• শিরোনাম


    আখাউড়ায় ব্যবসায়ী নেতাদের অদ্ভুত সিদ্ধান্তে স্থলবন্দরে রপ্তানিতে জটিলতা

    রিপোর্ট অমিত হাসান অপু, স্টাফ রিপোর্টার: | ১১ মে ২০২০ | ৫:৫৮ অপরাহ্ণ

    আখাউড়ায় ব্যবসায়ী নেতাদের অদ্ভুত সিদ্ধান্তে স্থলবন্দরে রপ্তানিতে জটিলতা

    ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দরে করোনায় ব্যবসায়ি নেতাদের অদ্ভুত সীদ্ধান্তে রপ্তানিতে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে।এতে করে ভারতে রপ্তানির জন্য আসা বহু পণ্যবাহী গাড়ি বন্দরের বাহিরে রাস্তায় আটকা পড়েছে।

     



    পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে নিয়মিত অনেক সিএন্ডএফ এজেন্টের নাম বাদ দিয়ে ব্যবসায়ী নেতাদের আত্মীয়স্বজন ও কিছু অনিয়মিতদের ব্যবসায়ীদের নিয়ে ১৪ জনের নামের তালিকা করা হয়েছে।বর্তমানে তারা ব্যতীত কেউ বন্দরে পণ্যবাহী ট্রাক ডুকাতে পারবেনা বলে একটি পত্র উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে জমা দিয়েছে তারা।

     

    এমতাবস্থায় বন্দর কতৃপক্ষ অন্য ব্যবসায়ীদের পণ্যবাহী গাড়ী বন্দরে প্রবেশ করতে না দেওয়ায় বন্দরের বাহিরের রাস্তায় বহু গাড়ী আটকা পড়ে। এ ঘটনায় পন্যবাহী গাড়ি আটকা পড়ায় নিয়মিতএজেন্টরা পড়েছে বিপাকে।

    সোমবার ১১ মে সকালে সরেজমিনখোজ নেয়ার সময় এই তথ্য জানাগেছে।

     

    খোজ নিয়ে জানাযায়, সিএন্ডএফ ব্যবসায়িদের তালিকায় ব্যবসায়ী নেতাদের আত্নীয় স্বজন বন্ধু অনিয়মিত ব্যবসায়ী এমনকি বিদেশে কর্মরত মো: নাহিদ হাসান খানের নাম তালিকায় অর্ন্তভুক্ত হয়েছে।

     

    নিয়মিত ব্যবসায়ি আব্বাস উদ্দিন ভুইয়া জানায়, স্থলবন্দরের শুরু থেকে নিয়মিত ব্যবসা করছেন কিন্তু তালিকায় তার নাম নেই। মালসহ তার ৪টি গাড়ি স্থলবন্দরে আটকা পড়েছে। নিয়মিত ব্যবসায়ি আক্তারহোসেনের আটকা পড়েছে ৪ গাড়ি। তারও নাম নেইতালিকায়। তালিকায় নাম না থাকায় শানু ভুইয়ার আটকা পড়া মাল সভাপতি মোবারক হোসেনের নামে পাঠাতে বাধ্য হয় তিনি।

     

    আখাউড়া স্থলবন্দরের আমদানি রপ্তানি অ্যাসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক সফিকুল ইসলাম জানান, করোনায় বন্দরের ব্যবসা সীমাবদ্ধ করা হয়েছে। সীমাবদ্ধ তালিকায় প্রাথমিক পর্যায়ে ১৪ জনের নাম দেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সবার নাম তালিকায় আসবে। আটকা পড়া সব গাড়ি রপ্তানি হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।তিনি আরো বলেন, প্রশাসনকে নিয়েই ব্যবসায়িরানামের তালিকা করেছে।

     

    আখাউড়া স্থলবন্দরের সহকারী পরিচালক(ট্রাফিক) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, যতটুকু জানি তালিকা নিয়মিত পরিবর্তন করা হবে। করোনায় প্রতিদিন ভারত ৩৫ গাড়িরবেশী মাল গ্রহন না করায় পন্য পারাপার সিমিত করা হয়েছে।ব্যবসায়িদের ১৪ জনের তালিকা অনুযায়ী আমরা গাড়ী রিসিভ করছি। পরে তালিকা পরিবর্তন হলে অন্যদের মাল রিসিভ করবো।

     

    এ ব্যাপারে আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহমিনা আক্তার রেইনা জানায়, করোনায় আখাউড়াস্থলবন্দরের ব্যবসা সিমিত করা হয়েছে।

    সে অনুযায়ী ব্যবসায়ীরা ১৪ জনের একটি তালিকার অনুলিপি দিয়েছে উপজেলা প্রশাসনকে। উপজেলা প্রশাসন কোন তালিকা করেনি। তালিকায় অনিয়ম থাকলে বিষয়টি তিনি খতিয়ে দেখবেন বলেও জানান।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম