• শিরোনাম


    আওয়ার কণ্ঠ’র সাফল্যে যাদেরকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করি [] মুফতি ছালেহ বিন আব্দুল কুদ্দুস

    | ২৬ জুন ২০২০ | ৩:১৬ পূর্বাহ্ণ

    আওয়ার কণ্ঠ’র সাফল্যে যাদেরকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করি [] মুফতি ছালেহ বিন আব্দুল কুদ্দুস

    শ্রদ্ধেয় মাওলানা নূরে আলম জাহাঙ্গীরের সাথে আমার সম্পর্ক আন্তরিক ও আদর্শিক। সহপাঠী হিসেবে তাঁর ব্যাপারে এবং আওয়ার কণ্ঠকে নিয়ে আমার মূল্যায়ন অবশ্যই স্বাতন্ত্র্যের দাবী রাখে। সাহিত্য ও সাংবাদিকতা করা সবার কাজ নয়। প্রত্যেকেই নিজের মধ্যে এই প্রতিভা বিকশিত করতে পারে না। আর এক্ষেত্রটি অনেক ঝুঁকিপূর্ণও বটে। এখানে এসে পথ চলতে হয় খুবই সতর্কতার সাথে। আলহামদুলিল্লাহ, আমরা ছাত্রজীবনের শুরু থেকেই সাহিত্যচর্চা, ইতিহাস-গবেষণা, সমকাল-পর্যালোচনা ইত্যাদির সাথে ওতপ্রোতভাবেই জড়িত ছিলাম। জাহাঙ্গীর ভাই এক্ষেত্রে বেশি শ্রম দেয়ার চেষ্টা করতেন। তখন থেকেই তিনি পত্র-পত্রিকার কাজে সম্পৃক্ত ছিলেন। সে সময়ের মেহনত-কোশেশ আর হাজারো স্বপ্নের বাস্তবিক রূপই হলো আজকের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল আওয়ার কণ্ঠ।

    একটা সময় অতিবাহিত হয়েছে, যখন সাহিত্য-সাংবাদিকতা ইসলামবিদ্বেষী বামপন্থীদের কলমে জিম্মি ছিল। ৭১’ দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে নিয়ে বিংশ শতাব্দীর পুরো অবশিষ্টাংশ জুড়েই ছিল এদের অযাচিত আস্ফালন। তখন কতিপয় মুসলিম লেখক-সাংবাদিকের সক্রিয় ভূমিকা থাকলেও তা ছিল একেবারেই নগন্য। প্রচণ্ড ঝঞ্ঝাবায়ূর মোকাবিলায় নিভু-নিভু প্রদীপের মতই ছিল এদের অবস্থা।



    কিন্তু একসময় সঙ্কটময় এ পরিস্থিতির অবসান ঘটেছে। এক বিংশ শতাব্দীর ঊষালগ্নেই ইসলামি সাহিত্য ও সাংবাদিকতার যে সোনালী ধারা সৃষ্টি হয়েছে, তা একথাই জানান দিচ্ছে যে, বিজাতীয় সংস্কৃতি এবং রাম-বামদের দাদাগিরির দিন শেষ।

    আলেম সাহিত্যিকদের অবদান এবং ইসলামি সাংবাদিকতার কীর্তিগাঁথা বাদ দিয়ে বাংলাদেশের সাহিত্য-ইতিহাস রচিত হওয়া এখন বাস্তবিকপক্ষেই অবান্তর। অনলাইন-অফলাইনে মুসলিম তরুণদের এক্টিভিটি ক্রমবর্ধমান। লেখালেখির ময়দানে আলেমদের সৃজনশীলতা আশাজাগানিয়া। তাদের রচিত বইপত্র ও প্রবন্ধ-নিবন্ধ বাংলা সাহিত্যে এক বৈচিত্র্য ও নতুনত্ব তৈরি করছে। ইন্টারনেটে মানসম্মত দ্বীনী সাইট ও নিউজ পোর্টাল জন্ম লাভ করছে। স্মরণ রাখা উচিত, এসব একদিনেই গড়ে ওঠেনি। বরং এর পেছনে রয়েছে এক দল চিন্তাশীল প্রবীণ আলেম সাহিত্যিকের অবিস্মরণীয় প্রচেষ্টা-পরিশ্রম। আমাদের প্রতিটি সাফল্যেই তাদেরকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করা উচিত।

    আমি তো দৃপ্তকণ্ঠে বলতে চাই, আওয়ার কণ্ঠ’সহ সকল ইসলামি নিউজ পোর্টালের সফলতার শুভক্ষণে এগুলোর সম্পাদক-সাংবাদিকদের আগে সে সমস্ত মনীষীগণ মোবারকবাদ পাওয়ার অধিক উপযুক্ত, যাদের সুদূরপ্রসারী কর্মযজ্ঞের সুফল হলো সাহিত্যের এই আলোকিত ভুবন। আমরা কখনো ভুলতে পারবো না, সর্বপ্রাচীন ইসলামি সাময়িকী মাসিক নেয়ামতের প্রতিষ্ঠাতা অসংখ্য কিতাবের রচয়িতা ও অনুবাদক মুজাহিদে আজম আল্লামা শামসুল হক ফরিদপুরী রহ.-কে। আমরা আজো শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করি, বর্তমান বাংলাদেশের সব আলেম সাহিত্যিক যার কাছে চিরঋণী অসংখ্য কিতাবের রচয়িতা ও অনুবাদক মাসিক মদীনার প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা মুহিউদ্দীন খান রহ.-কে।
    মাওলানা আবু সাঈদ মুহাম্মদ ওমর আলী রহ., মাওলানা আবু তাহের মিসবাহ, মাওলানা আ ফ ম খালিদ হোসাইন, মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদবী, মাওলানা শরীফ মুহাম্মদ, মাওলানা যাইনুল আবিদীনসহ আরো অনেকের নাম অঙ্কিত আছে আমাদের হৃদয়ের মসনদে।।

    লেখক: মুফতি ছালেহ বিন আব্দুল কুদ্দুস
    শিক্ষক, জামিয়া ইসলামিয়া নিউ মডেল মাদরাসা রূপসী, ঢাকা।।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আওয়ারকণ্ঠ২৪.কম