহারুল ইসলাম স্থানীয় প্রশাসন সহ সর্বস্তরের জনসাধারণের সহযোগিতা চেয়েছেন।

    যোগাযোগ করা হলে অভিযোগ অস্বীকার করে ফখরুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, ভিটায় পিতার রেখে যাওয়া ৮.৬৯ শতক জায়গার মধ্যে বড় ভাই মাইনুল ৫.০৭ শতক জায়গাতে ভবন নির্মাণ করেন। যা দু’ভাইয়ের মধ্যে কোনো বণ্টন হয়নি। তিনি বলেন, ওই ইমারতের অংশে আমিও একজন মালিক। হুমকি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটা মিথ্যা সম্পূর্ণ আমার বিরুদ্ধে মিথয়া অভিযোগ।

    আখাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রসুল আহমদ নিজামী যুগান্তরকে বলেন, পৌরশহরের একটি বাড়ির মালিকানা নিয়ে ঝামেলার অভিযোগ আছে। বিষয়টি মীমাংসার লক্ষ্যে উভয়কে থানায় ডাকা হয়েছে। কিন্তু তারা আসেননি। তবে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি।

    উক্ত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় ইলেকট্রনিকস, প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিক এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মী ও এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম